শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

রুনা খানের চমক

মাসুম বিলস্নাহ্‌ রাকিব
  ১৬ মে ২০২৪, ০০:০০
রুনা খানের চমক

ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী রুনা খান। দক্ষ অভিনয়শৈলীর মাধ্যমে দর্শকদের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন তিনি। শুধু টিভি পর্দায়ই নন, রুপালি পর্দায়ও দর্শকদের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে এ অভিনেত্রী। ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত অসংখ্য নাটকে অভিনয় করেছেন তিনি। বয়সের সঙ্গে সঙ্গে সমানতালে ধরে রেখেছেন নিজের রূপ, লাবণ্য। দিন যতই যাচ্ছে অভিনেত্রীর বয়সও যেন কমছে। ৪১ বছর বয়সে এসেও রূপের দু্যতি ছড়াচ্ছেন তিনি। বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অভিনেত্রীর একের পর এক ছবিতে তাক লাগাচ্ছেন ভক্তদেরও। তার অভিনীত ধারাবাহিকগুলো হচ্ছে- ইমরাউল রাফাতের 'বিষয়টি পারিবারিক', আবু হায়াত মাহমুদের 'প্রিয় প্রতিবেশী', 'বনলতা', গোলাম সোহরাব দোদুলের 'শিউলীমালা' ও মেহেদী হাসান হৃদয়ের 'ইডিয়ট বক্স', মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের 'ফ্যামিলি ক্রাইসিস' 'বড় মেয়ে' নাটকে অভিনয় করে বেশ প্রশংসিত হয়েছেন তিনি। কিংবদন্তি নির্মাতা ঋত্বিক ঘটকের 'মেঘে ঢাকা তারা' সিনেমার প্রেরণায় নির্মিত হয়েছে এই নাটক। এতে নাম-ভূমিকায় দেখা গেছে তাকে। লিমন আহমেদের রচনায় নাটকটি নির্মাণ করেছেন শাহাজাদা ইসলাম শায়খ। নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে রুনা খান গণমাধ্যমকে বলেন, 'দারুণ একটি গল্পে কাজ করেছি। সংসারের জন্য বড় সন্তান বিশেষ করে বড় মেয়েদের যে স্যাক্রিফাইস, মমতা সেই চিত্র এতে ফুটে উঠেছে। পাশাপাশি দেখা যাবে সব ত্যাগ করে সংসার আগলে রাখা বড় মেয়ের সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের নির্মম ব্যবহার ও অনুশোচনার গল্প।

রুনা খান প্রথমবারের মতো র?্যাম্পে উঠেছিলেন। ফ্যাশন ডিজাইন কাউন্সিল অব বাংলাদেশ (এফডিসিবি) আয়োজিত 'খাদি ফ্যাশন উইক'-এর শেষ আসরে নিজেকে ভিন্ন লুকে হাজির করেছিলেন এ অভিনেত্রী। এ সময় রুনার পরনে ছিল উজ্জ্বল নীল শাড়ি আর ম্যাচিং স্টাইলিশ জ্যাকেট, যা দর্শকদের রীতিমতো মুগ্ধ করে।

বর্তমানে নাটকের বাইরে সিনেমা ও ওয়েবেও ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। তবে বছরে ৪-৫টির বেশি কাজ করছেন না। খুব বেছে বেছে মনের মতো কাজগুলোই কেবল করছেন। তারই ধারাবাহিকতায় ক'দিন আগেই মুক্তিপ্রাপ্ত 'অসময়' ওয়েব ফিল্মে তাকে দেখা গেছে। এটি পরিচালনা করেছেন 'ব্যাচেলর পয়েন্ট' খ্যাত নির্মাতা কাজল আরেফিন অমি। এই প্রথম অমির কোনো কাজে দেখা গেছে রুনাকে। এ অভিনেত্রী বলেন, ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করাটাই একজন অভিনেত্রীর কাজ। সেটা করতে

পারছি বলে ভালো লেগেছে।

এর বাইরে মাসুদ পথিক পরিচালিত 'বক' সিনেমাতেও অন্য এক রুনা খানকে আবিষ্কার করা যাবে। এ সিনেমার অন্যতম চরিত্র সবিতা রূপে দেখা যাবে তাকে। 'বক' সিনেমার মূল দর্শন হচ্ছে প্রকৃতি ও জীবনের গল্প। একটি পরিবারের মধ্য দিয়ে প্রকৃতি ও জীবনের দর্শনের গল্প বলার চেষ্টা করছেন পরিচালক। এতে অভিনয় প্রসঙ্গে রুনা খান বলেন, 'বক সিনেমার মূল দর্শন হচ্ছে প্রকৃতি ও জীবনের গল্প। একটি পরিবারের মধ্য দিয়ে প্রকৃতি ও জীবনের দর্শনের গল্প বলার চেষ্টা করছেন পরিচালক। পাশাপাশি তার জীবন দর্শনের চিত্রও উঠে এসেছে। সব মিলিয়েই আসলে বক আমাদের প্রকৃতি ও জীবনের গল্পই বলার চেষ্টা করবে। জীবনে প্রথম আমি মেঘনার পাড়ে লালপুর চানপুর চরে শুটিং করছি। পুরো ইউনিটের অনেক কষ্ট হচ্ছে কখনো রোদে, কখনো প্রবল বৃষ্টিতে শুটিং করতে। মাসুদ পথিকের ডেডিকেশনে আমি মুগ্ধ। যে কারণে বক সিনেমাটি নিয়েও ভীষণ আশাবাদী হয়ে উঠেছি। আমি আমার চরিত্রে সাধ্যমতো চেষ্টা করেছি আমার চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলতে।' এদিকে এ ছবির বাইরে কৌশিক শংকর দাশের একটি সিনেমাতেও তিনি অভিনয় করছেন।

এদিকে রুনা খান ওজন কমিয়ে ফিট হয়ে দুই বছর আগে নতুন রূপে ফেরেন। বিষয়টি নিয়ে নানা সময়ে কথা বলতে দেখা গেছে তাকে। সম্প্রতি এ বিষয়টি নিয়ে তিনি বলেন, সত্যি বলতে শোবিজে কাজ করি বলে ফিট হয়েছি তা নয়। কাজের জন্য ফিট তো অনেকেই হয়। কিন্তু আমি ওজন কমিয়েছি কেবল নিজের জন্য। কারণ আমি মা হওয়ার পর ১০ বছর চেষ্টা করেছি অনেকভাবে নিজের ওজন কমানোর। সেটা পারিনি। কিন্তু দুই বছর আগে সেটা আমি পেরেছি। আমার বেশ কিছু সমস্যাও হচ্ছিল ওজনের কারণে। সুতরাং, শোবিজের জন্য নয়, নিজের জন্যই ফিট হতে হয়েছে আমাকে।

কথায় কথায় রুনা খান বললেন, 'চাইলেই তো আর প্রিয়াঙ্কা, দীপিকা ও ক্যাটরিনার মতো সবকিছু সম্ভব নয়। কারণ, ওরা তো আমাদের চেয়ে হাজার গুণ পেশাদার। তাদের কাজের ধরনও আমাদের চেয়ে অনেকটা এগিয়ে। তারপর লুকওয়াইজ কাছাকাছি কিছু একটা করার চেষ্টা করেছি। আন্তর্জাতিক স্ট্যান্ডার্ডে যতটা ধরা যায়।'

রুনা খান বললেন, 'প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বয়স ৪১, ক্যাটরিনার ৪০, দীপিকারও ৪০ ছুঁই ছুঁই। আমাদের দেশের বাঁধন ও রুনা খানের বয়স ৪০ পার হয়েছে। ওদেরকে দেখতে যেমন দেখায়, অভিনয়ের ক্ষেত্রে বলব না, লুকের ক্ষেত্রে। তারপরও তো পুরোপুরি তা সম্ভব নয়। তারপরও এটা ভেবেছি, ওদের সেই ফরম্যাটে কাজ করলে, ওদের চেয়ে ভালো না লাগলেও খারাপ লাগবে না।'

প্রসঙ্গত, টেলিভিশন নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে কর্মজীবন শুরু করেন রুনা খান। তৌকীর আহমেদ পরিচালিত 'হালদা' চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও বাচসাস পুরস্কার অর্জন করেন তিনি। রুনা খান অভিনীত অন্যান্য উলেস্নখযোগ্য সিনেমার মধ্যে রয়েছে সাজেদুল আউয়ালের 'ছিটকিনি' বদরুল আনাম সৌদের 'গহীন বালুচর', মৃত্তিকা গুণের 'কালো মেঘের ভেলা'।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে