রোববার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১
ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় জলাবদ্ধতা

ভারী বর্ষণে মানিকছড়ির নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

মানিকছড়ি (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি
  ২৮ মে ২০২৪, ১৫:৪৩
ছবি: যায়যায়দিন

কয়েক দিনের ভারি বৃষ্টি আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলা সদরের উত্তর মুসলিমপাড়া ও মাষ্টারপাড়াসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে রবিবার রাত ১০টা থেকে ঝড়ো হাওয়াসহ থেমে থেমে ভারি বৃষ্টি হচ্ছে, কখনো বা গুড়ি গুড়ি, কখনো মুষলধারে। বৃষ্টির জমা পানি আর পাহাড় থেকে নেমে আসা পানিতে সয়লাব হয়েছে মুসলিমপাড়া ও মাষ্টারপাড়ার ২০-২৫টি ঘর বাড়ি। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন পরিবারগুলো। তবে শ্রমিকদের নিয়ে সকাল থেকে পানি নিষ্কাশনে কাজ করছে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ এলাকাবাসী।পর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে এমন দুর্ভোগে পড়েছে পরিবারগুলো। ড্রেনেজ নির্মাণ করে এই সমস্যা সমাধানের দাবী তাদের।

দূর্ভোগের কথা জানিয়ে স্থানীয় মো. সেলিম জানান, 'গত রাত থেকে তার ঘরে হাঁটু সমান পানি। দুদিন রান্না-বান্না বন্ধ রয়েছে। স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে উঠেছেন অন্যের বাড়িতে।'

মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, 'বৃষ্টির পানি আর পাহাড় থেকে নেমে আসা পানিতেই এমন অবস্থা হয়েছে। ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলে হয়তো পানি দ্রুত নিষ্কাসন হতো, সাধারণ মানুষের ভোগান্তিও হতো না।'

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. হানিফ মিয়া বলেন, প্রতি বছরের বর্ষা মৌসুমে একটু ভারি বৃষ্টি হলেই এমন জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে ভোগান্তিতে পড়ে এখানকার বাসিন্দারা। তবপ এ সমস্যা নিরসনে কোন উদ্যোগ নেই।' এসময় তিনি উপজেলার জনপ্রতিনিধি ও উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন।

এ বিষয়ে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসনে ড্রেনেজ নির্মাণের বিষয়ে দ্রুতই ব্যবস্থা নেয়া হবে।'

এদিকে টানা বৃষ্টির পানি আর পাহাড়ী ঢলে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় তলিয়ে গেছে ফসলি জমি। ক্ষতির মুখে পড়েছেন প্রান্তিক কৃষকরা। তীব্র ঝড়ো হাওয়ায় গাছপালা ভেঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সাধারণ মানুষ। বিদ্যুৎ সুবিধা বন্ধ থাকায় বেড়েছে ভোগান্তিও।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে