ভারী বৃষ্টির সতর্কতা, ভূমিধসের শঙ্কা

ভারী বৃষ্টির সতর্কতা, ভূমিধসের শঙ্কা

সক্রিয় মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে আকাশে ভারী মেঘের সৃষ্টি হয়েছে। সঙ্গে বায়ু চাপের আধিক্য রয়েছে। এর প্রভাবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টির সঙ্গে দমকা হওয়া বইছে। গত কয়েকদিনের মতো আজও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। এ কারণে নদী বন্দরগুলোতে ১ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর। এছাড়া পাহাড়ি এলাকায় রয়েছে ভূমিধসের শঙ্কা।

আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক বলেন, ‘মৌসুমী বায়ু এখন অনেক সক্রিয়, আর বায়ু চাপের আধিক্যও বেশি থাকায় ভারী বৃষ্টির সঙ্গে কোথাও কোথাও দমকা হাওয়া বইবে। এ কারণে নদী বন্দরগুলোতে ১ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। সঙ্গে ভারী বৃষ্টির সতর্কতা রয়েছে। আজ এবং আগামীকাল এই আবহাওয়াই বিরাজ করবে। পরশু কিছুটা কমতে পারে। এরপর আবার হবে। বর্ষায় প্রায়ই এমন আবহাওয়া থাকবে।’

এক সতর্ক বার্তায় বলা হয়, উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

এদিকে নদী বন্দরগুলোরগুলোকে দেওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়, রাজশাহী, বগুড়া, পাবনা, টাঙ্গাইল, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, ময়মনসিংহ ও সিলেট অঞ্চলগুলোর ওপর দিয়ে দক্ষিণ দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এ জন্য এসব এলাকার বন্দরগুলোকে ১ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

ভারী বৃষ্টির সতর্কতায় বলা হয়, মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় ঢাকা, খুলনা, চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে পাহাড়ি এলাকায় ভূমিধসের আশঙ্কা আছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, মৌসুমী বায়ু অক্ষের বধিতাংশ পূর্ব-উত্তর প্রদেশ, বিহার, লঘুচাপের কেন্দ্রস্থল ও মধ্যাঞ্চল হয়ে উত্তর-পূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় ও উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি থেকে প্রবল অবস্থায় আছে। এসবের প্রভাবে খুলনা, বরিশাল, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর, সিলেট ও ময়মনসিংহ বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ বৃষ্টি হয়েছে সীতাকুণ্ডে, ১২৫ মিলিমিটার। এছাড়া সন্দ্বীপে ১০৬, চট্টগ্রামে ৯২, টেকনাফে ৮১; ভোলা, চাঁদপুর ও মাইজদীকোটে ৭৪, ফরিদপুরে ৬৩, ফেনীতে ৫৯, ময়মনসিংহে ৪৯, খুলনায় ৪৭, যশোরে ৪৬, হাতিয়ায় ৪৫, বরিশালে ৪০, ঢাকায় ৩৮, টাঙ্গাইলে ৩৫, সাতক্ষীরায় ও গোপালগঞ্জে ৩৩, পটুয়াখালীতে ২২, সিলেটে ২১; তাড়াশ, কক্সবাজার ও নেত্রকোনায় ২০, মাদারীপুরে ১৯; চুয়াডাঙ্গা, কুমারখালী ও নিকলিতে ১৬, কুমিল্লায় ১৪; দিনাজপুর, খেপুপাড়া, সৈয়দপুর ও শ্রীমঙ্গলে ১২, রাঙ্গামাটিতে ১১; রাজশাহী, ঈশ্বরদী ও বগুড়ায় ৮, মোংলা ও বদলগাছিতে ৬, রংপুরে ৪, রাজারহাটে ৩ এবং ডিমলায় ১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

যাযাদি/এসআই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে