বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

ত্রাণকর্মীদের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক স্থান গাজা

গাজায় সবচেয়ে বেশি ত্রাণকাজ পরিচালনা করে জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএসআরডবিস্নউএ
যাযাদি ডেস্ক
  ০৪ এপ্রিল ২০২৪, ০০:০০
ইসরায়েলের বিমান হামলায় সবশেষ এনজিও ওয়াল্ড সেন্ট্রাল কিচেন (ডবিস্নউসিকে) এর সাত কর্মী নিহত হয়েছেন

বিশ্বে মানবিক ত্রাণকর্মীদের জন্য এ মুহূর্তে সবচেয়ে বিপজ্জনক স্থান হয়ে উঠেছে গাজা। ইসরাইলের বিমান হামলায় সবশেষ এনজিও ওয়ার্ল্ড সেন্ট্রাল কিচেনের (ডবিস্নউসিকে) সাত কর্মী নিহত হয়েছেন।

ইসরাইল-হামাস যুদ্ধের ছয় মাসে ত্রাণকর্মীদের এ মৃতু্যই প্রথম নয়। এর আগেও যুদ্ধের শুরু থেকে অন্তত ১৯৬ জন ত্রাণকর্মী নিহত হয়েছেন বলে পরিসংখ্যান দিয়েছে এইড ওয়ার্কার সিকিউরিটি ডাটাবেজ (এডবিস্নউএসডি)।

মানবিক ত্রাণকর্মীদের বিরুদ্ধে সহিংসতার বড় বড় সব ঘটনার রেকর্ড রাখে এডবিস্নউএসডি। তাদের তথ্যমতে, গত বছর ১৬১ জন ত্রাণকর্মী নিহত হয়েছিল। ত্রাণকর্মীদের জন্য এযাবৎকালের সবচেয়ে প্রাণঘাতী বছর ছিল সেটি। গাজায় সবচেয়ে বেশি ত্রাণকাজ পরিচালনা করে জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএসআরডবিস্নউএ। যুদ্ধের মধ্যে এই সংস্থার কর্মীরাই সবচেয়ে বেশি নিহত হয়েছে।

সোমবার গাজার মধ্যাংশের দাইর আল বালাহ এলাকায় ইসরাইলের বিমান হামলায় ডবিস্নউসিকে'র নিহত কর্মীদের মধ্যে পোল্যান্ড, ব্রিটেন ও অস্ট্রেলিয়ার তিন এবং যুক্তরাষ্ট্র-কানাডার এক দ্বৈত নাগরিকও রয়েছেন।

বিবিসি জানায়, এই নিহতের ঘটনার পর নরওয়ের শরণার্থী কাউন্সিল এবং জাতিসংঘের সাবেক মানবিক ত্রাণবিষয়ক প্রধান জেন এগল্যান্ড বলেছেন, 'আর কোথাও এত ত্রাণকর্মী মারা যায়নি। অবিলম্বে যুদ্ধবিরতি হতে হবে। যথেষ্ট হয়েছে।'

সোমবারের হামলার ঘটনার পর ত্রাণকাজ করা গোষ্ঠীগুলোও উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে, তারা যে কোনও সময়ের চেয়ে এখন তাদের কর্মীদের নিরাপত্তা নিয়ে বেশি চিন্তিত।

ইউএনআরডবিস্নউএ সোমবার এক প্রতিবেদনে বলেছে, তাদের ১৭৩ জন স্টাফ সদস্য কাজে নিয়োজিত থাকার সময় নিহত হয়েছে। আরও ৩৫৩টি হামলার ঘটনায় ইউএনআরডবিস্নউএ'র বিভিন্ন ভবন এবং এর ভেতরের মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তাছাড়া আরও ৫২টি ঘটনায় ইউএনআরডবিস্নউএ'র ভবন সামরিক কাজে ব্যবহার হয়েছে কিংবা সেগুলোতে হস্তক্ষেপ হয়েছে।

এদিকে ইসরাইলি বিমান হামলায় সাত কর্মী নিহত হওয়ার পর গাজায় ত্রাণকাজ স্থগিত করছে দাতব্য সংস্থা ওয়ার্ল্ড সেন্ট্রাল কিচেন (ডবিস্নউসিকে)। শিগগিরই তাদের কাজের ভবিষ্যৎ নিয়ে তারা সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানিয়েছে।

সোমবার গাজার মধ্যাংশের দাইর আল বালাহ এলাকায় ইসরাইলের হামলায় ডবিস্নউসিকে'র কর্মীরা নিহত হয়।

সংস্থাটি বলছে, দাইর আল বালার একটি গুদাম থেকে চলে যাওয়ার সময় ত্রাণবাহী গাড়িবহরে হামলায় কর্মীরা নিহত হয়েছে। তারা সমুদ্রপথে গাজায় নেওয়া ১০০ টনের বেশি খাবার ওই গুদামে রেখে আসতে গিয়েছিল। ত্রাণবাহী গাড়িবহরে ছিল তিনটি গাড়ি। এর মধ্যে দুটি ছিল অস্ত্রসজ্জিত। তিনটি গাড়িতেই হামলা হয়েছে।

ডবিস্নউসিকে বলছে, ত্রাণবাহী এই গাড়িবহর যাতায়াতের বিষয়ে ইসরাইলের প্রতিরক্ষা বাহিনী আইডিএফ-কে আগে থেকেই জানিয়ে রেখেছিল তারা। ফিলিস্তিনের এক চিকিৎসাকর্মী বিবিসি-কে বলেছেন, ত্রাণকর্মীরা ডবিস্নউসিকে'র লোগো লাগানো বুলেট প্রম্নফ জ্যাকেট পরেছিল। ফিলিস্তিনের রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি বলেছে, তারা হামলার পর কয়েক ঘণ্টার চ্যালেঞ্জিং এক অভিযানে ঘটনাস্থল থেকে সাতটি মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। গাজায় ডবিস্নউসিকে'র কার্যক্রম গুরুত্বপূর্ণ। গাজায় অতীব জরুরি ত্রাণ সরবরাহের ক্ষেত্রে প্রধান সংস্থাগুলোর মধ্যে এটি অন্যতম। মার্চে প্রথম সমুদ্রপথে গাজায় ১০০ টনেরও বেশি ত্রাণ সরবরাহ করে সংস্থাটি খবরের শিরোনাম হয়েছিল।

সম্প্রতি এক বিবৃতিতে ডবিস্নউসিকে বলেছিল, তারা অক্টোবর থেকে গাজায় ৪২ মিলিয়ন টনেরও বেশি খাবার সরবরাহ করেছে এবং আরও ১০ লাখ টন খাবার সরবরাহ করতে প্রস্তুত। ডবিস্নউসিকে'র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এক বিবৃতিতে বলেছেন, 'মানুষের মুখে খাবার তুলে দিতে ভালোবাসে এমন চমৎকার কয়েকটি জীবন হারিয়েছে ওয়াল্ড সেন্ট্রাল কিচেন এবং বিশ্ব।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে