বীর মুক্তিযোদ্ধার বসত বাড়ীতে সন্ত্রাসীদের থাবা

বীর মুক্তিযোদ্ধার বসত বাড়ীতে সন্ত্রাসীদের থাবা

কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলার চান্দপুর ইউনিয়নের মঞ্জিলেরকান্দার বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার আলী ভূঞা মরাজ (৮০) বয়সের ভারে দুর্বল হয়ে যাওয়ার কারণে কুচক্রী মহলের দৃষ্টিতে পড়েছে শান্তিপূর্ণ বসতবাড়ী।

এক সময়ের পাকহানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে পাহাড়ের মত অনড় থাকা পুরুষটি এখন নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। তারই ধারাবাহিকতায় ১০ এপ্রিল সকাল ৮টা থেকে বিকাল ২টা পর্যন্ত নূরচান, মল্লিক, আমেনা, সেকান্দর ফালু, আবুল হোসেন, রবিন, রিকনাসহ ২০/২৫ জনের একটি দল প্রকাশ্য দিবালোকে তার বাঁশের ঝাড় ও গাছ জোর পূর্বক কেটে নিয়ে যায় এবং তার বসত ঘরের দরজা ভেঙ্গে রেখে যায়।

স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ২০০২ সালে একই ধরণের অত্যাচার শুরু হয়েছিল। আপোষ বন্টনের মাধ্যমে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ টাকা নিয়া যায় একই পরিবারের একই লোক। পুণরায় মিথ্যা দোহাই দিয়ে তার বসতভিটার গাছ, বাঁশ কেটে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে কটিয়াদী মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। যথাযথ তদন্ত ও ব্যবস্থা না নেয়ায় উশৃঙ্খলকারীরা বার বার তার বসতবাড়ীতে আক্রমণ করছে।

তিনি আরও বলেন, আমি বাট্টা তদন্ত কেন্দ্রে যোগাযোগ করলে পুলিশের আশানুরুপ কোন তৎপরতা পায় নাই। তাই নিরুপায় হয়ে উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে নেতৃস্থানীয় লোকজনের নিকট দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। তার এইহীন অবস্থার জন্য উদ্দেশ্যমূলকভাবে কোন গোষ্ঠি জড়িত তা এখনও বুঝতে পারছেন না বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার আলী ভূঞা মরাজ।

এলাকা সূত্রে জানা যায়, বর্তমান মেম্বার রহমানের ভাগিনা উজ্জ্বল মিয়া প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় এ নির্মম অত্যাচার চলমান।

উল্লেখ্য যে, মেম্বার রহমান মিয়া স্ট্রোকের কারণে প্যারালাইজড থাকায় ভাগিনা উজ্জ্বল মিয়ার আবির্ভাব।

কটিয়াদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ এস.এম শাহাদাত হোসেনের সাথে উক্ত বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হয়ে থাকে। এ বিষয়েও ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

যাযাদি/ এমডি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে