বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০
walton

হরিণাকুন্ডেতে মানসিক প্রতিবন্ধী নাতির হাতে দাদি খুন

পাঁচ জেলায় ৫ মরদেহ উদ্ধার
স্বদেশ ডেস্ক
  ০৪ মার্চ ২০২৩, ০০:০০

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে মানসিক প্রতিবন্ধী নাতির হাতে দাদি খুন হয়েছে। ঢাকার ধামরাইয়ে ভুট্টা ক্ষেতে মরদেহ, ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত ব্যক্তি, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে কীটনাশক পানে মায়ের মৃতু্য, ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে মাদ্রাসা ছাত্রের আত্মহত্যা ও মাদারীপুরের শিবচরে ইতালি প্রবাসীর স্ত্রীর মুখ বাঁধা বিবস্ত্র মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

হরিণাকুন্ডু (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি জানান, ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে মানসিক প্রতিবন্ধী মান্নান (৩৫) নামে এক নাতির হাতে রুশিয়া বেগম (৮৫) নামে এক বৃদ্ধ দাদি খুন হয়েছেন। শুক্রবার রাতে উপজেলার ফলসী ইউনিয়নের বলরামপুর গ্রামের মাঠপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রুশিয়া বেগম ওই এলাকার মৃত মনির উদ্দীনের স্ত্রী। ঘাতক মান্নানের বাবার নাম ফজলুর রহমান।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মান্নান একজন মানসিক প্রতিবন্ধী। গত বৃহস্পতিবার রাতে তিনি দা, লাঠি নিয়ে বাড়ির সবাইকে মারতে ক্ষিপ্ত হয়। ওই সময় বাড়ির সবাই বাড়ি থেকে দূরে চলে যায়। পরে শুক্রবার রাতে মান্নানের দাদি রুশিয়া বেগম বাসায় ফিরে আসার সঙ্গে সঙ্গে মান্নান তার হাতে থাকা হাতুড়ি, পস্নাস এবং রাজমিস্ত্রির কাজে ব্যবহৃত খুনতি দিয়ে রুশিয়া বেগমের মাথায় উপর্যপুরি গুরুতর আঘাত করে। অতিরিক্ত আঘাতের ফলে মাথায় রক্তক্ষরণ হয়ে রুশিয়া বেগম ঘটনাস্থলেই মৃতু্যবরণ করেন। পরে গ্রামবাসী মান্নানকে আমগাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে থানা পুলিশকে খবর দেয়।

হরিণাকুন্ডু থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আক্তারুজ্জামান লিটন জানান, সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় আব্দুল মান্নানকে আটক করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে।

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি জানান, ঢাকার ধামরাইয়ের কুশুরা রাধারনগর এলাকার একটি ভুট্টা ক্ষেত থেকে নিখোঁজ হওয়া লিটনের (৩৫) মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। নিহত লিটন কুশুরা ইউনিয়নের নবগ্রাম এলাকার বাদশা মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, ধামরাইয়ের নবগ্রাম এলাকার লিটন বৃহস্পতিবার সন্ধায় বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়িতে ফেরেনি। রাতেই পরিবারের লোকজন অনেক খোঁজাখুঁজি করে। কিন্তু কোথাও তার খোঁজ পায়নি। শুক্রবার সকালে কুশুরার রাধানগর এলাকার একটি ভুট্টা ক্ষেতে তার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী ধামরাই থানা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে। পুলিশ জানিয়েছে লাশ উদ্ধারের সময় তার নাক ও গান দিয়ে রক্ত বের হয়েছিল। এ ছাড়া লাশের গায়ে কোনো আঘাতের চিহ্ন নাই।

ধামরাইয়ের কাওয়ালিপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই আলামিন জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে ঢাকাগামী বলাকা ট্রেনের ধাক্কায় এক অজ্ঞাত ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিকালে ময়মনসিংহ-ঢাকা রেলপথে ধলা-গফরগাঁও স্টেশনে মধ্যস্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানান গফরগাঁও জিআরপি পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই রফিকুল ইসলাম। পথচারীরা গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্বার করে গফরগাঁও হাসপাতালে নেওয়ার পর সে মারা যায়। তিনি আরও জানান, রেলওয়ে পুলিশ হাসপাতাল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে জেলা মর্গে পাঠাবে। আনুমানিক ৬৫ বছর বয়সি নিহত ওই ব্যক্তির পরিচয় পাওয়া যায়নি। পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে।

সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে ছেলের সঙ্গে অভিমান করে কীটনাশক পান করে জুলেখা বেগম (৪৫) নামে এক মা আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে। বুধবার দুপুরে উপজেলার সনমান্দি ইউনিয়নের ফতেহপুর এলাকার শাহজাহান মিয়ার স্ত্রীর তার বড় ছেলে আমিনুল ইসলামের সঙ্গে কথা কাটাকাটি করে। পরে কাউকে কিছু না বলে ঘরে থাকা কীটনাশক পান করলে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। বুঝতে পেরে জুলেখা বেগমকে রাতে অসুস্থ অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সোনারগাঁও থানার ওসি মাহবুব আলম সুমন বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পরে লাশটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ বিষয়ে অপমৃতু্য মামলার প্রস্তুতি চলছে।

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে রাহাত (১৪) নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে পৌর শহরের ৮নং ওয়ার্ডে মাজার বাড়ি এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। উপজেলার আঠারদানা গ্রামের কুয়েত প্রবাস ফরিদুল ইসলাম সিব্বিরের ছেলে রাহাত ময়মনসিংহ শহরের পলিটেকনিক্যাল এলাকার একটি মাদ্রাসা থেকে সম্প্রতি হাফেজি পাস করে।

গফরগাঁও থানার ওসি ফারুক আহাম্মেদ বলেন, নিহতের স্বজনদের আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি জানান, মাদারীপুরের শিবচরে বসতঘর থেকে আকলিমা আক্তার (৩০) নামে এক ইতালি প্রবাসীর স্ত্রীর মুখ বাঁধা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার সকালে উপজেলার বহেরাতলা উত্তর ইউনিয়নের ভেন্নাতলা এলাকা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। নিহত আকলিমা একই এলাকার শাহআলম ফকিরের স্ত্রী। তিনি এক সন্তানের জননী।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বহেরাতলা উত্তর ইউনিয়নের ভেন্নাতলা এলাকার ইতালি প্রবাসী শাহ আলম ফকিরের স্ত্রী আকলিমা আক্তার তার একমাত্র মেয়ে সাদিয়াকে নিয়ে বসবাস করত। শুক্রবার সকালে সাদিয়া ঘুম থেকে উঠে মাকে আরেকটি বিছানায় দেখতে পায়। এ সময় অনেকবার ডাকাডাকি করলেও ঘুম না ভাঙায় পাশের বাড়ির লোকদের ডেকে আনে। প্রতিবেশীরা এসে আকলিমার নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখে শিবচর থানায় খবর দেয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মুখ বাঁধা ও বিবস্ত্র অবস্থায় আকলিমার মরদেহ উদ্ধার করে।

শিবচর থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, আকলিমাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে