logo
বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৫

  যাযাদি ডেস্ক   ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

করোনাভাইরাস মহামারি

মৃতের সংখ্যা বাড়ায় আতঙ্কে বিশ্ব

জ্জ আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা জানা নেই, স্বীকার চীনের জ্জ বিশ্বজুড়ে অপরিবর্তিত প্রাদুর্ভাব : ডবিস্নউএইচও জ্জ প্রথম মৃতু্য জাপানে

মৃতের সংখ্যা বাড়ায় আতঙ্কে বিশ্ব
বাঁচার আকুতিতে ভারী হয়ে আছে চীনের বাতাস। কভিড-১৯ করোনাভাইরাস মৃতু্যর ফরমান নিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে সেখানকার অলিগলি। এদিকে, ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল হুবেই প্রদেশের উহান শহরে নতুন করে সেনা ও চিকিৎসাকর্মী পাঠাচ্ছে দেশটির সরকার। বৃহস্পতিবার উহানের বিমানবন্দরে নামার পর নিজেদের দায়িত্ব বুঝে নিচ্ছেন কর্মকর্তারা -এপি/আউটলুক ইনডিয়া
প্রাণঘাতী কভিড-১৯ করোনাভাইরাসে বেড়েই চলেছে মৃতের সংখ্যা। চীনের হুবেই প্রদেশে একদিনে রেকর্ড সংখ্যক লোকের প্রাণহানির পর একলাফে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৪৮৮ জনে। এছাড়া ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে লাফিয়ে। এদিকে, আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়তে থাকায় বিশ্বজুড়ে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। সংবাদসূত্র : রয়টার্স, বিবিসি, সিনহুয়া

গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হুবেই প্রদেশের উহানে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হয়। এরপর থেকে চীনে মহামারি আকার ধারণ করে এই ভাইরাস। ভাইরাসটি চীনের ৩১ প্রাদেশিক পর্যায়ের অঞ্চল ছাড়াও বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে। এ ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা এবং প্রাণহানি বাড়তে থাকায় বিশ্বব্যাপী জরুরি অবস্থা জারি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংক্রমণ ঠেকাতে ব্যাপক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়েছে অধিকাংশ দেশ।

আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে অনেক আগেই সার্স ভাইরাসকে ছাড়িয়েছে করোনা। বিশ্বের অনেক দেশই ভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে চীন থেকে আগতদের 'অন-অ্যারাইভাল' ভিসা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। বেশিরভাগ এয়ারলাইন্স কোম্পানি চীনগামী ফ্লাইট বন্ধ করে দিয়েছে। করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে চীন।

এদিকে, শুধু উহান শহরেই প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা কমপক্ষে পাঁচ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন বলে ধারণা বলে করছে যুক্তরাজ্যের বিখ্যাত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান 'লন্ডন স্কুল অব হাইজিন অ্যান্ড ট্রপিক্যাল মেডিসিন'। এই প্রতিষ্ঠানের গবেষকরা বলছেন, নতুন এই করোনাভাইরাসের প্রাণকেন্দ্র উহানের অনেক বাসিন্দা সংক্রমিত হলেও তারা তা জানেন না। ফলে আগামী দিনগুলোতে উহানে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এক কোটি ছাড়িয়ে যেতে পারে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আক্রান্তের অনেক ঘটনাই হয়তো সামনে আসছে না। এ কারণে এর প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। গত শুক্রবার এক ব্রিটিশ বিজ্ঞানী দাবি করেছেন, সরকারি তথ্য অনুযায়ী যে সংখ্যা জানানো হচ্ছে, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা তার চেয়ে ১০ গুণ বেশি হতে পারে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে প্রাথমিক উপসর্গ হয় ফ্লু বা নিউমোনিয়ার মতো। কিন্তু বয়স্ক এবং অন্য অসুস্থতা থাকা ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে এ সংক্রামক রোগ হয়ে উঠতে পারে প্রাণঘাতী। এর কোনো প্রতিষেধকও মানুষের জানা নেই।

উহানে আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা

জানা নেই, স্বীকার চীনের

এদিকে, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের উৎস হুবেই প্রদেশের উহান শহরে এখন পর্যন্ত কতজন এতে আক্রান্ত হয়েছেন তার সঠিক সংখ্যা জানা নেই বলে স্বীকার করেছে চীন। আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা সরকারি হিসাবের চেয়ে অনেক বেশি হতে পারে বলেও আশঙ্কা করছে দেশটি। ফলে ভাইরাসে আক্রান্তদের খুঁজে বের করতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করছে কর্তৃপক্ষ।

করোনাভাইরাস সংকট মোকাবিলায় একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন টিম গঠন করেছে চীনের কমিউনিস্ট সরকার। বৃহস্পতিবার টিমের অন্যতম সদস্য চেন ইজিন জানিয়েছেন, ভাইরাস সংক্রমণের বিষয়টি এখনো 'অনিশ্চিত', এতে কতজন আক্রান্ত হয়েছেন, তার সঠিক সংখ্যা তাদের জানা নেই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ক্রীড়া কমপেস্নক্স, প্রদর্শনী হল বা বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো জায়গাগুলোতে আরও সেবাকেন্দ্র খোলার দাবি জানিয়েছেন তিনি। এছাড়া করোনাভাইরাসবিরোধী যুদ্ধরত 'সেনাদের' (চিকিৎসাকর্মী) পুরস্কৃত করারও আহ্বান জানিয়েছেন এ কর্মকর্তা।

বিশ্বজুড়ে অপরিবর্তিত করোনার

প্রাদুর্ভাব : ডবিস্নউএইচও

অন্যদিকে, হঠাৎ করে চীনের হুবেই প্রদেশে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়ে গেলেও বিশ্বজুড়ে এর প্রাদুর্ভাব অপরিবর্তিত থাকার কথা জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডবিস্নউএইচও)। তারা জানিয়েছে, ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃতের হার বা এর তীব্রতায় বড় ধরনের কোনো পরিবর্তন আসেনি।

ডাবিস্নউএইচও'র 'হেলথ ইমার্জেন্সি'র প্রধান মাইক রিয়ান বলেন, 'আক্রান্ত নির্ধারণে হুবেই কর্তৃপক্ষ যে ব্যাখ্যা নির্ধারণ করেছিল, তাতে পরিবর্তন আনায় ভাইরাসটিতে সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা বেড়েছে।' তিনি আরও বলেন, 'এতে প্রাদুর্ভাব বিস্তারের উলেস্নখযোগ্য পরিবর্তনের ইঙ্গিত প্রতিফলিত হয় না।'

প্রথম মৃতু্য জাপানে

করোনাভাইরাসে চীনে রেকর্ড মৃতু্যর পরদিনই প্রথম মৃতু্যর খবর মিলেছে জাপান থেকে। ভাইরাসটিতে চীনের বাইরে ফিলিপাইনে একজনের মৃতু্যর পর বৃহস্পতিবার জাপান সেদেশে একজনের মৃতু্যর খবর নিশ্চিত করেছে।

কভিড-১৯ এ মারা যাওয়া অশীতিপর ওই জাপানি নারী থাকতেন টোকিওর দক্ষিণ-পশ্চিমের কানাগাওয়া এলাকায়। মৃতু্যর পর তার করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিষয়টি নিশ্চিত হন কর্মকর্তারা।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে