logo
রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৫ আশ্বিন ১৪২৭

  অনলাইন ডেস্ক    ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

সংবাদ সংক্ষেপ

এসি মিলানে ফিরছেন ইব্রাহিমোভিচ!

ক্রীড়া ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ইউরোপে ফিরছেন জলাতান ইব্রাহিমোভিচ। যোগ দিতে যাচ্ছেন জায়ান্ট ক্লাব এসি মিলানে। এনিয়ে দু'পক্ষের মধ্যে চলছে এখন আলোচনা। মেজর সকার লিগের মৌসুম শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এলএ গ্যালাক্সির সঙ্গে চুক্তিও শেষ হয়েছে সুইডেনের সাবেক এ তারকা স্ট্রাইকারের। তাই ৩৮ বছরের এ মেগাস্টার খুঁজে ফিরছেন এখন নতুন ঠিকানা। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক এ তারকা ফুটবলারকে দলে টানতে অবশ্য আগ্রহী ইউরোপের অনেক ক্লাবই।

ইতালিয়ান গণমাধ্যমে জোর গুঞ্জন ইব্রাহিমোভিচ নিজের সাবেক ক্লাব মিলানেই যোগ দিতে যাচ্ছেন। যেখানে তিনি ২০১০ সাল থেকে কাটিয়েছেন। ৬১ লিগ ম্যাচ খেলে পেয়েছেন ৪২ গোলের দেখা।

মিলান ১৮তম ইতালিয়ান লিগ ট্রফি জেতে ২০১১ সালে। এর পর মেজর কোনো ট্রফি জেতা হয়নি তাদের। সাতবারের ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা আরও একটি হতাশাজনক মৌসুম শেষ করতে যাচ্ছে। চলতি মৌসুমে সিরিএ তে ১৭ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে ১১তম স্থানে পড়ে আছে তারা।

দলের বাজে অবস্থার কারণে অক্টোবরে চাকরি হারান কোচ মার্কো জিয়ামপাওলো। কিন্তু ক্লাবের পারফরম্যান্সে কোনো উন্নতির দেখা নেই। কোচ স্তেফানো পাইলির অধীনে ২২ ডিসেম্বর আটালান্টার মাঠে তারা উড়ে যায় ৫-০ গোলে। ২১ বছরের মধ্যে এটিই তাদের সবচেয়ে বড় ব্যবধানের হার।

এখন প্রশ্ন একটাই। এমন বাজে সময়ের বিরুদ্ধে লড়ে যাওয়া মিলানে ফিরবেন তো ইব্রাহিমোভিচ?

ত্রিশ বছর পর থামছেন লিয়ান্ডার পেজ

ক্রীড়া ডেস্ক

বয়সের সঙ্গে পালস্না দিয়েই খেলে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু আর কত? ৪৬ পেরিয়ে যাওয়া শরীর কিছুটা হলেও বিশ্রাম চায়। মন চাইলেও আর পেরে উঠছিলেন না লিয়ান্ডার পেজ। তাইতো ভারতীয় এই টেনিস কিংবদন্তি জানালেন- এবার থামবেন তিনি।

ভারতের ইতিহাসের সর্বকালের সেরা টেনিস তারকা সামনেই পূর্ণ করবেন পেশাদারি ক্যারিয়ারের ৩০ বছর। সেই অধ্যায় পূরণ করেই গুডবাই বলবেন লিয়ান্ডার পেজ। জানালেন, আসছে মৌসুমে কয়েকটি টুর্নামেন্ট খেলেই বিদায় জানাবেন টেনিস কোর্টকে।

লিয়ান্ডার পেজ বড়দিনের উৎসব আমেজে জানালেন, 'পেশাদার টেনিস খেলোয়াড় হিসেবে ২০২০ সালই আমার শেষ মৌসুম। আমি যে জায়গায় আছি তার পুরো কৃতিত্ব আপনাদের। আপনারা আমাকে সবসময় প্রেরণা দিয়ে এসেছেন। তাই আমি তাদের বলতে চাই, ধন্যবাদ। একইসঙ্গে বাবা-মাকে ধন্যবাদ দিতে চাই। তাদের থেকে খেলোয়াড় হওয়ার জিন পেয়েছি। যে পরিবেশ তারা তৈরি করে দিয়েছেন, নিঃশর্তভাবে ভালোবেসেছেন, তার জন্য তাদের ধন্যবাদ।'

১৯৯১ সালে পেশাদার টেনিসে পথচলা শুরু লিয়ান্ডার পেজের। ১৯৯২ অলিম্পিকে রমেশ কৃষ্ণণের সঙ্গে জুটি বেঁধে ডাবলসের কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে আলোচিত হন তিনি। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। ১৯৯৬ অলিম্পিক এককে ব্রোঞ্জ জেতেন লিয়ান্ডার।

১৯৫২ সালের পর ভারত আবার অলিম্পিকের ব্যক্তিগত বিভাগে পদক জেতে তার সাফল্যে।

সব মিলিয়ে ১৮টি গ্র্যান্ড স্স্ন্যাম খেতাব জিতেছেন লিয়ান্ডার। অর্জনেও ভারতীয়দের মধ্যে এগিয়ে এই টেনিস তারকা।

৭টি অলিম্পিকে ভারতের হয়ে খেলেছেন পেজ। কোনো ভারতীয় অ্যাথলিট এমন কৃতিত্ব দেখাতে পারেননি। একইভাবে তিনি ছাড়া বিশ্ব টেনিসের কোনো খেলোয়াড়ই খেলতে পারেননি সাতটি অলিম্পিকে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে