শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১

উন্নয়নে অবদান রাখতে চান বেলায়েত হোসেন

  ২১ মে ২০২৪, ২১:০১
ছবি-যায়যায়দিন

৩০ মে ঢাকা কাস্টমস এজেন্ট এসোসিয়েশনের কার্যকরী পরিষদের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন মরিয়ম এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন।

তিনি মিজান-লাভলু-বাশার পরিষদের পক্ষে এই নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। মিজান-লাভলু-বাশার পরিষদের পূর্ণ প্যানেলে ভোট প্রদান করে ঢাকা কাস্টমস এজেন্ট এসোসিয়েশনের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

এর আগে তিনি সাবেক কার্যকরী পরিষদে মিজান-লাভলু-বাশার পরিষদের পক্ষ থেকে ‘কাস্টমস সম্পাদক’ হিসেবে সততা, নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন।

তিনি কার্যকরী পরিষদের সভাপতি, সহ-সভাপতি ও অন্যান্য সদস্যদের সাথে যৌথভাবে ঢাকা কাস্টমস এ আমদানি ও রপ্তানি প্রক্রিয়া সহজীকরণে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন।

যেগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য বিভিন্ন সময়ে ঢাকা কাস্টমস এ সৃষ্ট বিভিন্ন জটিলতা নিয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এর সাথে পত্র যোগাযোগ এবং দ্রুত সময়ে সমস্যা সমাধান। সিএন্ডএফ এজেন্ট প্রতিষ্ঠানের স্বার্থবিরোধী ও সাংঘর্ষিক বিধি বাতিল করে নতুন সংসোধিত সিএন্ডএফ এজেন্ট লাইসেন্সিং বিধিমালা প্রণয়নে মিজান-লাভলু-বাশার পরিষদ তথা বেলায়েত হোসেনের ভূমিকা অপরিসীম।

এছাড়াও করোনাকালেও এই পরিষদ নানা ধরণের সেবামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে জনসেবায় অবদান রেখেছে এবারের ত্রি-বার্ষিক কার্যকরী পরিষদ নির্বাচনে। মিজান-লাভলু-বাশার পরিষদ জয়ের জন্য বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। যেগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য, এক্সপোর্টের মতো কুরিয়ার সার্ভিসেস, গেইট-1 ও গেইট-বি এর কার্যক্রম সহজীকরণের জন্য প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

কাস্টম হাউস, ঢাকায় সিএন্ডএফ এজেন্ট ও তাদের প্রতিনিধিদের কে যাতে অযথা হয়রানি না করতে পারে তা নিশ্চিত করা হবে। কাস্টমস কর্তৃপক্ষের ছোট-খাটো বিষয়ে লাইসেন্স বন্ধের হুমকি ও আমদানিকারকের ভুলের কারণে সিএন্ডএফ এজেন্ট প্রতিষ্ঠানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি বন্ধের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে