বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১
তিন প্রান্তিক

আয় বাড়লেও লোকসানে পেনিনসুলা চিটাগং

যাযাদি ডেস্ক
  ০৮ মে ২০২৩, ১৪:৩০
আপডেট  : ০৮ মে ২০২৩, ১৪:৩২
আয় বাড়লেও লোকসানে পেনিনসুলা চিটাগং

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ভ্রমণ ও অবকাশ খাতের কোম্পানি দ্য পেনিনসুলা চিটাগং লিমিটেডের আয় চলতি ২০২২-২৩ হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে (জুলাই-মার্চ) আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩০ শতাংশ বেড়েছে। তবে আয় বাড়লেও এ সময়ে কোম্পানিটিকে ২ কোটি ৪৩ লাখ টাকা কর-পরবর্তী নিট লোকসান গুনতে হয়েছে। মূলত উৎপাদন ও আমদানি ব্যয় বাড়ার পাশাপাশি অপরিচালন খাতের আয় কমে যাওয়ার কারণে লোকসান হয়েছে বলে জানিয়েছেন কোম্পানিটির কর্মকর্তারা।

প্রতিবেদন অনুসারে, চলতি হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে পেনিনসুলা চিটাগংয়ের আয় হয়েছে ২৯ কোটি ১৭ লাখ টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ২২ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির কর-পরবর্তী নিট লোকসান হয়েছে ২ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। আগের হিসাব বছরের একই সময়ে কর-পরবর্তী নিট মুনাফা ছিল ৮ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। চলতি হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ২০ পয়সা। আগের বছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় ছিল ৭২ পয়সা। গত ৩১ মার্চ শেষে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ২৯ টাকা ২ পয়সায়।

কোম্পানিটির কর্মকর্তারা বলছেন, বৈশ্বিক সরবরাহকারীদের আমদানি মূল্য বৃদ্ধির কারণে চলতি হিসাব বছরের প্রথম নয় মাসে উৎপাদন ব্যয় বেড়েছে ৫৩ দশমিক ১৮ শতাংশ। বিক্রয় ও বিপণন খরচ বেড়েছে ১৬ শতাংশ। অন্যদিকে এফডিআরের সুদহার কমে যাওয়ার কারণে অপরিচালন আয় কমেছে ১৮২ দশমিক ৪৯ শতাংশ। এসব কারণেই কোম্পানিকে এ সময়ে লোকসান গুনতে হয়েছে বলে জানান তারা।

সর্বশেষ ৩০ জুন সমাপ্ত ২০২১-২২ হিসাব বছরের জন্য ২ দশমিক ৫০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশের সুপারিশ করেছিল দ্য পেনিনসুলা চিটাগংয়ের পর্ষদ। এরই মধ্যে এ লভ্যাংশ অনুমোদন করেছে শেয়ারহোল্ডাররা। আলোচ্য হিসাব বছরে দ্য পেনিনসুলা চিটাগংয়ের ইপিএস হয়েছে ১৯ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৪১ পয়সা। সে হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ২২ পয়সা বা ৫৩ দশমিক ৬৬ শতাংশ। গত বছরের ৩০ জুন শেষে কোম্পানিটির এনএভিপিএস দাঁড়ায় ২৯ টাকা ৪৭ পয়সায়, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৩০ টাকা ২৮ পয়সা।

২০১৪ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত পেনিনসুলা চিটাগংয়ের অনুমোদিত মূলধন ৩০০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ১১৮ কোটি ৬৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা। রিজার্ভে রয়েছে ১২৫ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট শেয়ারসংখ্যা ১১ কোটি ৮৬ লাখ ৬৬ হাজার ৮০০। এর মধ্যে ৪৯ দশমিক ৯২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে। এছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১২, বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কাছে দশমিক ১৫ ও সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের কাছে বাকি ৩৭ দশমিক ৯৩ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

ঢাকা স্টক এক্সেচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল পেনিনসুলা চিটাগংয়ের শেয়ারের সর্বশেষ ও সমাপনী দর ছিল ২৭ টাকা ৪০ পয়সা। গত এক বছরে শেয়ারটির সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ দর ছিল যথাক্রমে ২৬ টাকা ৯০ ও ৪৩ টাকা ৫০ পয়সা।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে