বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ৬ মাঘ ১৪২৭

শিক্ষকের মৃত্যুতে রাবি ছাত্রলীগের আন্দোলন স্থগিত

শিক্ষকের মৃত্যুতে রাবি ছাত্রলীগের আন্দোলন স্থগিত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক শিক্ষকের মৃত্যুতে ২৪ ঘণ্টার জন্য আন্দোলন স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের চাকরি প্রত্যাশী নেতাকর্মীরা।

মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা শেষে এ আন্দোলন স্থগিতের ঘোষনা দেন তারা।

আন্দোলনকারী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের পক্ষে ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ইলিয়াস হোসেন তথ্যটি নিশ্চিত করে বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনেরর অনুরোধে আমরা তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলাম।

আমরা তাদের কাছ থেকে নিয়োগ বন্ধ ও ১৯৭৩ এর অধ্যাদেশ সমুন্নত রাখার ব্যাপারে ব্যাখ্যা চেয়েছি। তাদের ব্যাখ্যায় আমরা সন্তুষ্ট হইনি। তারপরও তারা আমাদেরকে অনুরোধ করেছেন।'আলোচনা শেষে ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি আরো বলেন, মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক ইন্তেকাল করেছেন। এ বিষয়টি মাথায় রেখে আমরা একদিনের জন্য আন্দোলন স্থগিত করছি।

আগামীকাল উপাচার্য আমাদের সঙ্গে নিজেই আলোচনায় বসবেন বলে আমাদেরকে জানানো হয়েছে।

আলোচনায় তারা যদি আমাদেরকে স্পষ্ট করে ব্যাখ্যা দিতে পারে, তাহলে আমরা আর আন্দোলনে যাব না। কিন্তু আগামীকাল উপাচার্য যদি ব্যাখ্যা করতে না পারেন, তাহলে আমরা আবার আন্দোলন শুরু করব।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা জানান, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের সম্মানিত সভাপতি ইন্তেকাল করেছেন।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা মুলত তার বিদেহী আত্মার প্রতি সম্মান রেখেই এই আন্দোলন ২৪ ঘণ্টার জন্য স্থগিত করেছেন।

তিনি বলেন, আগামীকাল ১২ টায় উপাচার্যের সাথে আবার আলোচনা হবে। সেখানে তাদের সকল দাবি দাওয়াগুলো আইনসিদ্ধ ভাবে সমাধানে চেষ্টা করা হবে।

মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী মো জাকারিয়া কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. একেএম মোস্তাফিজুর রহমান আল আরিফ ও প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমানের সাথে ৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল আলোচনায় বসেন।

এর মধ্যে ছিলেন, রাবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইলিয়াছ হোসেন, স্বপন আহমেদ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাসুদ রানা, বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি মাহফুজ আল আমিন ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রাসেল।

এর আগে সোমবার দুপুরে রেজিস্ট্রার দপ্তরে এডহক ভিত্তিতে একজন প্রতিবন্ধীর চাকরি নিশ্চিত হলে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে ছাত্রলীগের চাকুরীপ্রত্যাশীরা।

পরে ওই দিনই রাত ৯ টায় বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের বাসভবন ও প্রশাসন ভবনে তালা লাগিয়ে আন্দোলনে নামেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান কমিটির চাকরিপ্রত্যাশী নেতাকর্মীরা।

পরে মঙ্গলবার সকালে উপাচার্যের বাসভবনের তালা খুলে দিয়ে প্রশাসন ভবনের গেটে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান কর্মসূচী শেষে আলোচনার জন্য আহ্বান করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে