logo
মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

  যাযাদি রিপোর্ট   ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে সমাবেশ করবে বিএনপি

স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত

নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে সমাবেশ করবে বিএনপি
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শনিবার রাজধানীর একটি হোটেলে অ্যাসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ আয়োজিত একটি সেমিনারে বক্তব্য রাখেন -স্টার মেইল

 



 





পেঁয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে আগামীকাল সোমবার ঢাকাসহ সারাদেশে প্রতিবাদ সমাবেশ করবে বিএনপি।

শনিবার রাতে স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পর এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, ‘পেঁয়াজের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধি- এটা ইতোমধ্যে প্রমাণিত হয়ে গেছে যে, এখানে সিন্ডিকেট জড়িত। এই সিন্ডিকেটের পেছনে সরকারের মদদপুষ্ট ব্যক্তিরা কাজ করেছে। ব্যর্থ হচ্ছে যে, সরকার আগে ধারণাই করতে পারেননি কত আসছে, কত রপ্তানি হচ্ছে। যার ফলে পেঁয়াজের মতো একটি নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে। শুধু পেঁয়াজই নয় সকল নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য অস্বাভাবিকহারে বেড়ে গেছে। আমরা সরকারের ব্যর্থতার নিন্দা জানাচ্ছি।’

 তিনি বলেন, ‘আমরা পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য অস্বাভাবিক বৃদ্ধির প্রতিবাদে আগামী সোমবার ঢাকাসহ সারাদেশে প্রতিবাদ সমাবেশ করব। একই সঙ্গে কৃষকদের পণ্যের ন্যায্য মূল্যের দাবিও এই সমাবেশ জানানো হবে।’

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব আবার আসছে। আগামী ২৮ নভেম্বর এই বিষয়ে গণশুনানি আছে। আমরা এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, এবার দলের পক্ষ থেকে স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর নেতৃত্বে একটি টিম এই গণশুনানিতে অংশ নেবে। ওই টিমের সদস্যরা হচ্ছেন- বরকত উল্লাহ বুলু, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ও এবিএম মোশাররফ হোসেন। তারা এই শুনানিতে যাবেন এবং আমাদের দলের যে বক্তব্য সেই বক্তব্য তুলে ধরবেন।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘গত সভায় সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে, প্রধানমন্ত্রী ভারতে গিয়ে যেসব চুক্তি করেছেন তা জনসমক্ষে প্রকাশ করবার জন্য আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটা চিঠি দেব। আশা করছি কাল/পরশুর মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর অফিসে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করব।’

‘চুক্তির বিষয়ে তথ্য সরবরাহের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকেও চিঠি দেব। সেটা যথাসময়ে তাদের কাছে পৌঁছাবে।’

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘পদ্মা সেতু প্রকল্পের মেয়াদ আরো দেড় বছর বাড়ানো হয়েছে এবং প্রকল্প ব্যয় ১০ হাজার ১৬১ কোটি ৭৫ লাখ টাকার প্রকল্প ব্যয় বেড়ে এখন প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে। মেগা প্রকল্পে মেগা দুর্নীতি। এখন আবার মেগা পাচার। পুরোপুরি মানি লন্ডারিংয়ের মাধ্যমে পুরো টাকাটাই পাচার করে বাইরে নেয়া হচ্ছে। এটা এখন প্রমাণিত।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গার দেয়া বক্তব্যের জন্য এই সভায় ধিক্কার জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে সংসদে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আমরা আহবান জানাচ্ছি। পার্লামেন্ট মেম্বারশিপ এই ধরনের ব্যক্তির থাকা উচিত নয় বলে মনে করি।’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর অবস্থানের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এটা খুবই দুঃখজনক। যে দুর্নীতির অভিযোগে ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদ হারাল, সেই রকম অভিযোগ জাহাঙ্গীরনগর ভিসির বিরুদ্ধে এসে গেছে। সেক্ষেত্রে তাকে ডিফেন্ড করে প্রধানমন্ত্রী নিজে যে হুমকি দিয়েছেন সেটা কিন্তু আইনসম্মত হুমকি নয়। উনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন, সরকার টাকা বন্ধ করে দেবে। আমার কথা টাকা আসে কি সরকারের পকেট থেকে না জনগণের কাছ থেকে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘জনগণ টাকা দেয় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে, তারা জনগণের টাকায় চলে। সেক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের যে অর্ডিন্যান্স আছে, সেসব নিয়মকানুন আছে তার মধ্য দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় চলে। শিক্ষক ও ছাত্ররা যে আন্দোলন করছে আমরা সেই আন্দোলনকে ন্যায়সংগত আন্দোলন মনে করি এবং আমরা এটা সমর্থন জানাচ্ছি।’

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘রোববার বেগম খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে আরেকটা আপিল করা হবে। তার স্বাস্থ্যের অবস্থা খুবই খারাপ। আশা করছি যে, বিচার বিভাগ সম্পূর্ণ স্বাধীনভাবে তার স্বাস্থ্যগত কারণে জামিন দেবেনÑ যেটা তার প্রাপ্য। আমরা প্রত্যাশা করব আদালত থেকে সুবিচার পাব।’

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মহোদয় ইতোমধ্যে ৩৩৩টি সভা করেছেন। বিভিন্ন জেলা-উপজেলা- বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন ও যেসব টিম রয়েছে তাদের সঙ্গে এসব সভা করেছেন। সভায় স্থায়ী কমিটির সদস্যগণ তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

খালেদা জিয়া গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে দুর্নীতি মামলায় কারাগারে যাওয়ার পর তারেক রহমান দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্বভার গ্রহন করেন। লন্ডন থেকে প্রতিনিয়ত তিনি স্কাইপের মাধ্যমে দলের নেতাকর্মীদের সভা করছেন। এজন্য বিএনপির গুলশান কার্যালয় ছাড়াও নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়েও নতুন করে স্কাইপে কক্ষ তৈরি করা হয়েছে।

গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে গতকাল বিকালে স্থায়ী কমিটির এই বৈঠক হয়।

স্কাইপে লন্ডন থেকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভায় সভাপতিত্ব করেন বলে জানান মির্জা ফখরুল।

বৈঠকে মহাসচিব ছাড়া স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে