শপথ নিলেন কুসিক মেয়র ও কাউন্সিলররা

'অন্য দল যারা করেন, তাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের দলীয় কোনো প্রতিনিধি কোনো প্রকার বিভেদে যাবেন না'
শপথ নিলেন কুসিক মেয়র ও কাউন্সিলররা

শপথ নিয়েছেন কুমিলস্না সিটি করপোরেশনের (কুসিক) নবনির্বাচিত মেয়র আরফানুল হক রিফাত। মঙ্গলবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মেয়রকে শপথবাক্য পাঠ করান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন তিনি।

এরপর কুমিলস্না সিটি করপোরেশনের ২৭ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ৯ জন সংরক্ষিত কাউন্সিলরকে শপথবাক্য পাঠ করান স্থানীয় সরকার, পলস্নী উন্নয়ন ও সমবায়বিষয়ক মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার কল্যাণে আওয়ামী লীগ সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আমরা অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাস করি। সব ধর্মের স্বাধীনতা বাংলাদেশে থাকবে। কেউ কারও ধর্মীয় অনুভূতির ওপর আঘাত করবে না। কেউ কাউকে ধর্ম পালনে বাধা দেবে না। শেখ হাসিনা বলেন, 'কুমিলস্না সিটিতে নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে। স্থানীয় সরকার নির্বাচনের ইতিহাসে এটা অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ নির্বাচন। এমন শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অতীতে আর দেখা যায়নি। জনগণের ভোটের অধিকার যেন নিশ্চিত থাকে সে অনুযায়ী আমরা কাজ করে যাচ্ছি।'

শেখ হাসিনা বলেন, 'প্রতিটি মানুষ ভোটের অধিকার, ভাতের অধিকার, গণতান্ত্রিক অধিকার ভোগ করবে। সেটাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য। গণতান্ত্রিক অধিকারের মাধ্যমেই মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন হবে।'

এ সময় জনপ্রতিনিধিদের দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করে যাওয়ার নির্দেশনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় দেশবাসীকে সচেতন থাকারও আহ্বান জানান।

একই অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, জনপ্রতিনিধি যে দলেরই হোক না কেন, ভালো কাজের প্রশংসা তার করতে হবে। ভালো কাজের স্বীকৃতি না দেওয়ার কোনো কারণ নাই। কোনো জনপ্রতিনিধি যে দল থেকেই নির্বাচিত হোন না কেন, আপনারা দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য ও স্বাধীনতা রক্ষার জন্য কাজ করে যাবেন।

মন্ত্রী বলেন, 'অন্য দল যারা করেন, তাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের দলীয় কোনো প্রতিনিধি কোনো প্রকার বিভেদে যাবেন না। যাওয়ার কোনো কারণও নেই।'

তাজুল ইসলাম বলেন, 'মানুষের জন্য নেতা হয়েছি। মানুষের যত সমস্যা আছে, সেসব নিয়ে ভাবতে হবে। তা সমাধান করতে হবে। আমি মন্ত্রী আছি, আপনি কাউন্সিলর। কেউই তো সারাজীবন থাকব না। থাকবে আমাদের অর্জন। আপনি একজন কাউন্সিলর, জনপ্রতিনিধি। অনেক ভোটার আপনাকে ভোট দিয়েছে। কয়েকজন কাউন্সিলর মিলেই একটা সমাজকে পরিবর্তন করতে পারে।'

মন্ত্রী আরও বলেন, 'কুমিলস্না আমার বাড়ি। কুমিলস্নার প্রতি আমার আলাদা সম্মান আছে। আমি একজন বিবেকবান মানুষ হিসেবে চাই, বাংলাদেশের মাটিতে কুমিলস্না শহর ঢাকার মতোই সমানভাবে অধিকার পাক। কুমিলস্নার জন্য এ পর্যন্ত বৃহৎ কোনো উন্নয়ন বাজেট দেওয়া হয়নি।'

গত ২৩ জুন কুমিলস্না সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে বিজয়ী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আরফানুল হক রিফাতকে নির্বাচিত ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করা হয়। গেজেটে মেয়র আরফানুল হক রিফাত ছাড়াও ৯ জন সংরক্ষিত কাউন্সিলর এবং ২৭ জন সাধারণ কাউন্সিলরের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়।

গত ১৫ জুন অনুষ্ঠিত নির্বাচনে মেয়র পদে জয়ী হন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত। ১০৫ কেন্দ্রে তিনি ৫০ হাজার ৩১০ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী টেবিল ঘড়ি প্রতীকের মনিরুল হক সাক্কু পেয়েছেন ৪৯ হাজার ৯৬৭ ভোট।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে