সেনবাগে নৌকার ভরাডুবি

সেনবাগে নৌকার ভরাডুবি

নজিরবিহীন কঠোর নিরাপত্তার মধ্যেদিয়ে উৎসব মুখর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হলো নোয়াখালীর সেনবাগ পৌরসভা ও ৫টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন।

রবিবার অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে ১ টি পৌরসভা ও ৫ টি ইউনিয়নের ১ টি ছাড়া (বিনা প্রতিদন্ধীতায়) সব গুলোতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। এর মধ্যে প্রথমবারের মতো সেনবাগ পৌরসভা ও ১নং ছাতারপাইয়া ইউনিয়নে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পৌরসভার মেয়র পদে নৌকার প্রার্থী আবু জাফর টিপুকে ৯১৮ ভোটে হারিয়ে জয়ী হয়েছেন আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত বিদ্রোহী প্রার্থী সেনবাগ কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি আবু নাছের দুলাল।

তিনি পৌর সভার ৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ৮টিতে প্রথম হয়ে মোট ৫৮৫২ ভোট পেয়ে মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন।

অপর দিকে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পর পর দুইবারের নির্বাচিত পৌর মেয়র আবু জাফর টিপু পেয়েছেন ৪৯৩৪ ভোট ।

ইউনিয়ন পর্যায়ে ১নং ছাতারপাতাইয়া ইউনিয়নে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এখানে আনারস প্রতিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিএনপি)বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুর রহমান ৬০৬৫ ভোট পেয়ে টানা চতুর্থ বার নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম পেয়েছেন ৪৩৯৮ভোট,আর আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী সোহবার হোসেন সুমন পেয়েছেন ২৬০৪ ভোট। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর প্রার্থী মাহমুদুল হাসান হাত পাখা নিয়ে পেয়েছেন ৯০৭ভোট,স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল খায়ের মোটর সাইকেল প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ১৫২ ভোট, ও মোখলেসুর রহমান টেলিফোন প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ১২২ ভোট ।

৩ নং ডমুরুয়া ইউনিয়নে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী শওকত হোসেন কানন। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করলে তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

৪নং কাদরা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে তিন জনই আওয়ামী লীগ সমর্থীত। ভোটে আনারস প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত বিদ্রোহী প্রার্থী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোঃ গিয়াস উদ্দিন ভুঁইয়া । তিনি পেয়েছেন ৬১৮৪ ভোট।তার নিকতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র (আ,লীগ) প্রার্থী জহিরুল আলম চশমা প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ৩৮০৫ ভোট। অপরদিকে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনীত নৌকার প্রার্থী মোহাম্মদ কামরুজ্জামান পলাশ পেয়েছে ২০৪৮ ভোট।

৬নং কাবিলপুর ইউনিয়নে টেলিফোন প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র ( বিএনপি)প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বাহার ৮২২১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র (বিএনপি) প্রার্থী জহিরুল ইসলাম পেয়েছেন ৬৪০৬ ভোট, আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতিক নিয়ে আজাদ হোসেন পেয়েছেন ৪২৯৩ ভোট।

৮নং বীজবাগ ইউনিয়নে আনারস প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী (আ,লীগ)সেলিম উদ্দিন কাজল ৫৪৫৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী আনোয়ার হোসেন আলমগীর পেয়েছেন ২৭৮২ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী (জামায়াত) হারুনুর রশিদ টেলিফোন মার্কা নিয়ে পেয়েছেন ২৬৫২ ভোট, তার স্ত্রী চশমা প্রতিকে ৭৫ ভোট, এবং জাকের পাটির সাহাব উদ্দিন গোলাপ ফুল মার্কা নিয়ে ২৩৭ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কাশেম মোটর সাইকেল প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ২৬৯ ভোট ।

উল্লেখ্য ৯নং নবীপুর ইউপির নির্বাচন ৬মাসের জন্য স্থগিত ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট।

যাযাদি/ এমডি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

ক্যাম্পাস
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
হাট্টি মা টিম টিম
কৃষি ও সম্ভাবনা
রঙ বেরঙ

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে