logo
বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬

  শিক্ষা জগৎ ডেস্ক য়   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

ইতিহাসের পাতা

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল
ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল আধুনিক নার্সিং সেবার অগ্রদূত, লেখক এবং পরিসংখ্যানবিদ জন্ম : ১২ মে, ১৮২০ মৃতু্য : ১৩ আগস্ট, ১৯১০
'দ্যা লেডি ইউথ দ্যা ল্যাম্প' নামে পরিচিত ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল ছিলেন আধুনিক নার্সিং সেবার অগ্রদূত, একজন লেখক এবং পরিসংখ্যানবিদ। বাবা উইলিয়াম এডওয়ার্ড নাইটিঙ্গেল এবং মা ফ্রান্সিস নাইটিঙ্গেলের অভিজাত পরিবারে ১৮২০ সালের ১২ মে ইতালির ফ্লোরেন্স শহরে জন্মগ্রহণ করেন ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল। ফ্লোরেন্স শহরের নামানুসারেই মা-বাবা তার এই নাম রাখেন। সে সময় মেয়েদের শিক্ষা গ্রহণ প্রচলিত ছিল না। নাইটিঙ্গেলের বাবা উইলিয়াম মনে করতেন মেয়েদেরও শিক্ষা গ্রহণ করা উচিত। তিনি বিজ্ঞান, গণিত, ইতিহাস ও দর্শন ইত্যাদি বিষয় নাইটিঙ্গেলকে পড়ান। নাইটিঙ্গেল তার হৃদয়ে মানবসেবার প্রতি প্রথম টান অনুভব করেন ১৭ বছর বয়সে লন্ডনে থাকা অবস্থায়। তিনি ১৮৫১ সালে নার্সের প্রশিক্ষণ নিতে উড়াল দেন জার্মানিতে। নাইটিঙ্গেলের সবচেয়ে বড় অর্জন ছিল ক্রিমিয়ার যুদ্ধে বিপর্যস্ত সৈন্যদের সেবা। ১৮৫৩ সালে ক্রিমিয়ার যুদ্ধ শুরু হলে ১৮৫৪ সালের মধ্যে ১৮ হাজারেরও বেশি সৈন্য মিলিটারি হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে সেসব অক্ষম সৈন্য চরম নিগ্রহের মধ্যে থাকত তিনি তাদের সেবা করতেন। তিনি হাসপাতালের পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা, এমনকি পর্যাপ্ত আলো-বাতাসের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে জোর চেষ্টার মাধ্যমে হাসপাতালের কাঠামোর পরিবর্তন করেন। তার এই আপ্রাণ চেষ্টার ফলে সৈন্যদের মৃতু্যহার ৪২% থেকে ২%-এ নেমে আসে, যা মানবসেবার ইতিহাসে মাইলফলক হয়ে থাকবে।

নাইটিঙ্গেলের আরেকটি বড় অবদান ছিল সারা দেশে এবং বাইরে হাত ধোয়াসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যকর অভ্যাস চালু করা। ১৮৫৫ সালে তিনি নার্স প্রশিক্ষণের জন্য তহবিল সংগ্রহের কাজ শুরু করেন। নিরলস প্রচেষ্টায় ১৮৫৯ সালে তিনি নাইটিঙ্গেল ফান্ডের জন্য সংগ্রহ করেন প্রায় ৪৫ হাজার পাউন্ড। পরবর্তী সময়ে তিনি ভারতবর্ষের গ্রামীণ মানুষের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর গবেষণা চালান। যা ভারতবর্ষে উন্নত স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। ইংল্যান্ডের স্বাস্থ্যব্যবস্থা উন্নয়নেও তিনি বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। ১৮৫৯ সালে তিনি 'রয়্যাল স্ট্যাটিসটিক্যাল সোসাইটির' প্রথমসারির সদস্য নির্বাচিত হন। লন্ডনের সেন্ট থমাস হাসপাতালে নার্সিংকে সম্পূর্ণ পেশারূপে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য ১৮৬০ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন 'নাইটিঙ্গেল ট্রেনিং স্কুল' যার বর্তমান নাম 'ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল স্কুল অব নার্সিং।

ডা. এলিজাবেথ বস্ন্যাকওয়েলের সঙ্গে যৌথভাবে ১৮৬৭ সালে নিউ ইয়র্কে চালু করেন 'উইমেন্স মেডিকেল কলেজ'। এছাড়া তিনি বিভিন্ন সময় নার্সিংয়ের ওপর বইও লিখেন। ১৮৮৩ সালে রানী ভিক্টোরিয়া তাকে 'রয়েল রেডক্রস' পদকে ভূষিত করেন। প্রথম নারী হিসেবে 'অর্ডার অব মেরিট' খেতাব লাভ করেন ১৯০৭ সালে। ১৯০৮ সালে লাভ করেন লন্ডন নগরীর 'অনারারি ফ্রিডম' উপাধি। ১৯৭৪ সাল থেকে তার জন্মদিন ১২ মে পালিত হয়ে আসছে 'ইন্টারন্যাশনাল নার্সেস ডে'। লন্ডনের ওয়াটারলু ও ডার্বিতে রয়েছে এই সেবিকার প্রতিকৃতি। লন্ডনের সেন্ট থমাস হাসপাতালে রয়েছে ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল মিউজিয়াম। ১৯১০ সালের ১৩ আগস্ট ৯০ বছর বয়সে তিনি মৃতু্যবরণ করেন।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে