logo
শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

আইন কর্মকর্তাদের সম্মানী

৩ হাজার টাকা থেকে এক লাফে ৫০ হাজার টাকা!

হাসান আরিফ

অধস্তন আদালতের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তাদের মাসিক সম্মানী ভাতা তিন হাজার টাকা থেকে বেড়ে এক লাফে ৫০ হাজার টাকা হচ্ছে। আর সহকারী আইন কর্মকর্তাদের ভাতা ৭৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে করা হচ্ছে ৩০ হাজার টাকা। এ হিসেবে আইন কর্মকর্তাদের সম্মানী ভাতা এক হাজার ৬৬৬ শতাংশ থেকে চার হাজার শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের দৈনিক ফিও বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়।

বর্তমানে একজন (রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি) পিপি, বিশেষ পিপি ও অতিরিক্ত পিপি এবং জিপি ও অতিরিক্ত জিপির সম্মানী ভাতা তিন হাজার টাকা। আর এপিপি এবং এজিপি ও এলজিপির সম্মানী ভাতা ৭৫০ টাকা।

আইন ও বিচার বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রস্তাবিত ভাতায় জিপি, পিপি ও বিশেষ পিপিকে তিনটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। এর মধ্যে 'এ' ক্যাটাগরির জন্য ৫০ হাজার টাকা, 'বি' ক্যাটাগরির জন্য ৪৫ হাজার টাকা এবং 'সি' ক্যাটাগরির জন্য ৪০ হাজার টাকার প্রস্তাব করা হয়েছে।

অতিরিক্ত জিপি ও অতিরিক্ত পিপিদের তিনটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। এর মধ্যে 'এ' ক্যাটাগরির জন্য ৪৫ হাজার টাকা, 'বি' ক্যাটাগরির জন্য ৪০ হাজার টাকা এবং 'সি' ক্যাটাগরির জন্য ৩৫ হাজার টাকা প্রস্তাব করা হয়েছে।

এজিপি ও এলজিপিরা বর্তমানে ৭৫০ টাকা সম্মানী ভাতা পাচ্ছেন। আর এপিপিরা কোনো সম্মানী ভাতা পাচ্ছেন না। প্রস্তাবিত ভাতায় তাদেরও তিনটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। এর মধ্যে 'এ' ক্যাটাগরির জন্য ৪০ হাজার টাকা, 'বি' ক্যাটাগরির জন্য ৩৫ হাজার টাকা এবং 'সি' ক্যাটাগরির জন্য ৩০ হাজার টাকা প্রস্তাব করা হয়েছে।

এদিকে যেসব কর্মকর্তা দৈনিক বা অর্ধদিবস ফি পাচ্ছেন তাদেরও ফি বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। বর্তমানে পিপি ও বিশেষ পিপি দৈনিক ফি পাচ্ছেন ৫০০ টাকা আর অর্ধদিবস ফি পাচ্ছেন ২৫০ টাকা। নতুন প্রস্তাবে তা বাড়িয়ে ৬৫০ টাকা ও ৩০০ টাকা করা হয়েছে। বর্তমানে অতিরিক্ত পিপি দৈনিক ফি পাচ্ছেন ৪০০ টাকা আর অর্ধদিবস ফি পাচ্ছেন ২৫০ টাকা। নতুন প্রস্তাবে তা বাড়িয়ে ৫০০ টাকা ও ৩০০ টাকা করা হয়েছে। বর্তমানে এপিপি দৈনিক ফি পাচ্ছেন ২০০ টাকা আর অর্ধদিবস ফি পাচ্ছেন ১০০ টাকা। নতুন প্রস্তাবে তা বাড়িয়ে ২৫০ টাকা ও ১৫০ টাকা করা হয়েছে।

জানা গেছে, সারাদেশে দেওয়ানি আইন কর্মকর্তাদের দৈনিক ফি নেই। সে ক্ষেত্রে তারা মোট ভ্যালুয়েশনের ওপর শতকরা হারে অর্থ পেয়ে থাকেন। তবে এক্ষেত্রে প্রতিটি মামলার ভ্যালুয়েশন ফি সর্বোচ্চ তিন হাজার টাকা ধার্য আছে। বর্তমান বাজারমূল্য অনুযায়ী মামলার বিষয়বস্তুও ভ্যালুয়েশন অনেকাংশে বেড়েছে। তবে আইন ও বিচার বিভাগ মনে করে, মামলার বিষয়বস্তুও ভ্যালুয়েশনের ওপর ফি নির্ধারণের বর্তমান হার অপরিবর্তিত রাখা যেতে পারে। তবে মামলার বিষয়বস্তুও ভ্যালুয়েশনকে বিবেচনায় নিয়ে প্রতিটি মামলার ভ্যালুয়েশন ফি সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা প্রস্তাব করা যেতে পারে। অথবা ভ্যালুয়েশনের ওপর ভিত্তি করে ফি যা-ই হোক না কেন কোনো অবস্থায় পাঁচ হাজারের ওপর ফি দেওয়া যাবে না।

সূত্র জানায়, আইনি স্মরণিকা ম্যানুয়াল, ১৯৬০ এর অধীনে সারাদেশে জিপি/পিপিদের নিয়োগ, অব্যাহতি, পারিতোষিক ও অন্যান্য সুবিধা দেওয়া হয় এবং তারা মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করেন। অধঃস্তন আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ফৌজদারি মামলা পরিচালনা করেন পিপি, বিশেষ পিপি, অতিরিক্ত পিপি এবং এপিপিরা। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে দেওয়ানি মামলা পরিচালনা করেন জিপি, অতিরিক্ত জিপি, এজিপি এবং এলজিপিরা। সম্মানী ভাতা বাবদ আইন কর্মকর্তারা মাসিক রিটেইনার ফি (সুনির্দিষ্ট ফি) এবং পূর্ণ দিবস বা অর্ধ দিবস শুনানির জন্য দৈনিক নির্দিষ্ট হারে ফি পেয়ে থাকেন। তবে এপিপিরা পূর্ণ দিবস ও অর্ধ দিবস শুনানির জন্য নির্দিষ্ট ফি পেলেও কোনো রিটেইনার ফি পান না। অন্যদিকে জিপি, অতিরিক্ত জিপি, এজিপি এবং এলজিপিরা মাসিক রিটেইনার ফি পেলেও কোনো দৈনিক ফি পান না। তবে মামলার ভ্যালুয়েশনের ওপর মোট শতকরা হারে মামলা শেষ হলে ফি পেয়ে থাকেন, যা সর্বোচ্চ তিন হাজার টাকার উপরে নয়। ভ্যালুয়েশন যা-ই হোক না কেন।

জানা গেছে, সর্বশেষ ১৯৯৩ সালের ৩০ জুন আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয় রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলিদের সম্মানী বৃদ্ধি করে আদেশ জারি করে। পরে ২০০৩-০৪ অর্থবছরে আইন কর্মকর্তাদের রিটেইনার ফি সামান্য বৃদ্ধি করা হয়। তবে অন্যান্য ফি অপরিবর্তিত রাখা হয়। এরপর মেট্রোপলিটন বা জেলা পর্যায়ের আইন কর্মকর্তাদের সম্মানী ভাতা আর বৃদ্ধি করা হয়নি। অন্যদিকে জাতীয় বেতন স্কেল একাধিকবার বৃদ্ধি পেয়েছে।

আইন ও বিচার বিভাগ বলছে, জাতীয় সংসদের আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি জিপি ও পিপিদের পারিতোষিক ও অন্যান্য সুবিধা বৃদ্ধির সুপারিশ করেছে। বিগত কয়েকটি জেলা প্রশাসক সম্মেলনেও জিপি ও পিপিদের সম্মানী এবং বিভিন্ন খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দপ্তর ও সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ মামলা পরিচালনায় রাষ্ট্রপক্ষের আইন কর্মকর্তাদের সহযোগিতার জন্য প্রতিষ্ঠানগুলো যেসব বেসরকারি আইনজীবী নিয়োগ করে থাকে তাদের সম্মানী ভাতাও তুলনামূলকভাবে জিপি ও পিপিদের চেয়ে অনেক বেশি। তাছাড়া গত ১৫ বছরেও আইন কর্মকর্তাদের রিটেইনার ফি বৃদ্ধি পায়নি। অন্যদিকে বিগত ২৫ বছরে আইন কর্মকর্তাদের দৈনিক ফি ও মামলার ভ্যালুয়েশনের ওপর ভিত্তি করে দেওয়া ফি অপরিবর্তিত রয়েছে। সার্বিক বিচারে সরকারি কৌঁসুলিদের সরকারি স্বার্থ রক্ষার ব্যাপারে অনেক বেশি দায়বদ্ধ করার জন্য এবং দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও আর্থসামাজিক পরিপ্রেক্ষিত বিবেচনায় জিপি ও পিপিসহ অন্য কৌঁসুলিদের সম্মানী ভাতা বাড়ানো প্রয়োজন বলে বলা হয়েছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে