বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০
walton
বিএসইসির কমিশন সভা

শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের ৫০০ কোটি টাকার বন্ড অনুমোদন

যাযাদি ডেস্ক
  ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:২৩

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক পিএলসির ৫০০ কোটি টাকার সাব-অর্ডিনেটেড বন্ডের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। গতকাল বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৮৯০তম কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এছাড়া সভায় ওয়েব কোস্ট পিএলসির মূলধন উত্তোলনের প্রস্তাবও অনুমোদন করা হয়।

কমিশন সভা শেষে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিএসইসি শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের ৫০০ কোটি টাকার সাব-অর্ডিনেটেড বন্ড ইস্যুর প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। মুদারাবা সাব-অর্ডিনেটেড বন্ডটির কুপন রেট ৬-৯ শতাংশের মধ্যে ওঠানামা করবে। রূপান্তর অযোগ্য বন্ডটি প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ও উচ্চ সম্পদশালী একক বিনিয়োগকারীদের কাছে ইস্যু করা হবে। বন্ডের প্রতি ইউনিটের অভিহিত মূল্য ১০ লাখ টাকা। বন্ড ইস্যুর মাধ্যমে অর্থ উত্তোলন করে শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের টায়ার-২ মূলধন ভিত্তি শক্তিশালী করা হবে। বন্ডের ট্রাস্টি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে ডিবিএইচ ফাইন্যান্স পিএলসি এবং অ্যারেঞ্জার হিসেবে কাজ করছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক। বন্ডটি স্টক এক্সচেঞ্জের অল্টারনেটিভ ট্রেডিং বোর্ডে তালিকাভুক্ত হবে।

গত বছরের মে মাসে শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের পর্ষদ সভায় ৫০০ কোটি টাকার ‘এসজেআইবিএল থার্ড মুদারাবা সাব-অর্ডিনেটেড বন্ড’ নামে সাত বছর মেয়াদি বন্ডটি ইস্যুর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। সে সময় ব্যাংকটি জানিয়েছিল, সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন সাপেক্ষে এ বন্ড ইস্যু করা হবে।

সর্বশেষ সমাপ্ত ২০২২ হিসাব বছরে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য মোট ১৫ শতাংশ লভ্যাংশের সুপারিশ করেছে শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের পর্ষদ। এর মধ্যে ১২ শতাংশ নগদ ও ৩ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ। আলোচ্য হিসাব বছরে ব্যাংকের সমন্বিত কর-পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে ৩৫৭ কোটি ৬৬ লাখ টাকা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ২৫৯ কোটি ১৫ লাখ টাকা। সে হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে ব্যাংকটির সমন্বিত নিট মুনাফা বেড়েছে ৩৮ শতাংশ। আলোচ্য হিসাব বছরে ব্যাংকটির সমন্বিত শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ৩১ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ২ টাকা ৪০ পয়সা। গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর শেষে ব্যাংকটির সমন্বিত শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়ায় ২০ টাকা ৩২ পয়সায়, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ১৮ টাকা ৩৫ পয়সা।

এদিকে গতকালের কমিশন সভায় এসএমই খাতে দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে ওয়েব কোস্ট পিএলসির কোয়ালিফায়েড ইনভেস্টর অফার (কিউআইও) অনুমোদন করেছে বিএসইসি।

এর মাধ্যমে কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে ৫ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। কিউআইওর মাধ্যমে কোম্পানিটি প্রতিটি ১০ টাকা মূল্যের ৫০ লাখ শেয়ার যোগ্য বিনিয়োগকারীদের (ইআই) কাছে ইস্যু করবে। উত্তোলিত অর্থে কোম্পানিটি যন্ত্রপাতি ক্রয়, কার্যকরী মূলধন, ঋণ পরিশোধ ও ইস্যু ব্যবস্থাপনা খাতে ব্যয় করবে। ২০২২-২৩ হিসাব বছরের আর্থিক বিবরণী অনুসারে, ওয়েব কোস্ট পিএলসির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৫০ পয়সা এবং পুনর্মূল্যায়নসহ এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৫ টাকা ৯২ পয়সায়, পুনর্মূল্যায়ন ছাড়া যা ১৩ টাকা। এসএমই প্লাটফর্মে লেনদেনের তারিখ থেকে পরবর্তী তিন বছর কোম্পানিটি কোনো বোনাস শেয়ার ইস্যু করতে পারবে না। কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে সোনালী ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে