বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১

জুরাছড়িতে ডেঙ্গু ও ডায়রিয়ার হানা

ফরিদপুরে ডেঙ্গুতে প্রাণ গেল দুই গৃহবধূর
স্বদেশ ডেস্ক
  ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০০:০০
জুরাছড়িতে ডেঙ্গু ও ডায়রিয়ার হানা

রাঙামাটির জুরাছড়িতে ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দিয়েছে। একই সঙ্গে বৃদ্ধি পাচ্ছে ডায়রিয়া। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ফরিদপুরে ডেঙ্গুতে আরও দুই গৃহবধূর মৃতু্য হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে বিস্তারিত-

জুরাছড়ি (রাঙামাট) প্রতিনিধি জানান, জুরাছড়ি উপজেলায় ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। বৃদ্ধি পেয়েছে ডায়েরিয়ার রোগীও। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে ৫ জনকে পরীক্ষা করে তিনজনের ডেঙ্গু শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া বেড়েছে ডায়রিয়া।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি বেশ কিছু জ্বরের রোগী আউটডোরে। এর মধ্যে পাঁচজনকে ডেঙ্গু পরীক্ষা করা হলে তিনজন শনাক্ত হয়। তার মধ্যে একজনকে রাঙামাটিতে রেফার্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আবাসিক মেডিকেল অফিসার সহকারী সার্জন ডা. মো. ফয়সাল। এদিকে কাপ্তাই হ্রদে অতিরিক্ত পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় গত সোমবার থেকে ডায়রিয়া রোগী বৃদ্ধি পাচ্ছে জানান মেডিকেল অফিসার। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে ঘুরে দেখা গেছে, ১১টি বেডের মধ্যে ছয়জন ডায়েরিয়া আক্রান্ত রোগী। তাদের মধ্যে চারটি শিশু রয়েছে। বনযোগীছড়া ইউপি চেয়ারম্যান সন্তোষ বিকাশ চাকমা জানান, ইউনিয়নের বনযোগীছড়া, লক্ষিমেম্বারপাড়া, চেয়ারম্যানপাড়া, কুরোউত্তে ভিটা, চকপতিঘাট অধিকাংশ ঘরে ঘরে ডায়েরিযার প্রকোপ দেখা দিয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার অনন্যা চাকমা বলেন, কাপ্তাই হ্রদে হঠাৎ পানি বৃদ্ধি পেয়ে কুপের মধ্যে এসব পানি ঢুকছে। যার ফলে এসব কুপের পানি খেয়ে হয়তো ডায়রিয়া বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই, স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে সার্বক্ষণিক চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। ডেঙ্গু বৃদ্ধির বিষয়ে তিনি বলেন, যাদের ডেঙ্গু শনাক্ত করা হয়েছে- তারা সবাই রাঙামাটি, চট্টগ্রাম ও ঢাকা থেকে আসা। ধারণা করা হচ্ছে, তারা সেখাই আক্রান্ত হয়েছেন।

ফরিদপুর প্রতিনিধি জানান, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ফরিদপুরের সালথার দুই গৃহবধূ চিকিৎসাধীন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার ফরিদপুরের সিভিল সার্জন ডা. ছিদ্দীকুর রহমান ওই দুই গৃহবধূর মৃতু্যর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মারা যাওয়া দুই গৃহবধূ হলেন উপজেলার ফুলবাড়িয়া গ্রামের মজিবর মোল্যার স্ত্রী সালেহা বেগম (৬৫) ও একই উপজেলার গট্টি গ্রামের হাফিজুলের স্ত্রী তাসলিমা বেগম (১৮)।

সিভিল সার্জন ছিদ্দীকুর রহমান জানান, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে সালেহা বেগম নামে এক গৃহবধূ ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার ভোরে তার মৃতু্য হয়।

এছাড়া তাসলিমা নামে আরেক গৃহবধূ বুধবার রাত ২টার দিকে একই হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৮টার দিকে ওই গৃহবধূর মৃতু্য হয়।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে