প্রদশের্নর উপযোগী নয় ‘শনিবার বিকেল’!

প্রদশের্নর উপযোগী নয়  ‘শনিবার বিকেল’!
‘শনিবার বিকেল’ ছবির একটি দৃশ্যে তিশা

বিনোদন রিপোটর্

প্রদশের্নর জন্য সবুজ সংকেত পেয়েও নিষিদ্ধ করা হলো জাহিদ হাসান-তিশা অভিনীত ‘শনিবার বিকেল’ ছবিটি। যদিও এখন পযর্ন্ত এটাকে পুরোপুরি নিষিদ্ধ বলতে চাচ্ছেন না সেন্সরবোডর্ কতৃর্পক্ষ। তবে ছবিটি প্রদশের্নর উপযোগী নয় বলে জানিয়েছেন সেন্সর বোডের্র সদস্য ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ। তিনি বলেন, ‘ছবিটিকে নিষিদ্ধও বলা যেতে পারে। এ ব্যাপারে সেন্সর বোডের্র চেয়ারম্যান আরও ভালো বলতে পারবেন। আমি এটুকু বলতে পারি, ছবিটি প্রদশির্ত হলে দেশের ভাবমূতির্ নষ্ট হবে।’

সেন্সরবোডর্ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৫ জানুয়ারি দ্বিতীয়বারের মতো ‘শনিবার বিকেল’ ছবিটি প্রদশের্নর আয়োজন করে সেন্সর বোডর্। দ্বিতীয়বার ছবিটি দেখার সময় সচিবসহ সেন্সর বোডের্র প্রায় সবাই উপস্থিত ছিলেন।

ছবির ছাড়পত্র না দেয়া বিষয়ে নওশাদ জানান, ছবি প্রদশর্নী শেষে সবর্সম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, ‘শনিবার বিকেল’ মুক্তি পেলে দেশের ভাবমূতির্ ক্ষুণœ হবে। সেজন্য সেন্সর ছাড়পত্র স্থগিত করাসহ ছবিটি বাংলাদেশে মুক্তি না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আগামীকাল রোববার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে ছবিটির বিষয়ে।

এদিকে সেন্সরবোডের্র এমন সিদ্ধান্তে বিষ্ময় প্রকাশ করেছেন ছবিটির নিমার্তা মোস্তাফা সরয়ার ফারুকী। তিনি বলেন, ‘প্রশংসা করে ছাড়পত্র দেয়ার পর কীভাবে এটাকে নিষিদ্ধ করা হয়! আমরা ছবিটির ট্রেইলার নিমাের্ণর প্রস্ততি নিচ্ছি। কিন্তু এখন যদি এ ধরনের সিদ্ধান্ত হয়, তাহলে বলতে হয়, কত রকম সিদ্ধান্তই তো হতে পারে।’ ফারুকী আরও বলেন, ‘কি কারণে এমন সিদ্ধান্ত নেবে সেন্সর বোডর্, তার ব্যাখ্যা দিতে হবে তাদের।’

ফারুকীর বক্তব্যের প্রেক্ষিতে নেওশাদ বলেন, ‘প্রশংসা করা হয়নি। সে ভালো সিনেমা বানিয়েছে এটা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। ভালো সিনেমা মানে এর নিমার্ণ ভালো সেটা বলা হয়েছিল। সেন্সর বোডর্ সচিব প্রথমবার ছবিটি দেখে একটা নোট দিয়েছিলেন। তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব না দেখা পযর্ন্ত ছবিটি পাশ না করাতে বলেছিলেন তিনি। পরে তথ্য সচিব আবদুল মালেক ছবিটি দেখেন। সেসময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিবও তার সঙ্গে ছিলেন। তখন ছবিটি আটকানোর পক্ষে সবেই মত প্রদান করেন। কারণ বোডর্ মনে করছে, ভুলে যাওয়া একটি বিয়োগান্তক ঘটনা নতুন করে মনে করিয়ে দেয়াটা ঠিক হবে না। এতে দেশের ভাবমূতির্ নষ্ট হতে পারে।’

জানা গেছে, হলি আটির্জান রেঁস্তোরায় ঘটে যাওয়া মমাির্ন্তক সন্ত্রাসবাদের ঘটনা নিয়ে নিমির্ত হয়েছে ‘শনিবার বিকেলে’। তবে বিষয়টি গণমাধ্যমের কাছে এখনো পযর্ন্ত স্বীকার করেননি পরিচালক ফারুকী।

বাংলাদেশ-ভারত-জামার্ন এই তিনদেশের যৌথ প্রযোজনায় নিমির্ত হয়েছে ‘শনিবার বিকেল’। বাংলা ছাড়াও ইংরেজি ভাষাতেও দেখানো হবে ছবিটি। ছবিতে অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, পরমব্রত, তিশা এবং অস্কারে মনোনয়ন পাওয়া ফিলিস্তিনি অভিনেতা ইয়াদ হুরানি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে