রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

যবিপ্রবি শিক্ষার্থী ও বাস চালককে মারধর, আটক ২

যবিপ্রবি প্রতিনিধি
  ২১ এপ্রিল ২০২৪, ১৮:২০
যবিপ্রবি শিক্ষার্থী ও বাস চালককে মারধর, আটক ২

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) বিআরটিসি বাসের চালক ও কতিপয় শিক্ষার্থীকে মারধর করেছে যশোরের মনিরামপুরে চলা এক লোকাল বাসের চালক ও তার সঙ্গীরা। এ ঘটনায় চারজন আহত হয়েছেন।

রবিবার (২১ এপ্রিল) যশোরের মনিরামপুরের কুয়াদা বাজারে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানান পত্যক্ষদর্শীরা। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে দুজনকে গ্রেফতার করেছে মনিরামপুর থানা পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার যবিপ্রবির মনিরামপুর টু ক্যাম্পাসগামী বিআরটিসি বাস যশোরের মনিরামপুরের কুয়াদা বাজারে এসে পৌছালে স্থানীয় একটি লাইন বাস বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসকে ধাক্কা দিয়ে বাসটির লুকিং গ্লাস ভেঙে ফেলে।

পরবর্তীতে কুয়াদা বাজার পার হয়ে আটমাইল নামকে স্থানে পৌঁছলে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস চালক ঐ লোকাল বাসের চালককে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে লোকাল বাসের চালক বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস চালককে মারধর শুরু করে।

এ অবস্থা দেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কামচারীরা বাস ড্রাইভারকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরও উপর আক্রমণ করেন তারা। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও কামচারীরা হামলাকারীদের বিচার দাবিতে সড়ক অবরোধ করে। এ ঘটনা জানাজানি হলে যবিপ্রবির পরিবহন প্রশাসক ও প্রক্টরিয়াল বডি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।

এছাড়া পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অভিযুক্ত বাসের চালক ও সুপারভাইজারকে আটক করে, আরেক হামলাকারী স্থানীয় মেম্বারের ছেলেকে চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারের আশ্বাস প্রদান করেন ও বিআরটিসি বাসের চাবি ফেরত দিলে অবরোধকারীরা রাস্তা ছেড়ে দেয়।

ভুক্তভোগী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস চালক পিন্টু বলেন, " মনিরামপুর থেকে বাস নিয়ে আসার সময় মনিরামপুরের কুয়াদা বাজার আটমাইলের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় একটি লোকাল বাস আমাদের গাড়ির লুকিং গ্লাস ভেঙে দেয়। আমরা বাস থামালে তারা আমাদের উপর অতর্কিত হামলা করে। হামলাকারী ২ জনকে আমরা সনাক্ত করতে পারলেও আরেকজন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পালিয়ে যাওয়া হামলাকারী স্থানীয় মেম্বারের ছেলে বলে জানতে পারি।

পরিবহন প্রশাসক ড. মো: জাহাঙ্গীর আলম বলেন, " আমাদের বিআরটিসি গাড়িটি মনিরামপুর থেকে ফিরে আসার সময় সেখানকার লোকাল বাস আমাদের বাসকে ধাক্কা দিয়ে লুকিং গ্লাস ভেঙে দেয় এবং পরবর্তীতে আমাদের বাস চালক ও হেল্পারকে মারধর করে। ঘটনাটি শুনে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডিসহ আমরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনাটি সমাধান করেছি।

প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো: হাফিজ উদ্দিন বলেন, " সকালে মুঠোফোনের মাধ্যমে জানতে পারি আমাদের বিআরটিসি বাসকে ধাক্কা দিয়ে বাসের লুকিং গ্লাস ভেঙে দেয় যশোর মনিরামপুর রুটে চলা একটি লোকাল বাস। পরবর্তীতে আমাদের বাস চালক ঐ লোকাল বাসের সামনে গিয়ে থামতে বললে লোকাল বাসের হেলপার ও চালক আমাদের বাসের চালকের উপর আক্রমণ করে। খবর শুনে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হই।

ঘটনাস্থলে মনিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ , উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা , আমাদের প্রক্টরিয়াল বডি এবং পরিবহন কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। পরবর্তীতে সকলের সাথে আলোচনা করে আমরা মামলা করার সিদ্ধান্ত নেয়। এছাড়াও ঘটনাস্থল থেকেই লোকাল বাসটির চালক এবং সুপারভাইজার কে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে মনিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ বি এম মেহেদী মাসুদের সাথে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে