রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

নেত্রকোনা সদর উপজেলা পরিষদ উপনির্বাচনে একাধিক প্রার্থী

ম স্টাফ রিপোর্টার, নেত্রকোনা
  ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:০০
নেত্রকোনা সদর উপজেলা পরিষদের ২ নভেম্বর আসন্ন উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার আশায় একাধিক প্রার্থী মাঠে নেমেছেন। সম্ভাব্য প্রার্থীরা সকাল থেকে রাত পর্যন্ত উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সঙ্গে জনসংযোগসহ মতবিনিময় সভা চালিয়ে যাচ্ছেন। আসন্ন উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের মধ্যে সদর উপজেলা পরিষদের টানা তিনবার নির্বাচিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেত্রী তুহিন আক্তার, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউর রহমান মানিক, জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক মো. মজিবুল আলম ফারাস হীরা, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান খান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মারুফ হাসান খান অভ্র, জেলা যুব মহিলা লীগ সম্পাদক ও জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সৈয়দা শামছুন্নাহার বিউটিসহ কয়েকজন প্রার্থী ব্যাপকভাবে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। মনোনয়নপ্রত্যাশী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য তুহিন আক্তার বিগত ২০০৯ এবং ২০১৪ সালের সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে প্রায় ৪০ হাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী ও ২০১৯ সালে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় তিনি পুনরায় নির্বাচিত হন। তুহিন আক্তার প্রায় ১৪ বছর ধরে সদর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকার সার্বিক উন্নয়ন কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। মনোনয়নপ্রত্যাশী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউর রহমান মানিক ১৯৮১-৮২ সালে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হন। ২০০৪ সাল থেকে অদ্যাবধি জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ২০০৯ সালে সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন। মনোনয়নপ্রত্যাশী জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক মজিবুল আলম ফারাস হীরা ১৯৮৯ সাল থেকে ছাত্রলীগের হয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৯০ সালে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম সাবেক ছাত্রনেতা হীরা বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের শাসনামলে একাধিকবার হামলা, মামলাসহ নির্যাতনের শিকার হন। আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি সমৃদ্ধ সদর উপজেলা পরিষদ বির্নিমাণের লক্ষ্যে হীরার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। মনোনয়নপ্রত্যাশী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক হাফিজুর রহমান খান জেলা আওয়ামী লীগের টানা ৩০ বছরের সভাপতি ও সদর আসনের তিনবারের নির্বাচিত এমপি মরহুম ফজলুর রহমান খানের সহোদর। হাফিজুর রহমান খান ১৯৭৮ সাল থেকে নেত্রকোনা সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সঙ্গে ছিলেন। ১৯৯৫ সালে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক, ১৯৯৮ সালে জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক, ২০১৭ সালে জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। মনোনয়নপ্রত্যাশী জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মারুফ হাসান খান অভ্র মরহুম অধ্যাপক তফসির উদ্দিন খানের সন্তান। তিনি ১৯৯১ সালে নেত্রকোনা সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের (নেকসু) নির্বাচিত ছাত্র মিলনায়তন সম্পাদক হন। ২০১৫ সাল থেকে অদ্যাবধি জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সফল সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত ১ মার্চ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে মারুফ হাসান খান অভ্র সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। মরহুম পিতা অধ্যাপক তফসির উদ্দিন খানের রেখে যাওয়া অসম্পন্ন কাজগুলো সম্পন্ন করার লক্ষ্যে মারুফ হাসান খান অভ্র সবার সহযোগিতা প্রার্থনা করেছেন।
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে