বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১

ফারিণের বৃহস্পতি তুঙ্গে

মাতিয়ার রাফায়েল
  ৩০ মে ২০২৪, ০৯:৫৪
তাসনিয়া ফারিণ

১৯৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধের কঠিন বাস্তবতাকে অবলম্বন করে বেঁচে থাকার মধ্যে এগিয়ে যাওয়া এক সংগ্রামী নারীর ছবি মূর্ত হয়ে ওঠার নাম ‘ফাতিমা’। ‘ফাতিমা’ নামটি শুনলেই মনের অজান্তে চোখে ভেসে ওঠবে গ্রাম-বাংলার এমন প্রতিচ্ছবি, যে নামের সঙ্গে জড়িয়ে আছে সবুজ শ্যামল গ্রামীণ ভালো লাগাও। যে কাজেকর্মে পরিশ্রমী, মানবিক হৃদয় ও সংগ্রামী নারী। ফাতিমা ও সুবর্ণা নামের দুই মেয়েকে নিয়ে ‘ফাতিমা’ সিনেমার আখ্যান।

এই প্রথম দেশের দর্শকদের কাছে ভিন্নরূপে আসছেন অভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিণ। নাটক বা ওয়েবে নয় যা দেখা দেখিয়েছে বড় পর্দায়। ছয় বছর আগে ক্যারিয়ারে প্রথম নাম লিখিয়েছিলেন সিনেমা ‘ফাতিমা’য়। সেই সিনেমাটি এখন প্রেক্ষাগৃহে।

সিনেমাটি ইতোমধ্যে বেশ কিছু উৎসব থেকে সম্মাননা ও প্রশংসা লাভ করেছে। ইরানের ফজর চলচ্চিত্র উৎসবে ইস্টার্ন ভিস্তা কম্পিটিশন বিভাগে মনোনীত হওয়ার পর সিনেমাটি নিয়ে দর্শকদের আগ্রহ বাড়তে থাকে। পরে সিনেমাটি উৎসবে পুরস্কারও জিতে নেয়। শুধু তাই নয়, ৪২তম ফজর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ছবিতে অসাধারণ অভিনয়ের জন্য ক্রিস্টাল সিমোর্গ অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন ফারিণ। উৎসব ঘুরে আসা ছবিটি এবার দেশের প্রেক্ষাগৃহের জন্য প্রধান আকর্ষণ।

পরিচালক ধ্রুব হাসান ও ব্যান্ড সংগীতের পরিচিত মুখ পান্থ কানাই এবং অভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিণের প্রথম ছবি ‘ফাতিমা’। মুক্তিযুদ্ধে নির্যাতিত এক নারীর ভূমিকায় অভিনয় করতে আসা এক অভিনেত্রীর প্রেমিকের নির্যাতিত হওয়া এবং তার ফরিয়াদ না শোনার গল্পও ‘ফাতিমা’। অভিনয় জগতে আসা নারীদের জন্য এক অনন্য বাস্তবতার গল্প ‘ফাতিমা’। আট বছর আগে শুটিং শুরু হওয়া এক ছবি ‘দাহকাল’ যা শেষমেষ ‘ফাতিমা’ নামে মুক্তি পেয়েছে ২৪ মে, ২০২৪-এ!

বর্তমান প্রজন্মের দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম তাসনিয়া ফারিণ। নাটকেই তাকে বেশি দেখা যায়। তবে আজ থেকে আট বছর আগে শুরু করেছিলেন একটি সিনেমার কাজ। নাম ‘দাহকাল’। ফারিণ তখনো যশপ্রার্থী। একেবারে ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে সিনেমায় নাম লেখান। ওই সময় সবে মিডিয়ায় কাজ শুরু করেছিলেন ফারিণ। সেভাবে পরিচিতিও ছিল না। সিনেমায় ক্যারিয়ার গড়ার আগ্রহ থেকে ‘দাহকাল’-এ কাজ শুরু করেন। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে সিনেমায় তার প্রতিষ্ঠা পাওয়া সম্ভব হয়নি। কারণ, মাঝপথেই সেই সিনেমার কাজ বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু থেমে থাকেননি ফারিণ। নিজেকে এরই মধ্যে নাটকে প্রতিষ্ঠা করে ফেলেছেন। অবস্থান করছেন জনপ্রিয়তার তুঙ্গে।

ফারিণের মতে, সুন্দরভাবে শুটিং হচ্ছিল, হঠাৎ মাঝপথে শুটিং বন্ধ হয়ে গেল। লম্বা সময়ের বিরতি। তারপর নাটকে অভিনয় করে ব্যস্ত তারকা ফারিণ। প্রায় ছয় বছর পর আবার শুটিং শুরু করেন। ফারিণ বলেন, ‘ছয় বছর পর আবার শুটিং শুরু করতে হবে শুনে অবাক হয়েছিলাম। কিন্তু ধ্রুব ভাইয়ের প্রতি আমার বিশ্বাস ছিল যে তিনি যে কোনোভাবেই হোক ছবিটা শেষ করবেন। শেষ পর্যন্ত তো ছবিটা শেষ হলো খুব ভালো করে এবং দেশের বাইরে কয়েকটি চলচ্চিত্র উৎসব ঘুরে এসেছে। ইরানের ফজর উৎসবে আমিও গিয়েছিলাম, সেখানে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কারও পেলাম। এখন ছবিটি দর্শক দেখলেই আমাদের পরিশ্রম সার্থক।’

তাসনিয়া ফারিণ বলেন, ‘চরিত্রের সঙ্গে আমার মিল রয়েছে। আমি স্পষ্টবাদী, প্রতিবাদী। আমি কোনো অন্যায় সহ্য করতে পারি না। নিজেকে রক্ষা করি। আমি খুব সৎ হয়ে চলি, কেউ মিথ্যা অভিযোগ তুললে আমি সেটার প্রতিবাদ করি। ফাতিমা আসলে সেটাই। আমারও জীবনে একটা সংগ্রামের গল্প আছে। তাই সিনেমাটি প্রতিটা মেয়ের চরিত্রের সঙ্গেই সামঞ্জস্যপূর্ণ।’

আসলে পরিচালক ধ্রুব হাসান এমন একটি ছবি নির্মাণ করতে চান, যে ছবিটিতে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে সুবর্ণা নামের এক নির্যাতিত নারীর গল্প আছে। সুবর্ণার চরিত্রে অভিনয় করেন ফাতিমা নামের এক নারী। সেই চরিত্রের টানাপড়েন ফাতিমাকে পোড়াতে থাকে। ক্রমশ গল্পের ফুল পাপড়ি মেলতে শুরু করে। জানা যায়, প্রসাদ নামে ফাতিমার এক প্রেমিক আছে। সে দেখা করতে আসে। কোনো এক দিন এই প্রসাদের সঙ্গে পালিয়ে যাওয়ার কথা ছিল ফাতিমার। সে স্টেশনে অপেক্ষাও করেছিল। প্রসাদ না আসায় ফাতিমা নিজেই চলে আসে শহরে। কী কারণে প্রসাদ সেদিন আসতে পারেনি, সেটাই ছবির আসল গল্প। হয়তো বাংলাদেশের জন্য সেটা এক মনভাঙা বাস্তবতাও! বেশিরভাগ দর্শক ছবির শেষে যে বাস্তবতা অপেক্ষা করে আছে, সেটা বুঝতেই পারবেন না।

ছবিতে ফাতিমার চরিত্রে ফারিণ ছাড়াও অভিনয় করেছেন, প্রসাদের চরিত্রে ইয়াশ রোহান, ফাতিমার শুভাকাক্সক্ষী ও রুমমেটের চরিত্রে আয়শা মনিকা এবং করপোরেট এজেন্সির বস আনোয়ারের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন পান্থ কানাই। এছাড়া ফাতিমার মামার চরিত্রে মানস বন্দোপাধ্যায়, পরিচালক হাসানের ভূমিকায় ধ্রুব হাসান, প্রযোজকের চরিত্রে গাউসুল আজম শাওন, প্রসাদের মা ও বাবার চরিত্রে শিল্পী সরকার অপু ও নরেশ ভূঁইয়া এবং ছোট্ট একটা চরিত্রে অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান। ফারিণ ও ইয়াশ রোহান চমৎকার অভিনয় করেছেন। পরিচালকের চরিত্রে ধ্রুব হাসান, পুলিশ অফিসারের চরিত্রে এ কে আজাদ সেতু এবং পান্থ কানাইও ভালো অভিনয় করেছেন। ফাতিমা ছবিটি কয়েকটি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয় এবং ইরানের ৪২তম ফজর চলচ্চিত্র উৎসবে ইস্টার্ন ভিস্তা প্রতিযোগিতার বিভাগে পুরস্কার জিতে নেয়। এই ছবিতে অভিনয়ের জন্য ক্রিস্টাল সিমোর্গ পুরস্কার পেয়েছেন তাসনিয়া ফারিণ।

ছবির আরেক চমৎকার দিক এর ফটোগ্রাফি। কিছু দৃশ্য আছে চোখে লেগে থাকার মতো। তুহিন তানজিমুলকে ধন্যবাদ জানানো যেতে পারে। পরিচালনার পাশাপাশি ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন ধ্রুব হাসান এবং আদনান হাবীব। ছবির সঙ্গীত পরিচালক পাভেল আরিন। ছবিতে দুটো গান আছে। ‘চিরকুট’ ব্যান্ডের শারমিন সুলতানা সুমী গেয়েছেন একটি, অন্যতে কণ্ঠ দিয়েছেন সোমনুর মনির কোনাল।

পরিচালক ধ্রুব হাসান ২০১৬ সালে যে ছবিটি নির্মাণ শুরু করেছিলেন, সেটার নাম ছিল ‘দাহকাল’। সেটি ছিল ’৭১ পরবর্তী একটি থ্রিলার ধাঁচের গল্প। ছবির সত্তর ভাগ কাজ শেষ হওয়ার পর বিভিন্ন কারণে এর কাজ বন্ধ হয়ে যায়। এরপর পরিচালক নিজেই গল্পে পরিবর্তন আনেন এবং পরবর্তী গল্পের সঙ্গে সংযোগ তৈরির সাধ্যমত চেষ্টা করেছেন। তবে বদলে গেছে সিনেমাটির আসল নাম। ‘দাহকাল’ হয়ে গেছে ‘ফাতিমা’।

‘দাহকাল’-এ যারা ছিলেন, ‘ফাতিমা’য় তাদের অনেকেই নেই কিংবা খুব অল্প সময়ের জন্য তাদের উপস্থিতি লক্ষণীয়। ছবিতে গল্পের দুটো দিকের কোনো সমাধান নেই। মডেল হিসেবে ফারিণের দুবাই যাওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত এটা নিয়ে কোনো ইঙ্গিত ছিল না। বাড়িওয়ালা বাসায় তালা মেরে দিলে রাতের বেলা ফারিণ কোথায় গেল, সেটারও কোনো ইঙ্গিত নেই। ফাতিমা আগাগোড়া সত্যি কথা বলতে চাওয়া একজন পরিশ্রমী, মানবিক ও সংগ্রামী নারী। যার সঙ্গে সে পালাতে চেয়েছিল, সেই প্রসাদের কথা শুনতে না চাওয়া কিংবা তাকে গুরুত্বহীন দেখানো আবার একপর্যায়ে তার জন্য দুঃখ পাওয়াটাও পুরোপুরি যথাযথ নয়। তবু ফাতিমা দর্শকের হৃদয়ে গেঁথে থাকার মতো ছবি হয়েছে বলে অনেকেই মনে করেন। অভিনেতা শতাব্দী ওয়াদুদ বলেন, ‘সব মিলিয়ে ফাতিমা সিনেমা একটি নারীর গল্প।’

অভিষেক সিনেমা ‘ফাতিমা’ হলেও প্রতীক্ষা চরিত্রে ফারিণের মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম সিনেমা ‘আরও এক পৃথিবী’। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন কলকাতার নির্মাতা অতনু ঘোষ। ওটিটিতে মুক্তি পায় ‘কাছের মানুষ দূরে থুইয়া’ ও ‘বাবা সামওয়ানস ফলোয়িং মি’।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে