শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

কিশোরগঞ্জের হাওরের অলওযেদার সড়কে খড়ের গাদা

অষ্টগ্রাম (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি
  ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১১:৫৮
আপডেট  : ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১১:৫৯

কিশোরগঞ্জের হাওরের অষ্টগ্রাম, ইটনা মিঠামইন দৃষ্টি নন্দিত অলওয়েদার সড়কের একপাশ দিয়ে খড়ের গাদা (খড়ের স্তূপ) দিয়ে রেখেছে ফলে একদিকে হাওরের পর্যটকদের দৃষ্টি নন্দিত অলওযেদার সড়কে দুর্ঘটনার আশঙ্কা অন্যদিকে সড়কের মারাত্মক ক্ষতি হওয়া ঝুঁকি থাকলেও এই বিষয়ে সড়কের কর্তৃপক্ষ স্থানীয় প্রশাসন অজানা কারণে নীরব ভূমিকা পালন করছে  বলে অভিযোগ উঠেছে

 

হাওরের ইটনা, মিঠামই অষ্টগ্রাম অলওয়েদার সড়কে গিয়ে দেখা যায়, বুধবার বিকেলেঅষ্টগ্রাম উপজেলার কাস্তুল ইউনিয়নের  ভাতশালা গ্রামের সামনে দিয়ে যাওয়া সড়কটিতে দুইটি খড়ের গাধা (খড়ের স্তুপ) রয়েছে বেশ কয়েক জন এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বললে তারা জানান,এই খড়ের গাধা গুলো ২০-২৫ দিন আগে রাখা হয়েছিল যার কারণে ইতিমধ্যেই ইদুর বাসা বাধা শুরু করেছে মাঝেমধ্যে খড়ের গাধা থেকে ইদুর অলওযেদার সড়কে আসতে দেখা যায়

 

তারা বলেন, এই ভাবে সড়কে খড়ের গাদা থাকলে সড়কটি এক সময় ইদুর বাসা বেঁধে  মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে এছাড়াও এই হাওরের অলওযেদার সড়কে প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন জেলা উপজেলা থেকে ঘুরতে আসেন এদের মধ্যে অনেকেই মোটরসাইকেল নিয়ে আসেন যদি একটু অন্য মনস্ক হয়ে মোটরসাইকেল চালানো হয় তাহলে তো আর কথা নেই

 

দুর্গাপূজা উপলক্ষে  মৌলভী বাজার থেকে ঘুরতে আসা একদল পর্যটকের মধ্যে রাসেল নামের এক পর্যটক বলেন, সারাদেশ জাগানো হাওরের এই অলওয়েদার সড়কটি দেখতে বন্ধ-বান্ধব নিয়ে আমরাও এসেছি মোটরসাইকেল নিয়ে অলওয়েদার সড়কটি দেখে বেশ ভালো লাগল কিন্তু অলওয়েদার সড়কের তো এইভাবে খড়ের গাধা রাখাটা কতটুকু  নিরাপদ?

 

একাধিক অটোরিকশা মোটরসাইকেল চালকদের সাথে কথা বললে তারা জানান, এই সড়কটি দিয়ে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত পর্যটকেরা মোটরসাইকেল, অটোরিকশাসহ বিভিন্ন যান চলাচল করে কিন্তু সন্ধ্যার পর থেকে এই খড়ের গাদার কারনে ভাতশালা গ্রামের কাছাকাছি আসলেই বেশ ঝুঁকি নিয়ে চালাতে হয় খড়ের গাধা সরানোর বিষয় সড়ক জনপথ এবং স্থানীয় প্রশাসনের কোন ভূমিকা দেখছেন না বলেও জানান তারা

 

ফলে দিনে দিনে ইদুরের বাসা বেঁধে সড়কটির যেই ক্ষতি করছে এই ভাবে চলতে থাকলে অলওযেদার সড়কটির মারাত্মক ক্ষতি সম্মুখীন হতে পারে

 

এই বিষয়ে সড়ক জনপথ অধিদপ্তরের কিশোরগঞ্জ নির্বাহী প্রকৌশলী রিতেশ বড়ুয়া সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি তিনি দেখছেন

 

এব্যাপারে অষ্টগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ হারুন অর রশিদ এর সরকারি মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে