শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১

সোনারগাঁওয়ে শ্বশুরকে কুপিয়ে পালিয়েছে বড়ছেলের দ্বিতীয় বউ 

সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি
  ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩:৪৭

নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁওয়ে আবদুল মান্নান (৬৬) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করেছে তার পুত্রবধূ।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যার পর সোনারগাঁ পৌর এলাকার হাতকোপা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে ঘাতক পুত্রবধূ চামেলি আক্তার (৩৫) পলাতক রয়েছে। আহত মান্নানকে উদ্ধার করে মুমুর্ষ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, সন্ধ্যার পর মান্নানের আত্ম চিৎকারে তার বাসার সামনে গিয়ে দেখতে পান রক্তাক্ত অবস্থায় গেইটের ভিতর পরে আছেন তিনি। তাকে আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে সোনারগাঁ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে তিনি জানান সন্ধার পর তার বাসায় ঢুকে বড় ছেলের বউ চামেলি আক্তার চাপাতি দিয়ে এলাপাথারি ভাবে কুপিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

মান্নানের প্রতিবেশীরা জানান, আব্দুল মান্নানের দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে কাওসার সৌদী আরবে থাকেন। ওই ছেলের প্রথম স্ত্রী এক কন্যা সন্তান রেখে মারা গেলে তিনি চামেলি আক্তারকে বিয়ে করেন। চামেলি আক্তারের বাড়ি যশোর জেলার পচাডাঙ্গা গ্রামে। বিয়ের পর থেকেই চামেলি আক্তারের সাথে নানা কারণে মান্নান মিয়ার পরিবারের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। কাওসারের সাথে চামেলি আক্তারের বিয়ের পর বর্তমান সংসারে দুই কন্যা রয়েছে। সম্প্রতি মান্নানের জমি নিয়ে চামেলির সাথে দ্বন্দ্ব হয়। পরে গত ৩ মাস আগে ছোট মেয়েকে রেখে ঢাকায় চলে যান চামেলি।

কাওসারের বড় মেয়ে সনিয়া জানান, আমি একটি ছোট চাকরি করি। আমার অফিস থেকে বুধবার পিকনিক ছিল তাই আমার ছোট সৎ বোন ও দাদীকে নিয়ে পিকনিকে গিয়েছিলাম। বাড়িতে দাদা একা ছিলেন। পরে ফোনের মাধ্যমে জানতে পারি আমার সৎ মা এসে দাদাকে এলাপাথারি ভাবে কুপিয়ে মারাক্তক জখম করেছে।

মান্নানের ছোট ছেলে রাসেল জানান, বাবা এখন আইসিইউতে ভর্তি আছেন। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

সোনারগাঁ থানার ওসি তদন্ত মো. মহসিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আহত মান্নান এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন। পুলিশ পুরো ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে