বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

হকিতেও নেই শহীদ স্মৃতি!

ক্রীড়া প্রতিবেদক
  ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০০:০০

স্বাধীনতা ও বিজয় দিবস উপলক্ষে অনেক ফেডারেশন প্রীতি ম্যাচ বা টুর্নামেন্ট আয়োজন করে। আন্তর্জাতিক ভাষা দিবসে অবশ্য ক্রীড়াঙ্গনে তেমন কর্মসূচি দেখা যায় না। হকি ফেডারেশন আগে ফেব্রম্নয়ারি মাসে টুর্নামেন্ট আয়োজন করত। যার নাম শহীদ স্মৃতি হকি টুর্নামেন্ট। তবে এখন আর নিয়মিত টার্ফে নেই এই টুর্নামেন্টটি।  

সাবেক হকি খেলোয়াড় ও বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সিনিয়র সদস্য মো. ইউসুফ আলী বলেন, 'স্বাধীনতার পর থেকে হকি ফেডারেশন ভাষাশহীদদের স্মরণে শহীদ স্মৃতি হকি টুর্নামেন্ট আয়োজন শুরু করে। প্রথমদিকে নিয়মিত ছিল, এরপর মাঝে বিরতি ছিল, এরপর আবার অনিয়মিতভাবে হয়েছে।'

১৯৭৩ সাল থেকে ৮১ পর্যন্ত নিয়মিত ছিল এই টুর্নামেন্ট। এরপর নানা বিরতির মধ্য দিয়ে গেছে টুর্নামেন্টটি। সর্বশেষ অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০২০ সালে। চলতি বছর এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল হকি ফেডারেশনের লিগ কমিটি। ফেব্রম্নয়ারি মাসেই কয়েকটি ক্লাবের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে শহীদ স্মৃতি টুর্নামেন্টের পরিবর্তে আজ থেকে ক্লাব কাপ দিয়ে শুরু হচ্ছে হকির নতুন মৌসুম। 

জাতীয় দলের সাবেক তারকা খেলোয়াড় রফিকুল ইসলাম কামাল বলেন, 'আমাদের ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে এই টুর্নামেন্ট খেলেছি। বেশ আকর্ষণীয় টুর্নামেন্ট ছিল। হঠাৎ এটি অনিয়মিত ও জৌলুসহীন হয়ে পড়ে। এবার আশা করেছিলাম হবে, শেষ পর্যন্ত হচ্ছে না।' সত্তর-আশির দশকে শহীদ স্মৃতি টুর্নামেন্টে আবাহনী-মোহামেডান চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। পরবর্তী সময়ে এই টুর্নামেন্ট সার্ভিসেস দল নির্ভর হয়। মাঝেমধ্যে স্কুল হকিও হয়েছে শহীদ স্মৃতি নামে। 

হকি ফেডারেশন ছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে অন্য কোনো ফেডারেশনকে ভাষা দিবস উপলক্ষে কোনো আয়োজন করতে দেখা যায়নি। স্বাধীনতা-বিজয় দিবস উপলক্ষে ফেডারেশনগুলোর পাশাপাশি জেলা-বিভাগীয় পর্যায়েও প্রীতি ম্যাচ-টুর্নামেন্ট হয়। ভাষা দিবসে তেমনটি হয় না। সাম্প্রতিক সময়ে ঘরোয়া ফুটবল লিগে বসুন্ধরা কিংস ভাষাশহীদদের স্মরণে বাংলা জার্সি পরে খেলেছে। বিপিএল ক্রিকেটেও জার্সিতে বাংলা ব্যবহার ও ধারাভাষ্যকারদের পোশাকেও ভাষার মাসে স্মরণ করতে দেখা গেছে। অন্য ফেডারেশনের মধ্যে কেউ ব্যানার টানায় আবার কোনো ফেডারেশন কিছুই করে না। 

চট্টগ্রাম বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সিরাজউদ্দিন মো. আলমগীর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সাবেক পরিচালক। তৃণমূলের পাশাপাশি জাতীয় পর্যায়ের ক্রীড়া সংস্থার সঙ্গে তার সম্পৃক্ততা। ভাষা দিবসে ক্রীড়াঙ্গনে পালন সম্পর্কে এই সংগঠক বলেন, 'ক্রীড়াঙ্গনে এই দিবসে তেমন কর্মকান্ড পরিলক্ষিত হয় না। ২১ ফেব্রম্নয়ারি এখন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি পেয়েছে। ক্রীড়াঙ্গনের পক্ষ থেকেও এই দিনটি উদযাপন বা আয়োজন করা যায়। এ জন্য অবশ্য একটি সমন্বিত পরিকল্পনা ও নির্দেশনা প্রয়োজন।'

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে