শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১

গাজীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে দীর্ঘ লাইন, দুর্ভোগ চরমে

গাজীপুর প্রতিনিধি
  ১৩ জুন ২০২৪, ২২:৩১
ছবি : যায়যায়দিন

গাজীপুরের ভোগড়া বাইপাস ও চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় বৃহস্পতিবার বিকেলের বৃষ্টিতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের কয়েকটি অংশে জলাবদ্ধতা তৈরী হয়েছে। এতে ওই এলাকায় কয়েকটি যানবাহন বিকল হয়ে যাওয়ায় যাত্রীদের ঈদযাত্রায় সাময়িক ভোগান্তি তৈরী হয়েছে। এতে ওই পথে গাড়ি চলাচল বিঘ্নিত হওয়ায় গাড়ির লম্বা সারি তৈরি হয়।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকেলে প্রচুর বৃষ্টিপাত ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চান্দনা চৌরাস্তার ও ভোগড়া বাইপাস এলাকা থেকে ময়মনসিংহমুখী দেড় কিলোমিটার এলাকায় যান চলাচল ধীরগতি তৈরী হয়। এছাড়া গাড়ির চালকরাও ট্রাফিক আইন মেনে নির্ধারিত লেন মেনে না চলায় মাঝে-মধ্যেই গাড়ির জট তৈরি হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে বৃষ্টির কারণে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুর অংশের ভোগড়া বাইপাস থেকে ময়মনসিংমুখী দেড় কিলোমিটার এলাকায় একাধিক স্থানে জলাবদ্ধতা তৈরী হয়েছে। পানি নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা না থাকায় বৃষ্টির পানিতে মহাসড়কের কয়েকটি পয়েন্টে পানি জমে যায়। এই মহাসড়কের টঙ্গী থেকে চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত সড়ক উন্নয়নে বিআরটি প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে, মহাসড়কের লেনগুলো পুরোদমে চালু না হওয়ায় মহাসড়কে জুড়েই যানবাহন চলছে ধীর গতি নিয়ে।

স্বজনদের সাথে ঈদ করতে পরিবার নিয়ে ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া এলাকার ছনকান্দা এলাকায় যেতে গাজীপুর মহানগরের ভোগড়া বাইপাস মোড়ে বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন আব্দুল মতিন। তিনি থাকেন গাজীপুর মহানগরের ভোগড়া এলাকায়। তিনি বলেন, ভোগড়ার বাসা থেকে বৃহস্পতিবার বিকেলে বের হওয়ার সময় কোন বৃষ্টি ছিল না। আকাশে কিছু মেঘের আনাগোনা হলেও ভেবেছিলেন নির্বিঘ্নে বাড়ি যেতে পারবেন। কিন্তু ভোগড়া বাইপাস মোড় এলাকায় বাসের জন্য অপেক্ষা করতে করতেই বৃষ্টি শুরু হয়। এতে মহাসড়কের একাধিক জায়গাতে পানি জমে যায়। এসময় বৃষ্টি মাথায় নিয়ে পানি মাড়িয়ে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে বাসে উঠতে হয়েছে তার মতো আরো অনেকেকই।

গাজীপুরের সৌখিন বাস পরিবহনের বাস চালক আবুল হোসেন বলেন, ময়মনসিংহ থেকে যাত্রী নিয়ে আব্দুল্লাহ্পুর থেকে গাড়ি ঘুরিয়ে ফের ময়মনসিংহের যাত্রী তুলছিলাম। কিন্তু গাজীপুর মহানগরে ঢুকতেই হঠাৎ বৃষ্টিতে পড়তে হয়েছে তাকে। এতে দীর্ঘ সময় দাঁড়িয়েও যাত্রী পাচ্ছি না। মহাসড়কের পানির কারণে যাত্রীরা বাসে কাছে যেতে পারছে না। আবার পুলিশ বাস নিয়ে মহাসড়কের পাশে দীর্ঘ সময় দাঁড়াতেও দিচ্ছে না।

গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) বিমল চন্দ্র বর্মন জানান, প্রচুর বৃষ্টি হওয়াতে ভোগড়া বাইপাস সড়কের উত্তরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে পানি জমে যায়। প্রায় হাঁটু পানি জমে গেলে যানবাহন চলাচল বিঘ্নিত হয়। এসময় ওই পথে চলতে অনেক নিচু গাড়ির ইঞ্জিনে পানি ঢুকে গাড়ি বিকল হয়ে যাচ্ছে। সন্ধ্যার আগ পর্যন্ত ওই এলাকায় ৫টি গাড়ি বিকল হয়ে যায়। এসব গাড়ি সরাতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে। মহাসড়কের পাশে ড্রেন থাকলেও পানি দ্রুত নিস্কানের পর্যাপ্ত ব্যবস্থা না থাকায় ভারি বৃষ্টিপাত হলেও রাস্তায় দীর্ঘ সময়ের জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে।

গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশের সহকারী উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) অশোক কুমার পাল বলেন, ঈদের ছুটিতে চাকুরেদের শেষ কর্মদিবসের বিকেলে গ্রামে ফিরতে গাজীপুরে বিভিন্ন সড়ক-মহাসড়কে যাত্রী সংখ্যা বেড়ে গেছে। যাত্রীদেও সঙ্গে যানবাহনের সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে। যাত্রা পথে বৃহস্পতিবার বিকেলে বৃষ্টি বাগড়া হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিকেলে প্রচুর পরিমাণে বৃষ্টি হওয়ায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভোগড়া বাইপাস মোড়ের উত্তর দিকে কয়েক স্থানে প্রায় হাটু পরিমাণ পানি জমে যায়। পানি নিষ্কাশনের কাজ ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে বৃষ্টি যদি আর বেশি না হয় তাহলে আমরা পানি নিষ্কাশন করতে পারবো। এখন পর্যন্ত ভোগড়া বাইপাস থেকে ময়মনসিংহমুখী এবং ঢাকামুখী লেনে চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত যান বাহন চলাচলে ধীরগতি রয়েছে। তাছাড়া সব জায়গার পরিস্থিতি ভাল আছে। তবে আর বৃষ্টি না হলে আশা করা যায়, ঘন্টা দুয়েক এর মধ্যে আমরা আগের অবস্থায় ফিরে যেতে পারবো। তিনি আরও বলেন, যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদের ১০টি রেকার কাজ করছে। যেকোন গাড়ি বিকল হলে তৎক্ষণাত আমরা সেখান থেকে সরিয়ে ফেলতে পারবো।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে