শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০
walton

এবারের বইমেলা নান্দনিক সাজে সাজানো হবে 

জালাল আহমদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
  ৩০ জানুয়ারি ২০২৪, ১৪:২৩

মেট্রোরেলের কারণে এবারের বইমেলায় দর্শকদের আগমন জমজমাট হবে এই বিষয়টি হিসাব করেই নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা সহ সব কিছুই নান্দনিক স্টাইলে সাজানো হবে এবারের বইমেলায়।

আজ ৩০ জানুয়ারী(২০২৪) মঙ্গলবার সকাল এগারোটায় বাংলা একাডেমীর আব্দুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান আয়োজক কমিটি।

মেলায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার জন্য এলাকাজুড়ে থাকবে তিন শতাধিক ক্লোজসার্কিট ক্যামেরা। মেলায় নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন পুলিশ,র‍্যাব , আনসার এবং বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা। পলিথিন এবং ধূমপান মুক্ত থাকবে মেলাপ্রাঙ্গন।

সংবাদ সম্মেলনে বইমেলা পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব এবং বাংলা একাডেমি মানবসম্পদ উন্নয়ন ও পরিকল্পনা বিভাগের পরিচালক কে এম মুজাহিদুল ইসলাম স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

তিনি বলেন, আগামী ১ফেব্রুয়ারী (২০২৪) বৃহস্পতিবার বিকেল তিনটায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত। বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব খলিল আহমদ।স্বাগত বক্তব্য রাখবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা এবং সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির সভাপতি সেলিনা হোসেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রী কয়েকটি নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করবেন এবং বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার -২০২৩ প্রদান করবেন।

তিনি আরো জানান,"২০২৪ সাল অধিবর্ষ। তাই এবার বইমেলা হবে ২৯ দিনের। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটির দিন ব্যতীত প্রতিদিন মেলা বেলা তিনটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। মেলার গেট ওপেন হবে তিনটায় এবং বন্ধ হবে সাড়ে আটটায়। মেলার স্টলের কর্মীদের জন্য নয়টা পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয়া হবে। নয়টার পরপরই লাইট বন্ধ করে দেয়া হবে। ছুটির দিনে সকাল এগারোটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে মেলা শুরু হবে সকাল আটটায় এবং শেষ হবে রাত নয়টায়"।

তিনি বলেন,"সাড়ে এগারো লাখ বর্গ ফুট জায়গা নিয়ে বাংলা একাডেমি এবং তার সংলগ্ন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিত হবে এবারের বইমেলা। বাংলা একাডেমিতে ১২০ টি প্রতিষ্ঠান কে ১৭৩ টি ইউনিট এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ৫১৫ টি প্রতিষ্ঠান কে ৭৬৪ টি ইউনিট সহ মোট ৬৩৫টি প্রতিষ্ঠান কে ৯৩৭ টি ইউনিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বাংলা একাডেমিতে ১ টি সহ উভয় স্থানে মোট ৩৭ টি প্যাভিলিয়ন থাকবে"।

মেলার দুটি গেট ১ তারিখ খুলে দেয়া হবে।বাকি গেট গুলো পরে খুলে দেয়া হবে।

টিএসসি গেট দিয়ে প্রবেশ করলে হকারদের কারণে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। তাই সেই গেট পরিবর্তন করা হয়েছে। এটা একটু সরিয়ে মন্দির গেটের কাছাকাছি নিয়ে আসা হয়েছে"।

বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক জাতি সত্তার কবি নূরুল হুদা মেলার দীর্ঘ ইতিহাস তুলে ধরেন।

কবি নুরুল হুদা জানান, "মেলার বয়স ৭২ বছর।এই মেলা স্বতঃস্ফূর্তভাবে তৈরি হয়ে আসছে ‌। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার সহ ২১ বার বইমেলা উদ্বোধন করতে যাচ্ছেন"।

দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ে কবি নুরুল হুদা জানান, "আমি বাংলার একাডেমীর সহকারী পরিচালক, পরিচালক এবং বর্তমানে মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি ‌। বাংলা একাডেমী একটি সংবিধিবদ্ধ সংস্থা।তাই এখানে ফেলো থেকে মহাপরিচালক হয়"।

কবি নুরুল হুদা জাকির তালুকদার পুরস্কার ফেরত প্রসঙ্গে বলেন, তিনি বাংলা একাডেমির অসঙ্গতি প্রসঙ্গ টেনে তিনি এক লক্ষ টাকার চেক ফেরত পাঠিয়েছেন। এখানে গণতন্ত্রহীনতা শুরু হয়েছে ২০০১ সাল থেকে। সেবার বাংলা একাডেমিতে যে নির্বাচন প্রক্রিয়া তাতে ফেলোর সংখ্যা বেড়ে যায়।ফলে ভারসাম্য রক্ষা হচ্ছে না।২০১৪ এই গণতন্ত্রহীন অবস্থায় তিনি পুরস্কার গ্রহণ করেছেন"।

তিনি আরো জানান," ইতিমধ্যেই ভোটার তালিকা তৈরি হয়েছে এবং আচরণ বিধি প্রণয়ন করা হয়েছে। অগণতান্ত্রিক কথাটি থেকে আমরা বেরিয়ে আসার চেষ্টা করছি।আগামী পহেলা বৈশাখের আগে এটা সম্ভব হবে।তার বিষয়ে আমাদের কাউন্সিলে আলোচনা হবে"।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে