রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯

ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে জেতাটা হবে অঘটন : সাকিব

ম ক্রীড়া প্রতিবেদক
  ০২ নভেম্বর ২০২২, ০০:০০
টি২০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলতে হলে উপমহাদেশের সেরা দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ভারত ও পাকিস্তানকে হারাতে হবে বাংলাদেশকে। সুপার টুয়েলভেও আর দুটি ম্যাচ বাকি আছে বাংলাদেশের। একটি ভারতের বিপক্ষে, আরেকটি পাকিস্তানের। সাকিব আল হাসানের মতে, এই দুই ম্যাচের যে কোনো একটিতে জেতা বিবেচিত হবে অঘটন হিসেবে। তবে সেটা করতে না পারলেও খুব বেশি কিছু বলার থাকবে না বলেই জানান টাইগার অধিনায়ক। বুধবার অ্যাডিলেড ওভালে টি২০ বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের দুই নম্বর গ্রম্নপের ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। দুই দলই তিন ম্যাচ খেলে হেরেছে একটি করে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। একই ভেনু্যতে আগামী ৬ নভেম্বর পাকিস্তানকে মোকাবিলা করবে তারা। তিন ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে সেমিফাইনালে যাওয়ার স্বপ্ন এখনো টিকে আছে টাইগারদের। তবে সেটা পূরণ করতে হলে সামনের দুই ম্যাচের অন্তত একটিতে জিততে হবে তাদের। পাশাপাশি তাকিয়ে থাকতে হবে এই গ্রম্নপের অন্যান্য ম্যাচের ফলগুলোর দিকে। ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামার আগের দিন মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে সাকিব জানান, বাকি থাকা দুই ম্যাচে ভালো খেলার লক্ষ্য বাংলাদেশের। তবে তারা কোনো ম্যাচ জিতে গেলে, সেটাকে ধরতে হবে অঘটন হিসেবে, 'পরবর্তী লক্ষ্য দুইটা ম্যাচ খুব ভালোভাবে খেলা। দুইটা ম্যাচের যদি কোনো ম্যাচ জিততে পারি, সেটা আপসেট (অঘটন) হিসেবেই গণ্য হবে। সেই আপসেটটা যদি আমরা করতে পারি, আমরা খুশি হবো। আর না করতে পারলেও আসলে খুব বেশি কিছু একটা বলার নেই।' বাস্তবতা মেনে বাঁহাতি তারকা অলরাউন্ডার সাকিব ভারত ও পাকিস্তানের শক্তির বিচারে এগিয়ে থাকার কথা জানান। আর অঘটন ঘটাতে তিনি অনুপ্রেরণা পাচ্ছেন আয়ারল্যান্ড ও জিম্বাবুয়ের কাছ থেকে, 'দুই দলই আপনি যদি কাগজে-কলমে দেখেন, আমাদের চেয়ে অবশ্যই ভালো দল। কিন্তু আমরা যদি ভালো খেলি, আমাদের যদি দিন থাকে, কেন জিততে পারব না? এই বিশ্বকাপে আমরা দেখেছি আয়ারল্যান্ড ইংল্যান্ডকে হারিয়েছে, পাকিস্তানকে জিম্বাবুয়ে হারিয়েছে। তাই অমন একটা ফল এলে অবশ্যই আমরা খুশি হবো।' অ্যাডিলেডে মেঘলা কন্ডিশনে বাড়তি সুবিধা পেতে পারেন পেসাররা। তবে অধিনায়ক সাকিব আল হাসান জানালেন, ভারতের তারকাখচিত ব্যাটিং লাইনআপের মোকাবিলায় চারজন ফাস্ট বোলার খেলানোর চিন্তা এখনো করেননি তিনি। বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, 'আমি আসলে এখনো চিন্তা করিনি সত্যি কথা বলতে। কোচের সঙ্গে কথা হয়েছে। কোচ কিছু চিন্তা-ভাবনা বলেছে কিংবা অন্যান্য আরও দুই-একজন বলেছে। কিন্তু আমি এখন পর্যন্ত ওভাবে কিছু চিন্তা করিনি। আমার কাছে মনে হয়, একটু অপেক্ষা করে চিন্তা করাটাই ভালো।' দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অফস্পিন অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজকে খেলিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ব্যাটে-বলে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়ে সেই সিদ্ধান্তকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছিলেন তিনি। অন্যদিকে, নেদারল্যান্ডস ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টাইগারদের জয় পাওয়া ম্যাচ দুটিতে খেলেছে একই দল। তাই উইনিং কম্বিনেশন ভাঙবেন কি না তা নিয়েও ভাবনায় আছেন সাকিব। বাঁহাতি তারকা অলরাউন্ডার বলেন, 'আসলে অনেক কিছুই মাথায় রাখতে হবে দল নির্বাচনের জন্য। আমি যেটা আগেও বলেছি, যে-ই দলই নির্বাচন করি, আমি আশাবাদী দল ভালো খেলবে। একটা জিনিস হচ্ছে, এমন একটা দল খেলেছে শেষ ম্যাচ, এই দলটা দুইটা ম্যাচ জিতেছে। (দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে) একটা কম্বিনেশন আমরা গড়েছি, সেইটা কাজে আসেনি। আমরা আবারও সেরকম কোনো কম্বিনেশন করব কি না সেটা চিন্তার বিষয়।' সাকিবের প্রত্যাশা, শেষ পর্যন্ত যে দলই নির্বাচন করা হবে, চেষ্টার কোনো কমতি থাকবে না ক্রিকেটারদের, 'অনেক যদিও কিন্তু, কী হবে না হবে, অনেক কিছুর প্রশ্ন আছে। এসব প্রশ্নের উত্তর বের করতে হবে। এরপর চিন্তা করে একটা সিদ্ধান্ত নিতে হবে। জরুরি নয় যে, চিন্তাটা করব বা যে সিদ্ধান্তটা নেওয়া হবে সঠিক হবে, কিন্তু সেটা পুরো দল সমর্থন করবে ও সবাই মাঠে তাদের শতভাগ দেওয়ার চেষ্টা করবে।' খুব আচমকাই বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব পান ভারতীয় কোচ শ্রীধরন শ্রীরাম। রাসেল ডমিঙ্গোর ক্রমাগত ব্যর্থতায় সর্বশেষ এশিয়া কাপের আগে উড়িয়ে আনা হয় শ্রীরামকে। এই ভারতীয় কোচকে দেওয়া হয় টাইগারদের টি২০'র টেকনিক্যাল কনসালটেন্টের পদ। সেই থেকে আড়াই মাস ধরে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে আছেন শ্রীরাম। এই সময়ের মধ্যে বাংলাদেশের টি২০ দলের কিছু দৃশ্যমান পরিবর্তন অবশ্য দেখা গেছে এই ভারতীয় কোচের হাত ধরে। দায়িত্ব নিয়েই শ্রীরাম জানিয়েছিলেন, পারফরম্যান্স নয়, ইন্টেন্ট এবং ইমপ্যাক্ট বিবেচনায় দল নির্বাচন করবেন তিনি। সেই ধারা তিনি বজায় রেখেছেন। তার অধীনেই বিশ্বকাপে ১৫ বছর পর প্রথম জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। এমনকি এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ৩ ম্যাচের ২টিতেই জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। তাই অধিনায়ক সাকিবেরও সমর্থন পাচ্ছেন শ্রীরাম। বিশ্বকাপের চিন্তায় দলে টানা হয়েছে এই ভারতীয় কোচকে। তবে শ্রীরামকে লম্বা সময়ের জন্যই চাচ্ছেন সাকিব। সাকিব শ্রীরামকে নিয়ে বলেন, 'আমি মনে করি তিনি ভালো করেছেন। উনি (শ্রীরাম) আসার পর কিছু নির্দিষ্ট পরিকল্পনার কথা বলেছেন, যেগুলো নিয়ে কাজ করতে চান। ছেলেদের সঙ্গে ভালো আছেন তিনি। তিনি যেভাবে কথা বলেন, ছেলেরা সেটি পছন্দ করে। তার কোচিংয়ে আমরা সম্ভবত ৫-৬টি (আসলে ১১) ম্যাচ খেলেছি। এই অল্প সময়ে আমি মনে করি, এই তরুণ দলের জন্য তিনি খুব ভালো করেছেন। আমি আশা করি, তিনি বাংলাদেশের সঙ্গে আরও কাজ করবেন।'
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে