মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১

পঞ্চম শ্রেণির বাংলা

রোমানা হাবিব চৌধুরী, সহকারী শিক্ষক, ব্রাইট ফোর টিউটোরিয়াল হোম, চট্টগ্রাম
  ১৬ জুন ২০২৪, ০০:০০
পঞ্চম শ্রেণির বাংলা

নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৩ ও ৪ ক্রমিকের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখো :

খেলাধুলা শরীর ও মনের উৎকর্ষ সাধন করে। সুস্থ, সবল, হাসিখুশি জীবন গঠনে খেলাধুলার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। সারা দুনিয়ায় খেলাধুলার অনেক সমাদার। আবহাওয়া, জলবায়ু ও ঐতিহ্যতগত কারণে প্রতিটি দেশের খেলাধুলার নিজস্ব কিছু বৈশিষ্ট্য থাকে। বাংলাদেশের আবহাওয়া ও জলবায়ু উপযোগী অত্যন্ত জনপ্রিয় খেলা হচ্ছে হা-ডু-ডু। যখন এ দেশে ক্রিকেট, ফুটবল বা হকি খেলার প্রচলন ছিল না, তখন হা-ডু-ডু ছিল সর্বাধিক প্রচলিত জাতীয় খেলা। আমাদের জাতীয় খেলা হা-ডু-ডু, এর অন্য নাম কাবাডি। হা-ডু-ডু বা কাবাডি বাংলাদেশের নিজস্ব ঐতিহ্যবাহী একটি গ্রামীণ খেলা। কেউ কেউ মনে করেন এই খেলার জন্ম ফরিদপুরে। কেউ কেউ এর উৎপত্তিস্থল বরিশাল বলে থাকেন। তবে বাংলাদেশের সর্বত্র এই খেলার প্রচলন আছে।

৩. নিচে কয়েকটি শব্দ ও শব্দার্থ দেওয়া হলো। উপযুক্ত শব্দটি বাছাই করে নিচের বাক্যগুলোর শূন্যস্থান পূরণ করে উত্তরপত্র লেখো।

শব্দ শব্দার্থ

সর্বত্র সবখানে

উৎকর্ষ শ্রেষ্ঠত্ব

নিজস্ব আপন

সর্বাধিক সবচেয়ে বেশি

সবল শক্তিশালী

প্রচলন চালু করা

ক. সুস্থ সবল না হলে ভালো খেলোয়াড় হওয়া যায় না।

খ. আমাদের গ্রামে হা-ডু-ডু খেলার প্রচলন আছে।

গ. খেলাধুলার করলে শরীর ও মনের উৎকর্ষ সাধিত হয়।

ঘ. হা-ডু-ডু এক সময় র্সবাধিক জনপ্রিয় খেলা ছিল।

ঙ. বাংলাদেশের সর্বত্র ক্রিকেট খেলা শুরু হয়েছে।

৪. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখো :

ক. খেলাধুলা আমাদের কিসের উৎকর্ষ সাধন করে? খেলাধুলা কোন কোন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে তা চারটি বাক্য লেখো।

উত্তর : খেলাধুলা আমাদের শরীর ও মনের উৎকর্ষ সাধন করে। নিয়মিত খেলাধুলা করলে আমাদের শরীর ও মনের পরিপূর্ণ বিকাশ ঘটে। মনে আনন্দ যোগায়। অবসাদ দূর করতে খেলাধুলা অতুলনীয়। সুষ্ঠুভাবে বেড়ে ওঠার জন্য পর্যাপ্ত খেলাধুলার গুরুত্ব অপরিসীম।

খ. কোনো দেশের খেলাধুলার নিজস্ব বৈশিষ্ট্য তৈরি হয় কোন কারণে? হা-ডু-ডু সম্পর্কে তিনটি বাক্য লেখো।

উত্তর : আবহওয়া ও জলবায়ুর কারণে কোনো দেশের খেলাধুলার নিজস্ব বৈশিষ্ট্য তৈরি হয়। এ ছাড়াও ঐতিহ্যগত কারণে প্রতিটি দেশের খেলাধুলার নিজস্ব বৈশিষ্ট্য তৈরি হয়। আমাদের জাতীয় খেলা হা-ডু-ডু।

সাধারণত জাতীয় নানা উৎসবে হা-ডু-ডু খেলার আয়োজন হয়ে থাকে। হা-ডু-ডু বিভিন্ন স্থানে কাবাডি ও ছি-খেলা নামে পরিচিত।

গ. হা-ডু-ডু খেলার জন্ম কোথায়? কখন বাংলাদেশে সর্বাধিক প্রচলিত ছিল তা তিনটি বাক্য লেখো।

উত্তর : হা-ডু-ডু খেলার জন্ম ফরিদপুরে। অনেকে বরিশালকে হা-ডু-ডুর জন্মস্থান বলে থাকে। যখন এ দেশে ক্রিকেট, ফুটবল বা হকি খেলার প্রচলন ছিল না, তখন হা-ডু-ডু ছিল সর্বাধিক প্রচলিত খেলা। হা-ডু-ডু বাংলাদেশের নিজস্ব ঐতিহ্যবাহী একটি গ্রামীণ খেলা। বাংলাদেশের সর্বত্র এই খেলার প্রচলন আছে।

নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৩ ও ৪ ক্রমিকের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখো :

গাছপালা আমাদের পরম বন্ধু। গাছপালা ছাড়া পৃথিবীতে আমাদের জীবন অচল। বাতাসে শ্বাস নিতে না পারলে আমাদের মৃতু্য অনিবার্য। বাতাস থেকে অক্সিজেন নিয়ে আমরা বাঁচি। নিঃশ্বাসের সঙ্গে আমরা কার্বন-ডাই-অক্সাইড নামে বিষাক্ত গ্যাস বাতাসে ছাড়ি। অন্যদিকে গাছপালা বাতাস থেকে কার্বন-ডাই-অক্সাইড গ্রহণ করে ও বাতাসে অক্সিজেন ছাড়ে। গাছপালা না থাকলে এক সময় বাতাসের অক্সিজেন শেষ হয়ে যেত। গাছপালা থেকে আমরা আম, জাম, কাঁঠাল ইত্যাদি ফল পায় এবং চাল, ডাল, গম, যব ইত্যাদি খাদ্যশস্য পাই। এ ছাড়া বিভিন্ন রকম মসলা, তেল, চিনি বা শর্করা জাতীয় খাদ্য এবং প্রয়োজনীয় জ্বালানিও আমরা গাছ থেকে পাই। তাই বেশি বেশি গাছ লাগাতে হবে।

৩. নিচে কয়েকটি শব্দ ও শব্দার্থ দেওয়া হলো। উপযুক্ত শব্দটি বাছাই করে নিচের বাক্যগুলোর শূন্যস্থান পূরণ করে উত্তরপত্র লেখো।

শব্দ শব্দার্থ

অক্সিজেন অমস্নজান

অচল চলে না

গ্রহণ নেওয়া

বিষাক্ত বিষযুক্ত

জ্বালানি যা পুড়িয়ে রান্না করা হয়

ক. কার্বন-ডাই-অক্সাইড বিষাক্ত গ্যাস।

খ. বাতাস থেকে অক্সিজেন নিয়ে আমরা বাঁচি।

গ. গাছ থেকে আমরা প্রয়োজনীয় জ্বালানি পাই।

ঘ. গাছপালা বাতাস থেকে কার্বন-ডাই-অক্সাইড গ্রহণ করে।

ঙ. গাছপালা ছাড়া আমাদের জীবন অচল।

হ পরবর্তী অংশ আগামী সংখ্যায়

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে