বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

এমপি আনারের লাশ পাওয়া যায়নি, মেয়ের প্রশ্ন বাবার কি জানাজা হবে না?

যাযাদি ডেস্ক
  ২৭ মে ২০২৪, ১১:৩৩
আপডেট  : ২৭ মে ২০২৪, ১১:৩৬
ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার

ভারতের পশ্চিবঙ্গ পুলিশ খাল-বিল, হাসপাতাল ও নর্দমা সব জায়গায় তন্ন তন্ন করে খুঁজছে কিন্তু মিলছে এমপি আনারের লাশ। আর যতক্ষণ পর্যন্ত লাশ পাওয়া যাবে না ততক্ষণ পর্যন্ত অনেক প্রশ্নের উত্তর মিলবে না। এদিকে তার মেয়ের প্রশ্ন আমার বাবার কি তাহলে জানাজাও নামাজ হবে না।

জানা যায়, ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ভাঙড়ের এলাকার খালে তল্লাশি অভিযানের তৃতীয় দিনেও ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের দেহাবশেষের খোঁজ পাওয়া যায়নি। উদ্ধারকাজে অংশ নেওয়া একজন স্থানীয় জেলে জানান, এভাবে দেহাবশেষ উদ্ধার করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়।

অন্যদিকে ভারতের কলকাতায় তদন্তে আসা ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দাপ্রধান হারুন অর রশিদ বলেছেন, আশা করছি এমপির দেহ না হলেও দেহাংশ উদ্ধার করতে পারব। তা না পারলে এই খুনের মামলার নিষ্পত্তি করা যাবে না। যদিও তিনি আশাবাদী, এমপি আনারের খুনের রহস্য দ্রুত উন্মোচন হবে।

জানা যায়, এমপি আনারের দেহাবশেষের খোঁজে গতকাল রোববার ভাঙড়ের খালে তৃতীয় দিনের মতো তল্লাশি অভিযান চালানো হয়। সকাল ৯টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ভাঙড়ের সাতুলিয়া এলাকায় তল্লাশি অভিযান চালান তদন্তকারী কর্মকর্তারা। ডিএমজি এবং এলাকার জেলেদের সাহায্য নিয়ে তল্লাশি অভিযান চালানো হয়। দুপুরের পর মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হওয়ায় উদ্ধারকাজ বন্ধ করে দেন তদন্তকারীরা।

এদিকে আজ সোমবার তারা কলকাতায় আটক জিহাদকে জেরা করবেন। প্রতিনিধিদলের অন্যরা হলেন ওয়ারী বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) আব্দুল আহাদ ও অতিরিক্ত উপ-কমিশনার সাহেদুর রহমান। ২৬ ও ২৭ মে দুই দিনের সফরে জোর অনুসন্ধান চালাবে গোয়েন্দা টিম।

এদিকে, ঘটনায় ব্যবহৃত ছুরি, কাঁচি, চপারের খোঁজ এখনো পাননি সিআইডির গোয়েন্দারা। ফলে কীভাবে ঘটনা ঘটানো হয়েছে, তা নিয়ে তারা ধন্ধে রয়েছেন। তবে তদন্তকারীরা জানতে পেরেছেন, নিউ টাউনের অ্যাক্সিস মল থেকে ঘটনার সঙ্গে যুক্ত দুষ্কৃতকারীরা ১০ বোতল ফ্লোর ক্লিনার এবং ১৫ বোতল অ্যাসিড কিনেছিল। তদন্তকারীদের ধারণা, এগুলো হয়তো ঘটনাস্থল থেকে রক্ত ধুয়ে, মুছে ডিএনএ-সংক্রান্ত প্রমাণ নষ্ট করতে ব্যবহার হয়েছে।

‘আমার বাবার কি জানাজা নামাজ হবে না? মানুষের দুর্ঘটনা বা রোগব্যাধিতে মৃত্যু হয়।কিন্তু আমার বাবাকে খুনিরা হত্যার পর দেহ কেটে টুকরা টুকরা করেছে। সেই টুকরাতে হলুদ মশলাও মিশিয়েছে। কি কষ্ট দিয়ে আমার বাবাকে মেরেছে খুনিরা। আমি জীবনেও তা ভুলতে পারব না। আমি আমার বাবার লাশের এক টুকরো অংশ দেখতে চাই। ’

ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপি আনোয়ারুল আজিম আনারের হত্যাকারীদের বিচার চেয়ে শুক্রবার বিকেলে শহরের মেইন বাসস্ট্যান্ডে আয়োজিত মানববন্ধনে কাঁদতে কাঁদতে কথাগুলো বলেন এমপি আনারের মেয়ে ডরিন।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে