• সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭

ভাঙ্গুড়ায় বাউৎ উৎসবে মেতেছে শৌখিন মাছ শিকারিরা

ভাঙ্গুড়ায় বাউৎ উৎসবে মেতেছে শৌখিন মাছ শিকারিরা

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় বাউৎ উৎসবে (দলবেঁধে মাছ ধরা) মেতে উঠেছেন শৌখিন মাছ শিকারিরা। মঙ্গলবার এই মাছ ধরার উৎসব পালন করা হয়েছে বিল রুহুলের ভাঙ্গুড়া ও চাটমোহর উপজেলা কিছু অংশে। ভোর থেকে বিভিন্ন জেলা থেকে নসিমন, করিমন, ভটভটি, আটোরিকশা ও মোটরসাইকেলে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে দলবেঁধে মাছ ধরার বিভিন্ন উপকরণ নিয়ে শিকারিরা হাজির হয়। এ বিলে শৌখিন মাছ শিকারিরা প্রতিবছর এই উৎসব পালন করে থাকে।

জানা গেছে, পাবনার চলনবিল বিধৌত এলাকা চাটমোহর ও ভাঙ্গুড়া উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে রয়েছে বেশকিছু বিল। তার মধ্যে বিল রুহুল অন্যতম। রুহুল বিলের পশ্চিমে চাটমোহর উপজেলার পাশ্বডাঙ্গা টেংগজানি, বোয়ালিয়া, উত্তরে পাটুলিপাড়া রঙ্গালিয়া দক্ষিণে লাউত কান্দি মধুরগাতি, আলম নগর, পূর্বে হাটগ্রাম, কালিকাদহ অবস্থিত। এরই মাঝখানে ঐতিহ্যবাহী রুহুল বিল। বন্যার পানি নেমে গেলে বিল এলাকায় প্রচুর পরিমাণে দেশীয় প্রজাতির মাছ- বোয়াল, শোল, রুই, কাতলা ও গজার নিচু জলাভূমিতে বিরাজ করে। আর বিলপারের শৌখন মাছ শিকারিরা অবসরে বা কাজের ফাঁকে একে-অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ করে দলবেঁধে পলো, জালি (ছোট জাল), বাদাই জাল, ঠেলা জাল, ধর্মখরা ইত্যাদি নিয়ে মাছ ধরতে আসে। তারা আগে থেকেই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে এ বিলে মাছ শিকারে আসে। গ্রামাঞ্চলের লোকেরা এই উৎসবকে বাউৎ উৎসব বলে থাকে।সরেজমিন মঙ্গলবার সকালে উপজেলার বিল রুহুলে গিয়ে দেখা যায়, ভোর বেলা থেকে পাবনা, নাটোর, সিরাজগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে তীব্র শীত উপেক্ষা করে দলবেঁধে শত শত শৌখিন মাছ শিকারি রুহুল বিলের পাড়ে এসে হাজির হয়। তারপর যার যার মতো প্রচন্ড শীত উপেক্ষা করে মাছধরার উপকরণ নিয়ে পানিতে নেমে পড়ে। এভাবে বেলা বাড়ার পরপরই মাছ ধরার পালা সাঙ্গ করে আবার নিজ নিজ গন্তব্যে ফিরে যায়। পাবনা জেলার সদর উপজেলার মজিদপুর এলাকার রহন বলেন, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে আমরা একে-অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ করে মাছ শিকার করতে আসি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে