রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

বিএনপি নিরপেক্ষ নির্বাচনকে ভয় পায় : অ্যাড. কামরুল ইসলাম

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি
  ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২০:২৮

সাবেক খাদ্য মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, ধর্ম যার যার রাষ্ট্র সবার। স্বৈরাচার জিয়া ও এরশাদ ধর্ম নিরপেক্ষ বাংলাদেশের সংবিধানে রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম বসিয়ে দেশের সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে চেষ্টা করেছে। অথচ ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকল ধর্মের মানুষ দেশটাকে স্বাধীন করেছে। তারা যখনই ক্ষমতায় এসেছে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করেছে। বিএনপি-জামাত দেশে আবার অরাজকতা সৃষ্টির পায়তারা করছে।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত শারদীয় দূর্গাৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি থেকে দেশের মানুষকে বাঁচাতে সে সময় বাংলাদেশ  আওয়ামী লীগ তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে সমর্থন করেছিল। দেশের মানুষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের রূপ দেখেছে। তারা তিন মাসের জন্য ক্ষমতায় এসে দুই বছর দেশের মানুষ কে কষ্ট দিয়েছে। তারা শুধু আওয়ামী লীগ কে নয় সমস্ত পেশার মানুষকে নির্যাতন করেছিল।

বিএনপির লোকজনও এর বাহিরে ছিলো না। এমনকি তারা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদেরও কারাগারে পাঠিয়েছিল। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কফিনে বিএনপিই শেষ পেরেক ঠুকে দিয়েছিল। তাই তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রশ্নই আসেনা। তিনি আরও বলেন, বিএনপি নিরপেক্ষ নির্বাচনকে ভয় পায়, দশটি হোন্ডা ২০ গুন্ডার নির্বাচন দেশের মানুষ দেখতে চায়না।

তিনি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আমাদের সকল ধর্মের প্রতি সমান সম্মান রয়েছে। আমাদের ধর্মেও অন্য ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা রয়েছে। আপনারা সিধুর-টিপ নিয়ে ভোট কেন্দ্রে যাবেন কোন ভয় নেই। আমরা সকল ধর্মের মানুষ মিলে মিশে দেশটাকে অনেক দূরে নিয়ে যাবো।

তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে, নিজেদের মধ্যে ভেদাভেদ ভুলে সরকারের উন্নয়নগুলো সাধারণ মানুষের মাঝে তুলে ধরবো। সামনের নির্বাচনেও দেশের মানুষ আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় বসাবে।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউসুফ আলী চৌধুরী সেলিমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন বিপ্লবের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি শফিউল আজম বারকু, কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামুনুর রশীদ।

এ সময আরও উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ও শাক্তা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, কালিন্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল হক, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মোস্তান, সিনিয়র সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

পরে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় বসবাসরত হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মাঝে শাড়ি কাপড় ও নগদ অর্থ তুলে দেন প্রধান অতিথি। 

 যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে