logo
সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৬

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ০৩ জুলাই ২০২০, ০০:০০  

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২১

বঙ্গবন্ধুর নামেই পরবর্তী সাফ

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের পরবর্তী আসর অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল এ বছর সেপ্টেম্বরে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে টুর্নামেন্টটি পিছিয়ে গেছে অনির্দিষ্টকালের জন্য। ২০২১ সালে সাফ হলেও কখন হবে তাও ঠিক হয়নি। এবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর কারণে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হওয়ার কথা ছিল বঙ্গবন্ধুর নামে। ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত পালন হবে জন্মশতবার্ষিকী। তবে এর মধ্যে সাফ আয়োজন যদি সম্ভব নাও হয় যখনই মাঠে গড়াবে পরবর্তী সাফ সেটি হবে জাতীর পিতার নামেই। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাফুফে ও সাফ সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন।

বৃহস্পতিবার এ প্রসঙ্গে সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের এবং বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন বলেন, 'আগামী বছর আমাদের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আমরা বঙ্গবন্ধুর নামেই টুর্নামেন্টটি করার চেষ্টা করব। কারণ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর জন্য আমরা এই আসরটির আয়োজক হয়েছি। ১৭ মার্চের আগে কিংবা পরে যখনই হোক আমরা 'বঙ্গবন্ধু সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ' নামেই এই টুর্নামেন্ট করব।'

বাংলাদেশ একবার সাফ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ২০০৩ সালে, ঢাকায়। ২০০৫ সালে পাকিস্তানের করাচিতে পরের আসরে বাংলাদেশ শিরোপা হারায় ফাইনালে ভারতের কাছে ২-০ গোলে পরাজিত হয়ে। এরপর অনুষ্ঠিত ৬ আসরের মধ্যে একবার মাত্র সেমিফাইনালে উঠতে পেরেছিল লাল-সবুজ জার্সিধারীরা, ২০০৯ সালে ঘরের মাঠে। ২০০৮ সালে মালদ্বীপের মালে ও শ্রীলংকার কলোম্বোয়, ২০১১ সালে ভারতের দিলিস্নতে, ২০১৩ সালে নেপালের কাঠমান্ডুতে, ২০১৫ সালে ভারতের কেরালায় এবং ২০১৮ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ গ্রম্নপ পর্বই টপকাতে পারেনি। ঘরের মাঠে সর্বশেষ আসরে হওয়া সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ গ্রম্নপ পর্বে ভুটানকে ২-০ ও পাকিস্তানকে ১-০ গোলে হারালেও শেষ ম্যাচ ২-০ গোলে হেরে যায় নেপালের কাছে। নেপালের সঙ্গে ড্র করলেই সেমিফাইনালের টিকিট পেত বাংলাদেশ। কিন্তু হেরে পাকিস্তানের সমান ৬ পয়েন্ট হলেও গোলগড়ে বাদ পড়ে যায় জেমি ডে'র দল। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের ইংলিশ কোচ জেমি ডে নতুন করে দুই বছরের জন্য নিয়োগ পাওয়ার পর সাফের ট্রফি জয়টাকে প্রধান লক্ষ্য করেছেন। গত দুই বছরে আন্তর্জাতিক ফুটবলে বাংলাদেশের কিছু অর্জন থাকলেও কোনো ট্রফি জেতা হয়নি। যে কারণে একটি ট্রফি জয় এখন প্রধান লক্ষ্য জেমি ডে'র। সেটা সাফ হোক কিংবা বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের।

চলতি বছর ১৯ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর হওয়ার কথা ছিল দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় এই ফুটবল টুর্নামেন্ট। করোনাভাইরাসে খেলাধুলা বন্ধ। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোয় দিন দিন এ ভাইরাসটি বেশি বিস্তার হচ্ছে। প্রাণহানিও বাড়ছে। তাই সেপ্টেম্বরে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ সম্ভব না- সেটা ধরেই নেওয়া হয়েছিল। গত সোমবার সাফ কর্মকর্তারা ৭ দেশের সাধারণ সম্পাদকদের সঙ্গে ভার্চুয়াল সভা করে টুর্নামেন্ট এ বছর আয়োজন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ছেলেদের জাতীয় দলের পাশাপাশি ছেলে-মেয়ে দুই বিভাগেরই বয়সভিত্তিক কয়েকটি টুর্নামেন্ট হওয়ার কথা আছে এ বছর। সেগুলোর মধ্যে এ বছর ডিসেম্বরে দু-একটি টুর্নামেন্ট আয়োজন করার চেষ্টা করবে সাফ, যদি পরিস্থিতি অনুকূলে আসে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে