রোববার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

অষ্টম শ্রেণির পড়াশোনা

সুধীরবরণ মাঝি, শিক্ষক, হাইমচর সরকারি মহাবিদ্যালয়, হাইমচর, চাঁদপুর
  ৩১ মে ২০২৩, ০০:০০

পঞ্চম অধ্যায়

৫। গ্রামের স্কুলের সুমন একজন মেধাবী ছাত্র। সে শ্রেণিতে খুবই মনোযোগী। সহপাঠীদের সঙ্গে তার ভালো সম্পর্ক রয়েছে। পিতা-মাতা তাকে ধৈর্য ধরা ও আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে উদ্বুদ্ধ করেন। শিক্ষকরা অন্য শিক্ষার্থীদের সুমনের আচরণ অনুসরণ করতে বলেন। সুমনের বাল্যবন্ধু টিটু ঢাকার একটি স্কুলের ছাত্র। মাঝেমধ্যে তাদের মধ্যে মোবাইলে কথা হয়।

ক) ই-কর্মাস কী?

খ) পৃথিবীব্যাপী যোগাযোগ ব্যবস্থায় যুগান্তকারী সামাজিক মাধ্যমটি ব্যাখ্যা করো।

গ) সুমনকে সামজিক মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে সবচেয়ে কার্যকর প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা ব্যাখ্যা করো।

ঘ) সামাজিক মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে সুমন ও টিটু ভিন্ন পরিবেশ দ্বারা প্রভাবিত- যুক্তি দাও।

উত্তর :

ক) ইলেকট্রনিক কর্মাসকে সংক্ষেপে ই-কর্মাস বলে।

খ) পৃথিবীব্যাপী যোগাযোগ ব্যবস্থায় যুগান্তকারী সামাজিক মাধ্যমটি হলো ই-মেইল। ই-মেইল হচ্ছে ইলেকট্রনিক মেইলের সংক্ষিপ্ত রূপ। এর মাধ্যমে খুব অল্প সময়ে এবং খুব কম খরচে সহজে দেশে-বিদেশে চিঠি ও তথ্য আদান-প্রদান করা যায়। এর ফলে বিশ্বের যোগাযোগ ব্যবস্থায় বৈপস্নবিক পরিবর্তন সাধিত হয়েছে।

গ) সুমনকে সামাজিক মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে সবচেয়ে কার্যকর প্রতিষ্ঠান হলো পরিবার। সামাজিকীকরণের প্রথম এবং প্রধান বাহন হলো পরিবার। পরিবারে বাস করতে গিয়ে শিশু পরিবারের সদস্যদের প্রতি আবেগ, অনুভূতি, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জাগিয়ে তোলে। খাদ্যাভ্যাস, পোশাক-পরিচ্ছদ, ধর্মচর্চা, শিক্ষা গ্রহণ, ইত্যাদি বিষয়গুলো সম্পর্কে পারিবারিক সংস্কৃতির প্রতিফলন ব্যক্তির ওপর সরাসরি পড়ে। বস্তুত সামজিকীকরণের সর্বাপেক্ষা শক্তিশালী মাধ্যম হচ্ছে পরিবার। কেননা পরিবারের মা-বাবা ও অন্য সদস্যরা শিশুকে যেভাবে গড়ে তোলেন শিশুরা সেভাবেই গড়ে ওঠে। উদ্দীপকের সুমনের ক্ষেত্রেও তাই দেখা যায়।

\হউদ্দীপকের মেধাবী ছাত্র সুমন। সে শ্রেণিতে খুবই মনোযোগী। সহপাঠীদের সঙ্গে তার ভালো সম্পর্ক রয়েছে। পিতা-মাতা তাকে ধৈর্য ধরা ও আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে উদ্বুদ্ধ করেন। শিক্ষকরা অন্য শিক্ষার্থীদের সুমনের আচরণ অনুসরণ করতে বলেন অর্থাৎ সুমনের সামাজিকীকরণে পরিবার, বিদ্যালয় ও সহপাঠীরা ভূমিকা পালন রাখছে। তবে এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কার্যকর ভূমিকা পালন করছে পরিবার।

ঘ) সামাজিক মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে সুমন গ্রামের পরিবেশ ও টিটু শহরের পরিবেশ দ্বারা প্রভাবিত। গ্রাম ও শহর নিয়েই বাংলাদেশের সমাজব্যবস্থা। এ দেশের অধিকাংশ মানুষের সামাজিকীকরণ হয় গ্রামীণ পরিবেশে। এ দেশের গ্রাম ও শহরের পারিবারিক কাঠামোর পার্থক্যের কারণে শিশুর সামাজিকীকরণও ভিন্ন হয়। উদ্দীপকেও আমরা তাই দেখতে পাই। উদ্দীপকের সুমন গ্রামীণ পরিবেশে বাস করে। গ্রামীণ পরিবেশে সে নিজের পরিবার এবং আত্মীয়-স্বজনের মধ্যে বেড়ে উঠেছে। এতে পরিবারের সদস্যদের আচার-আচরণের সঙ্গে তার আচরণের পারস্পরিক ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া ঘটছে। এর মাধ্যমে সে সহযোগিতা, সহিষ্ণুতা, শ্রদ্ধাবোধ প্রভৃতি গুণাবলি অর্জন করেছে। অন্যদিকে তার বন্ধু টিটু ঢাকা শহরে বাস করে। সে একক পরিবারে বেড়ে উঠেছে। কেননা শহরের অধিকাংশ শিশু একক পরিবারে বেড়ে ওঠে। আর শহরের পরিবারের শিশুর সামাজিকীকরণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও গণমাধ্যমই সবচেয়ে কার্যকর ভূমিকা পালন করে। উদ্দীপকের টিটুর ক্ষেত্রেও তাই ঘটেছে।

উপরের আলোচনা থেকে তাই বলা যায়, উদ্দীপকে সুমন ও টিটু যথাক্রমে গ্রাম ও শহরে বাস করায় সামাজিক মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে তারা ভিন্ন ভিন্ন পরিবেশ দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে।

৬। ৭ বছর বয়সি বিহনের বাবা-মা দুজনই চিত্রশিল্পী। বিহনের জন্য তারা প্রায় বিভিন্ন খেলনা, কার্টুন ছবি ও স্টিকার কেনেন। বিহন টিভিতে নিয়মিত কার্টুন ছবি দেখে। একদিন হঠাৎ বিহন নিজেকে ব্যাটম্যান সাজিয়ে মা-বাবাকে চমকে দেয়।

ক) কে সহজেই অন্যদের দ্বারা প্রভাবিত হয়?

খ) অভিভাবন বলতে কী বোঝায়?

গ) বিহনের ব্যাটম্যান সাজাটা সামাজিকীকরণের কোন উপাদানের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ রয়েছে? ব্যাখ্যা করো।

ঘ) বাবা-মায়ের ধ্যান-ধারণাই বিহনের মধ্যে প্রতিফলিত হয়েছে- যুক্তি দাও।

উত্তর :

ক) শিশুরা সহজেই অন্যদের দ্বারা প্রভাবিত হয়।

খ) অভিভাবন বলতে যোগাযোগের মাধ্যম বা প্রক্রিয়াকে বোঝায়।

যে প্রক্রিয়ায় ব্যক্তি নিজের ধ্যান-ধারণা অপরের মধ্যে প্রবেশ করানোর পাশাপাশি অন্যের আচার-আচরণ ও কাজকর্মকে নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী পরিচালিত করে তাকে অভিভাবন বলে। এ প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন ধরনের তথ্য অন্যের কাছে পৌঁছে দেওয়া যায়।

গ) বিহনের ব্যাটম্যান সাজাটা সামাজিকীকরণের অঙ্গীভূতকরণ উপাদানের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ।

শিশু শৈশবে সচেতনভাবে বা সজ্ঞানে কিছুই করে না। কিন্তু বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে জ্ঞান-বুদ্ধি দিয়ে কোন জিনিস তার প্রয়োজন তা সে বুঝতে পারে এবং ওই জিনিসগুলো তার অঙ্গীভূতকরণের বিষয়ে পরিণত হয়। এভাবে শিশু বিভিন্ন খেলনা, ছবি ও ছড়ার বই প্রভৃতি অঙ্গীভূত করে নেয় যা বিনোদনে কাজে লাগে। একই সঙ্গে সে বাবা-মা ও পরিবারের অন্যদের স্পাইডারম্যান কিংবা ব্যাটম্যান সেজে চমকে দিতে পছন্দ করে। অঙ্গীভূতকরণের এই প্রক্রিয়া ও প্রবণতার পরিধি ক্রমেই প্রসারিত হতে থাকে।

উদ্দীপকের বিহনের মা-বাবা তার জন্য বিভিন্ন খেলনা, কার্টুন ছবি ও স্টিকার কেনেন। বিহন টিভিতে নিয়মিত কার্টুন ছবি দেখে। এগুলো ধীরে ধীরে তার অঙ্গীভূতকরণের বিষয়ে পরিণত হয়। তাই বিহনের ব্যাটম্যান সেজে মা-বাবাকে চমকে দেওয়ার ঘটনাটিতে অঙ্গীভূতকরণের বিষয়টির প্রভাব সুস্পষ্ট।

ঘ) উদ্দীপকে বাবা-মায়ের ধ্যান-ধারণাই বিহনের মধ্যে প্রতিফলিত হয়েছে। মা-বাবা যে বিষয়গুলোর সঙ্গে বিহনের মধ্যে যে বিষয়গুলোর সংশ্লিষ্টতা ঘটিয়েছেন বিহনের মধ্যে সেই বিয়ষগুলো ফুটে উঠেছে। শিশুরা অনুকরণপ্রিয়। তারা যে পরিবেশে বড় হয়, সেই পরিবেশেরই রীতিনীতি, আচার-আচরণ ও প্রথা আত্মস্থ করে। আর শিশুর অনুকরণপ্রিয়তার পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে বাবা-মা'সহ টেলিভিশনে প্রচারিত নানা অনুষ্ঠান যা শিশুকে আকর্ষণ করে। উদ্দীপকের বিহনের বাবা-মা বাবা-মা দুজনই চিত্রশিল্পী। বিহনের জন্য তারা প্রায় বিভিন্ন খেলনা, কার্টুন ছবি ও স্টিকার কেনেন। তারা বিহনকে টিভিতে নিয়মিত কার্টুন ছবি দেখার সুযোগ দেন। বিহন এসব বিষয় অনুকরণ করার ফলে তার মধ্যে উক্ত বিষয়গুলোরই প্রতিফলন ঘটেছে। অর্থাৎ প্রকারান্তে বাবা-মায়ের ধ্যান-ধারণাই বিহনের মধ্যে প্রতিফলিত হয়েছে।

উপরের আলোচনা থেকে আমরা বলতে পারি বাবা-মা যে ধরনের ধ্যান-ধারণা লালন-পালন করেন তাই তার সাত বছর বয়সি সন্তান বিহনের মধ্যে প্রতিফলিত হয়েছে।

হ পরবর্তী অংশ আগামী সংখ্যায়

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে