শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০
walton

চাল রপ্তানিতে শুল্ক আরোপের মেয়াদ বাড়াল ভারত

গত জানুয়ারি মাসে ভারতের খুচরা মূল্যস্ফীতির হার ৫ দশমিক ১ শতাংশে নামলেও খাদ্যের মূল্যস্ফীতি ছিল ৮ দশমিক ৩ শতাংশ
যাযাদি ডেস্ক
  ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০০:০০

সেদ্ধ চাল রপ্তানিতে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের ২০ শতাংশ শুল্ক আরোপ পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে দেশটির অর্থ মন্ত্রণালয়।

দেশের বাজারে সরবরাহ ও দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে গত বছরের আগস্টে চাল রপ্তানিতে ২০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। ওই সময় বলা হয়েছিল, চলতি বছরের অর্থাৎ মার্চ মাসের ৩১ তারিখ পর্যন্ত এই শুল্ক জারি থাকবে। কিন্তু গতকাল বুধবার জানানো হয়, পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত এই শুল্ক জারি থাকবে। খবর ইকোনমিক টাইমস ও এনডিটিভির।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো দুই বছর ধরে ভারতের মানুষও উচ্চ মূল্যস্ফীতির মধ্যে রয়েছে। গত জানুয়ারি মাসে ভারতের খুচরা মূল্যস্ফীতির হার ৫ দশমিক ১ শতাংশে নামলেও খাদ্যের মূল্যস্ফীতি ছিল ৮ দশমিক ৩ শতাংশ।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, চলতি বছর লোকসভা নির্বাচনের আগে ভারতের ক্ষমতাসীন নরেন্দ্র মোদি সরকার বেশ কিছু ক্ষেত্রে সুবিধাজনক অবস্থানে থাকলেও তাদের অস্বস্তির জায়গা একটি। সেটা হলো বাজারে পণ্যের দাম। সে জন্য পেঁয়াজের পাশাপাশি বাসমতী ভিন্ন অন্যান্য সাদা চালের রপ্তানিতে শুল্ক আরোপ করেছে সরকার। একসময় টমেটো বিক্রি হয়েছে সরকারি বিপণি থেকে। খোলাবাজারে বিক্রির জন্য সরকারি গুদামে শস্যের মজুতও বাড়ানো হচ্ছে।

চাল রপ্তানিতে শুল্ক আরোপ করা হলেও চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল মোদি সরকার। গত মঙ্গলবার তারা আবার স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, সেই সময় এগিয়ে আনার প্রশ্ন নেই, বরং নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ আরও বাড়ানো হতে পারে।

ভারতের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবর, ভারতের বাজারে সম্প্রতি এমন খবর ছড়িয়ে পড়ে যে পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হচ্ছে। এর জেরে ভারতের বৃহত্তম পেঁয়াজ বাজার মহারাষ্ট্রের লাসালগাঁওয়ের পাইকারি বাজারে মাত্র দুই দিনের মধ্যে পেঁয়াজের দাম ৪০ শতাংশের বেশি বেড়ে যায়।

১৭ ফেব্‌রুয়ারি প্রতি কুইন্টাল পেঁয়াজের দাম ছিল ১ হাজার ২৮০ রুপি; ১৯ ফেব্রম্নয়ারি তা ১ হাজার ৮০০ রুপিতে উঠে যায়।

পাইকারি ব্যবসায়ীদের দাবি, নাসিক থেকে পেঁয়াজ রপ্তানি শুরু হলে ভবিষ্যতে পেঁয়াজের পাইকারি ও খুচরা দাম বাড়তে পারে। এ ধরনের গুজব যাতে আর বাজারে ছড়াতে না পারে, তা নিশ্চিত করতে কোমর বেঁধে নেমেছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় ক্রেতা সুরক্ষা সচিব রোহিত কুমার সিংহ ভারতের গণমাধ্যমকে বলেছেন, পেঁয়াজের রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়নি এবং সেই ব্যবস্থায় পরিবর্তনও আনা হয়নি।

সামগ্রিকভাবে পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও বাংলাদেশসহ ছয় দেশে সীমিত পরিমাণে পেঁয়াজ রপ্তানি করবে বলে জানিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, এসব দেশে সরকারি পর্যায়ে (জিটুজি) পেঁয়াজ রপ্তানি করা হবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুপারিশে দেশটির কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে সংবাদে বলা হয়েছে। তবে কী পরিমাণে পেঁয়াজ রপ্তানি হবে, কিংবা কবে থেকে রপ্তানি হবে, সে ব্যাপারে ভারতীয় গণমাধ্যম কিছু জানাতে পারেনি।

যেসব দেশে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি করবে সেই দেশগুলো হলো বাংলাদেশ, শ্রীলংকা, মরিশাস, বাহরাইন, ভুটান ও নেপাল।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে