বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১
সি টি নি র্বা চ ন স ং বা দ. . .

ইভিএমে নির্বাচনের ফল পরিবর্তনের সুযোগ নেই

খুলনায় প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে সিইসি
খুলনা অফিস
  ৩১ মে ২০২৩, ০০:০০

ইভিএমে নির্বাচনের ফল পরিবর্তনের নূ্যনতম কোনো সুযোগ নেই মন্তব্য করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে লেভেল পেস্নয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করা হবে। নির্বাচনের দিন ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরায় ভোটকেন্দ্র ও ভোটকক্ষ মনিটরিং করা হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে খুলনা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, 'কোনো ভোটারকে বাধা প্রদান এবং তার অধিকার খর্ব করা যাবে না। নির্বাচনে সবার সমান সুযোগ থাকবে। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে। কেউ নির্বাচিত হবেন, কেউ পরাজিত হবেন, পরাজয় মেনে নিতে হবে।'

গাজীপুরে সুন্দর, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে উলেস্নখ করে সিইসি বলেন, 'আমাদের দেশে প্রত্যাশিত মাত্রায় নির্বাচনী সংস্কৃতি গড়ে ওঠেনি। তবে নির্বাচনী সংস্কৃতির উন্নয়ন হয়েছে। গাজীপুরে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী পরাজয় মেনে নিয়েছেন, অভিনন্দন জানিয়েছেন। এটা ভালো সংস্কৃতি।'

নির্বাচনের দিন প্রতিটি বুথে পোলিং এজেন্ট নিয়োগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রার্থীদের উদ্দেশে সিইসি বলেন, 'আচরণবিধি মেনে চলুন। আচরণবিধি ভঙ্গ করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনারা যেহেতু নির্বাচন করছেন, অর্থ ব্যয় করছেন, কষ্ট করছেন তাই সব বুথে আপনাদের পোলিং এজেন্ট দেবেন। পোলিং এজেন্ট নিরপেক্ষ ভোটগ্রহণে ভূমিকা রাখে। ভোট প্রদান বুথে দ্বিতীয় ব্যক্তি কোনোভাবেই থাকতে পারবেন না। সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে কেন্দ্রীয়ভাবে নির্বাচন কমিশন এটি পর্যবেক্ষণ করবে। আমাদের দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে ভোটারদের ভোট প্রয়োগের সুযোগ করে দেওয়া।'

গাইবান্ধা সংসদীয় আসনের উপনির্বাচন প্রসঙ্গ তুলে ধরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরও বলেন, 'গাইবান্ধা নির্বাচন ব্যাপকভাবে অনিয়ম দেখে বন্ধ করে দিয়েছি। এ ঘটনার পজেটিভ ইমপ্যাক্ট পড়েছে। অন্য জায়াগার সবাই সতর্ক হয়ে গেছেন। আমাদের নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন রাষ্ট্র, ইউএনডিপিসহ আন্তর্জাতিক ও দেশীয় বিভিন্ন সংস্থা আগ্রহী রয়েছে। সরকারও সাধুবাদ জানিয়েছে। সরকারও প্রতিশ্রম্নতিবদ্ধ আগামী নির্বাচন সুন্দর, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে।'

খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মো. জিলস্নুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আহসান হাবিব খান (অব.) বলেন, 'নির্বাচন কমিশনের পক্ষপাতিত্ব করার মানসিকতা নেই। ভবিষ্যতেও থাকবে না।'

এদিকে মতবিনিময় সভার সভাপতি ও খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মো. জিলস্নুর রহমান চৌধুরী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, 'কেউ বাড়াবাড়ি করবেন না। নির্বাচনের পরিবেশ অশান্ত করবেন না। তাহলে নিজেই ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে।

রিটার্নিং কর্মকর্তার উদ্দেশে খুলনা বিভাগীয় কমিশনার বলেন, 'কয়েকজন প্রার্থীর অভিযোগ শুনলাম। আপনি অ্যাকশনে যান না কেন? প্রয়োজনে প্রার্থিতা বাতিল করে দেন।'

মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন নির্বাচন কমিশন সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম, খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. মাসুদুর রহমান ভূঁঞা, খুলনা রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি মো. মইনুল হক, জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন, রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিন ও খুলনার পুলিশ সুপার মো. মাহবুব হাসান।

সভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক, জাতীয় পার্টির শফিকুল ইসলাম মধু, ইসলামী আন্দোলনের মো. আব্দুল আউয়াল, জাকের পার্টির এসএম সাব্বির হোসেন ও স্বতন্ত্রপ্রার্থী এসএম শফিকুর রহমানসহ কয়েকজন কাউন্সিলর প্রার্থী বক্তব্য রাখেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বিকালে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে