logo
শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ২৭ আষাঢ় ১৪২৬

  ক্রীড়া ডেস্ক   ১৪ মে ২০২০, ০০:০০  

আরও ৪০০০ রান বেশি হতো আমাদের: সৌরভ

৫০ ওভারের ক্রিকেটের ওপেনিং জুটিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড শচিন টেন্ডুলকার ও সৌরভ গাঙ্গুলির। এই দুই ভারতীয় কিংবদন্তি তাদের ক্যারিয়ারে ১৭৬টি জুটি গড়ে মোট ৮২২৭ রান করেছেন ৪৭.৫৫ গড়ে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) মঙ্গলবার নিজস্ব অফিশিয়াল টুইটার হ্যান্ডল ব্যবহার করে ক্রিকেটভক্তদের স্মরণ করিয়ে দিয়েছে এই কীর্তিটি, 'আর কোনো জুটি ওয়ানডেতে একসঙ্গে ৬০০০ রানই করতে পারেনি।' টেন্ডুলকারের ওপেনিংসঙ্গী ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) বর্তমান সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি অবশ্য মনে করেন এখনকার নিয়মে কম করে হলেও আরও ৪০০০ রান বেশি করতে পারতেন তারা।

'মাস্টার বস্নাস্টার' শচিন টেন্ডুলকার আইসিসির দেওয়া এই পরিসংখ্যানের দিকে দৃষ্টি টেনেছেন সৌরভের এবং বলেছেন, তাদের খেলোয়াড়ি জীবনে এখনকার ওয়ানডে নিয়ম চালু থাকলে সম্ভবত আরও বেশি রান হতো তাদের জুটির। 'দাদি (সৌরভ) এটা দুর্দান্ত সেই স্মৃতিগুলো ফিরিয়ে আনল। তোমার কী মনে হয়, বৃত্তের বাইরে চার ফিল্ডার রাখা আর দুটি নতুন বল ব্যবহার করার বাধ্যবাধকতায় আর কত বেশি রান আমরা করতে পারতাম?'- টুইট করেন টেন্ডুলকার। দ্রম্নতই উত্তর দিয়েছেন সৌরভ, 'আরও ৪০০০ রান অথবা ওরকম... ২ নতুন বল... ওয়াও.. মনে হচ্ছে প্রথম ওভারেই বাউন্ডারির দিকে উড়ে যাচ্ছে বল... ৫০ ওভারে আরও তো বাকি।'

আইন বদলের ধারাবাহিকতায় নতুন নিয়মানুযায়ী দুই প্রান্তে নতুন দুটি সাদা বল ব্যবহার করা হয় এখন ওয়ানডেতে, আর ফিল্ডিং বাধ্যবাধকতায় আছে তিনটি পাওয়ার-পেস্ন। ১ থেকে ১০ ওভার পর্যন্ত প্রথম পাওয়ার পেস্ন, এ সময় দুজন মাত্র ফিল্ডার থাকবে ৩০ গজ বৃত্তের বাইরে। পরবর্তী ৩০ ওভারে অর্থাৎ ১১ থেকে ৪০ ওভার পর্যন্ত বৃত্তের বাইরে থাকতে পারবে চার ফিল্ডার, আর শেষ ১০ ওভারে পাঁচজন। শচিন দুই প্রান্তে দুটি নতুন সাদা বল ব্যবহারের পক্ষে নন। ২০১৮ সালে একবার বলেছিলেন, 'ওয়ানডে ক্রিকেটে দুটি নতুন বলে খেলার নিয়মটি খেলাটিতে বিপর্যয় ডেকে এনেছে। নতুন বল তো রিভার্স সুইং করার জন্য পর্যাপ্ত সময় এখানে পাচ্ছে না। ডেথ ওভারের অবিচ্ছেদ্য বিষয় রিভার্স সুইং আমরা দেখতে পাচ্ছি না বহুদিন।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে