শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১

খালিশপুরে যুবলীগ নেতাকে জখম : অভিযান অব্যাহত 

খুলনা অফিস
  ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১৪:১৮
খালিশপুরে যুবলীগ নেতাকে জখম : অভিযান অব্যাহত 

খুলনা নগরীর খালিশপুরে ১২-নং ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা মুজতবা চৌধুরি নজরকে (৪৫) দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে। গত শনিবার রাত ১০ টার দিকে খালিশপুর হাউজিং বাজার ১২-নং ওয়ার্ড আ’লীগ অফিস কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় খালিশপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ভুক্তভুগীর স্ত্রী ডা: সৈয়দা সানজিদা রীমা বাদী হয়ে এই মামলা করেন।

খালিশপুর থানা ১৪ সেক্টম্বর) মামলা দায়ের করেন, যার মামলা নং-১১। যাদের নামে মামলা দায়ের করা হয় তারা হলেন, খালিশপুর ফায়ার সার্ভিস সামনে পিতা মৃত: মান্নানের দুই ছেলে (১)মো: নজরুল (৩৬) ও মনিরুল ওরপে মন্ডল (৩০) এদর নামে হত্যা মদকসহ একাধিক মামলা রয়েছে বিভিন্ন থানায়।

খালিশপুর এলাকার বাসিন্দা পিতা ইউনুছ প্রত্র মো: ওয়াসিম (৩৯) একই এলাকার আনিছ ছেলে বেল্লাল ওরপে কানা বেল্লাল (২৭) মো: আইয়ুব ছেলে বাদশা। খালিশপুর এলাকার বাসিন্দা মো: ইউসুফ ছেলে মো: রকি (২৫) গাপতলা এলাকার বাসিন্দ শাহাবুদ্দিন ছেলে মো: শাওন (২৫) খালিশপুর এলাকার হাউজিং বাসিন্দা মো: মানিক ছেলে অজয় (২৪) একই এলাকার বাসিন্দা হালিম ছেলে মো: রুবেল (২৬) হাউজি এলাকার বাসিন্দা হারুন ছেলে মো; মাহমুদ (৩০)একই এওলাকার বাসিন্দা মোহাম্মাদ আলী ছেলে মো: আলামিন (২৭) এই সকল আসামীদের নামে চুরি, ডাকাতি, হত্যা,মাদকসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানান।

বাদী এজাহার বলেন, খুলনা নগরীর খালিশপুরে ১২নং ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা মুজতবা চৌধুরি নজরকে (৪৫) দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে। গত শনিবার রাত ১০ টার দিকে খালিশপুর হাউজিং বাজার ১২নং ওয়ার্ড আ’লীগ অফিস কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়, অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখান থেকে স্থানান্তর করে তাকে ঢাকা পপুলার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তাকে দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে উর্পযুপরি কুপিয়েছে। সমগ্র শরীর ক্ষত-বিক্ষত করে ফেলেছে। এর আগে গত ২২ জুন রাত সাড়ে ১০টার দিকে গাবতলা মোড়ে তার ওপর আরো এক দফা হামলা হয়। তিনি সেই যাত্রাও আহত হলেও প্রাণে বেঁচে যান। তবে দুর্বৃত্তদের হামলায় তার বাম হাত ভেঙ্গে যায়। সেই ক্ষত না শুকাতেই আবারো নজরের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

এতে করে নজরসহ তার স্বজনরা ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছেন। আহত নজরের ভাই যুবলীগ নেতা মুজতুবা চৌধুরী মামুন জানান, নজর কবুতরের খাবার ক্রয় করার জন্য মটরসাইকেল যোগে আলমগীরকে সাথে নিয়ে হাউজিং বাজার ১২নং ওয়ার্ড আ’লীগের কার্যালয়ের সামনে যান। খাবার কিনে তারা দু’জন মটর সাইকেল যোগে রওনা হন। এমন সময় দুর্বৃত্তরা প্রথমে মটর সাইকেল চালক আলমগীরের ওপর হামলা চালায়। এ সময় নজরসহ দু’জন মটর সাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে। এ সময় দুর্বৃত্তরা নজরকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো শুর করে। তারা তাকে উর্পযুপরি কুপিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে। দুর্বৃত্তরা তাকে হাতে কব্জি, পায়ের গিরা, মাথাসহ ১৪টি কোপ দিয়েছে।

এ সময় এলাকাবাসীর চিৎকারে দুর্বৃত্তরা এলাকা ত্যাগ করলে নজরকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে খুমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে রাত ১২টার দিকে তাকে এ্যাম্বুলেন্স যোগে ঢাকায় নেয়া হয়। ঢাকায় দু’টি হাসপাতালে তাকে ফেরৎ দেয়। পরে তাকে পপুলার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শরীরে সাত ব্যাগ রক্ত পুশ করা হয়েছে। তার অবস্থা খুবই আশংকাজনক বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, নজর ১৩নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও বর্তমানে ১২নং ওয়ার্ড যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক।

যুবলীগের আন্দোলন সংগ্রামে এই নজরের অনেক অবদান রয়েছে। তারপরও আ’লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকাবস্থায় নজরের ওপর বারবার হামলা তাদের জন্য আতংকের বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। তিনি আরো বলেন, ঘটনার পর দুর্বৃত্তদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ ব্যাপক অভিযান পরিচালনা করছে ,এব্যপারে খালিশপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনির-উল-গিয়াস জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে আমরা মামলার আসামীদের গ্রেফতার করথে অভিযান চলছে বলে জানান।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে