রোববার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

অর্থই সকল সুখের মূল?

যাযাদি ডেস্ক
  ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১২:৩৫

পুরনো একটি প্রবাদ আছে- টাকা দিয়ে সুখ কেনা যায়। আবার সাম্প্রতিককালে এর উল্টোটাও শোনা যায়– টাকায় সুখ আসে না। তবে আমাদের এই সামষ্টিক ধারণার বাইরে গিয়ে এক গবেষণা জানাচ্ছে, সুখের সঙ্গে ব্যক্তিগত উপার্জনের সম্পর্ক খুব ঘনিষ্ঠ। খবর ইউএস নিউজ ডটকমের।

২০১০ সালে প্রিন্সটনের সেই গবেষণায় দেখা গেছে, আয় বৃদ্ধির সঙ্গে কোনো ব্যক্তির সুখের অনুভূতি বা মাত্রা বেড়ে যায়। এমনকি ২০২১ সালে এসেও সেই ধারণায় খুব একটা পরিবর্তন আসেনি।

হোয়ার্টন স্কুলের সিনিয়র ফেলো ম্যাথু কিলিংসওয়ার্থের নেতৃত্বে গবেষণাটি সম্পন্ন হয়। যেখানে অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা ছিল ৩৩ হাজারেরও বেশি।

যদিও সুখানুভূতি মূলত শিক্ষা এবং বৈবাহিক অবস্থার মতো অন্যান্য জীবন-কারণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট।কিলিংসওয়ার্থের মতে তিনি তার অনুসন্ধানে দেখেছেন ব্যক্তিগত আয় এবং সুখের মধ্যে সম্পর্ক আরও শক্তিশালী।

তবে অর্থ এবং সুখের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সংযোগের মূল কারণ হচ্ছে কোনো ব্যক্তির জাগতিক অর্জনের আকাঙ্ক্ষা। 

কিলিংসওয়ার্থ বলেন, ‘যেভাবে চাওয়া হয়, সেভাবে জীবন-যাপনের জন্য অর্থ মানুষকে একটি আত্মনির্ভরশীলতা এবং স্বাধীনতা দেয়। এর মানে এটা না যে টাকা থাকলেই মানুষ ভালো খাবার খাবে বা বিলাসী দ্রব্য কিনে বিলাসী জীবনযাপন করবে। বরং টাকা মানুষের ইচ্ছা এবং আকাঙ্ক্ষা বাস্তবায়নের একটি মাধ্যম হিসেবে বিবেচিত হয়।'

এ ছাড়া এ বছরের জানুয়ারিতে হার্ভার্ড বিজনেস স্কুলের সহকারী অধ্যাপক এম জেচিমোওয়িকয আরেকটি গবেষণার ফলাফল প্রকাশ করেন। তিনি সেখানে আরও নিশ্চিত করেন যে অর্থ অনেকভাবেই সমস্যা সমাধানের অনুষঙ্গ হিসেবে কাজ করে। এর ফলে মানুষ আরও বেশি সুখানুভব করে।  

এ গবেষণাটিতে ৫২২ জন অংশ নেন। তাদের আয় ছিল ১০ হাজার ডলার থেকে ১৫০ হাজার ডলার পর্যন্ত। একমাস সময় নিয়ে তাদের দৈনিক আবেগ সংক্রান্ত প্রতিক্রিয়া একটি ডায়েরিতে লিখে রাখা হয়। এতে দেখা যায় যে অর্থের কারণে আবেগীয় প্রতিক্রিয়ার তীব্রতা অনেকটাই কমে যায়। মানে তারা মানসিকভাবে স্থির থাকতে পারেন এবং সর্বোপরি যাদের আয় বেশি, তাদের জীবনের প্রতি সন্তুষ্টিও বেশি থাকে।

জেচিমোওয়িকযের মতে, এর মানে এই না যে ধনী মানুষদের কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু টাকা থাকলে সবসময় সহজে সব সমস্যার সমাধান করা যায়।   

ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার অধ্যাপক এলিজাবেথ ডান বলেন, সন্দেহ নেই অর্থের সঙ্গে সুখের সম্পর্ক আছে। কিন্তু অনেক বেশি অর্থ থাকলেই যে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সুখ আসবে, ব্যাপারটা তা নয়।

ডান বলেন, যে ভোক্তাদের উচিত কীভাবে তার অর্থ খরচ করছেন, সেই ব্যাপারটি আরও গভীরভাবে মূল্যায়ন করা।

তিনি যোগ করেন, ‘যখন মূল্যস্ফীতি বেড়ে যায় এবং পকেটে অল্প কয়েকটি ডলার থাকে, তখন কেনাকাটার ক্ষেত্রে আরও সতর্ক হওয়া উচিত। আসলে মানুষ কোনো কিছু কেনার চেয়ে কিনতে যাওয়ার যে অভিজ্ঞতা সেটাই বেশি উপভোগ করে।'  

যাযাদি/ সোহেল

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে