বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

প্রচণ্ড গরমে পানি সংকটে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায়

যাযাদি ডেস্ক
  ২৯ এপ্রিল ২০২৪, ১৬:১৫
প্রচণ্ড গরমে পানি সংকটে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায়

প্রচণ্ড গরমে ওষ্ঠাগত হয়ে উঠেছে জনজীবন। ঘরের ভেতরেও শান্তিতে থাকার জো নেই। ঈদের পর থেকে গরমের তীব্রতা বাড়ায় রাতে শান্তিতে ঘুমাতেও পারছেন না সারা দেশের মানুষ। এই যখন পরিস্থিতি, এর মধ্যেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সংকট দেখা দিয়েছে ঢাকা ওয়াসার পানি সরবরাহে। বাসা-বাড়িতে পানি না পেয়ে অসহনীয় দুর্ভোগে পড়েছেন রাজধানীবাসি।

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, গুলশান, নন্দীপাড়া, ইব্রাহিমপুর, মিরপুর, সোলমাইদ, মাটিকাটা, মালিবাগ, বাড্ডা, নতুন বাজার, রামপুরা, মেরুল, ডিআইটি, মালিবাগ, বাসাবো, পুরান ঢাকা, মুগদা, মান্ডা, লালবাগ, রায়েরবাগসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দারা পানি পাচ্ছেন না ঠিকঠাক মতো।

তবে ঢাকা ওয়াসার দাবি, নগরীতে সার্বিকভাবে পানি সরবরাহে ঘাটতি নেই। এলাকাভিত্তিক কিছু স্থানে সাময়িক সমস্যা রয়েছে। মূলত ভূগর্ভস্থ পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়া, অতিরিক্ত গরমে পানির চাহিদা বেড়ে যাওয়া এবং প্রয়োজনের তুলনায় গভীর নলকূপ কম থাকায় কিছুটা সমস্যা হচ্ছে।

নন্দীপাড়ার এক বাসিন্দা বলেন, বেশ কিছুদিন হলো লাইনে পানি আসছে না। গভীর রাতে অল্প যে পানি আসে, তা দিয়ে চাহিদা পূরণ হয় না। অনেক তদবির করে ওয়াসা থেকে গাড়ির পানি এনে কোনো রকমে কাজ চলছে।

ওয়াসার একাধিক কর্মকর্তা বলেন, রমজান মাস শুরুর পর থেকেই পানির চাহিদা বেড়ে গেছে। সম্প্রতি তাপপ্রবাহ শুরু হওয়ায় পানির চাহিদা আরও বেড়েছে।

ঢাকা ওয়াসার তথ্য মতে, রাজধানীতে পানির চাহিদা দৈনিক গড়ে ২৬০ কোটি লিটার। ওয়াসার উৎপাদন সক্ষমতা রয়েছে ২৭০ কোটি লিটার।

এ ছাড়া বায়ুদূষণ রোধ ও তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাস্তায় পানি ছিটিয়ে যাচ্ছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকার সড়কে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত পানি ছিটানো হচ্ছে। দুটি স্প্রে ক্যানন এবং ১০টি ব্রাউজার দিয়ে প্রতিদিন ছিটানো হচ্ছে প্রায় ৪ লাখ লিটার পানি। তাপদাহ কমা না পর্যন্ত সাপ্তাহিক ছুটির দিনেও এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে