মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১

বিদেশে বাঙালি নারী

আরাফাতুল ইসলাম
  ৩০ এপ্রিল ২০২৪, ০০:০০
বিদেশে বাঙালি নারী

বাঙালি নারীরা বরাবরই কর্মোদ্যোগী। গ্রিসের পাতিশিয়াতেও দেখা গেল সেই ছবি সংস্কৃতি থেকে ব্যবসা, সবকিছু দক্ষ হাতে সামলাচ্ছেন বাংলাদেশি নারীরা।?বাংলাদেশি নারী নীতু গত ১৩ বছর গ্রিসের বাসিন্দা স্বামীর সঙ্গে দুইটি দোকান চালান তিনি; মেয়ের পড়াশোনা শেখানোর পাশাপাশি সামলান রেস্তোরাঁর ব্যবসাও। এথেন্সের পাতিশিয়া শহরে তাদের দোকান; গ্রিসে থাকতে থাকতে সবকিছুর সঙ্গেই সহজে নিজেকে মানিয়ে নিয়েছেন তিনি। ঘরের পাশাপাশি সমানতালে দোকানের কাজ সামলান নীতু। তার কথায়, 'পাতিশিয়া একটা বাণিজ্যিক এলাকা। আট বছর এখানেই আছি?আমাদের আনাবিয়া সুপারমার্কেটে দেশি জিনিসপত্র পাওয়া যায়,?কিছু বাংলাদেশ থেকেও আসে,? কিছু উৎপাদনও হয়, যেমন- পাটশাকও পাওয়া যায় এই দোকানে।'

নিজের উদ্যোগে ব্যবসা শুরু করেছেন নীতু স্বামীর দোকানের পাশাপাশি সেই ব্যবসাও সামলান তিনি। তার কথায়, 'বাংলাদেশে রাত ১২টা হলে সঙ্গে কাউকে নিয়ে বেরোতাম কিন্তু এখানে বেশি নিরাপদ- দোকান বন্ধ করে রাত ১২টায় ফিরতেও কোনো সমস্যা নেই।'

ধর্ম চর্চার বিষয়ে নীতু বলেন, 'পৃথিবীতে দুই ধরনের মানুষ রয়েছে। সব মানুষ তো এক না। ব্যক্তিগতভাবে ধর্ম চর্চায় নিজেকে স্বাধীন বলে মনে করেন এই নারী'।

নূরজাহান বেগম শিউলি নামের অপর এক নারী গ্রিসে রয়েছেন প্রায় ১১ বছর। তিনি নিজেকে একজন সংস্কৃতিকর্মী ও নতুন উদ্যোক্তা বলে পরিচয় দেন। বাংলার সংস্কৃতি চর্চা বজায় রাখতে চেষ্টা করেন দোয়েল একাডেমি নামে সংগঠনের এই সম্পাদিকা। তিনি জানান, 'সংস্কৃতি চর্চা তো বজায় রাখতেই হবে। দেশের মতো করেই পহেলা বৈশাখ, বিজয় দিবস, ২১ ফেব্রম্নয়ারি সবটাই পালন করি এখানে।'

ব্যবসার পরিধি : পোশাক থেকে রেস্তোরাঁ শিউলি বলেন, 'আমি এথেন্সের নারীদের জন্য শাড়ি রাখি কুমিলস্নার খাদি শাড়ি, টাঙ্গাইল শাড়ি, ঢাকাই শাড়ি বিক্রি করি। কার্গোর মাধ্যমে বাংলাদেশি ভাইদের মাধ্যমে সংগ্রহ করে দেশের খাঁটি জিনিস পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করি।' তার কথায়, 'বাংলাদেশ থেকে ৮০০ টাকা দিয়ে আনা শাড়ি কমপক্ষে ১৬০০ টাকায় বিক্রি হয় প্রতি মাসে প্রায় ৩০ থেকে ৪০টা শাড়ি বিক্রি করি। এথেন্সে নারীর সংখ্যা অনেক। আমার কাছে তালিকা অনুযায়ী ১৪৬ জন বাংলাদেশি নারী রয়েছেন। নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যবসায় সমৃদ্ধি আনার চেষ্টা করছেন। এই নারীও মাহমুদা হুসেন নামে অপর এক নারী উদ্যোক্তা ইনফোমাইগ্রেন্টসকে জানান, গ্রিস এবং বাংলাদেশের জনশক্তি সমঝোতা চুক্তিতে লাভবান হবে বাংলাদেশিরা হুন্ডিতে টাকা পাঠানোয় বাংলাদেশ সরকারের ক্ষতি হচ্ছে? অনিয়মিত বলে অনেককে ঠকানো হচ্ছে সেটা আর হবে না।' ২০০৮ সালের নভেম্বরে গ্রিসে এসেছিলেন মাহমুদা শুকনো খাবার থেকে শুরু করে একাধিক পণ্যের ব্যবসা করেন তিনি। মাহমুদা বলেন, 'সবাই উন্নত জীবনযাপন করতে চায়,? গ্রিসের সংস্কৃতি আমার ভালো লাগে?অন্য দেশে সেই সৌজন্য পাইনি।' তাই গ্রিসে থাকতে চান তিনি। বলকান রুট ধরে ফ্রান্স, ইতালি বা জার্মানি যাওয়ার কথা ভাবেন না কখনো।?বাংলাদেশের এক নারী ব্যবসায়ী একটি রেস্তোরাঁ চালান পাতিশিয়ায়। রেস্তোরাঁর নাম 'হাউস অব ফ্লেভার' স্থানীয়রা একে ইন্ডিয়ান রেস্টুরেন্টও বলেন, দোকানের মালিক মিলি বলেন, '২২ বছর গ্রিসে আছি?নারী হিসেবে গ্রিসে বসবাসের অভিজ্ঞতা খুব ভালো বাংলাদেশের চেয়ে অনেক ভালো আছি।?আবহাওয়া, খাওয়া-দাওয়া সবটাই ভালো লাগে। স্বামী মারা যাওয়ার পর একটা রেস্তোরাঁ বিক্রি করে দিয়েছি। একটা চালাচ্ছি, আর অন্য দোকানও সামলাচ্ছি।' বিফ, শাক, তরকারি, চিকেন বিরিয়ানি, সব 'হাউস অব ফ্লেভার'-এ পাওয়া যায় ভারতীয় খাবারও নিয়মিতভাবে বিক্রি হয় অনলাইন ডেলিভারিও চলে। তবে বাংলাদেশের মানুষের জন্য বিশেষ সুবিধা দেন তিনি। দোকানে বাংলাদেশিদের জন্য ভাত, রুটিসহ চার ইউরো বা ৪০০ টাকায় গরুর মাংস পাওয়া যায় আর গ্রিকদের জন্য যার দাম ১১ ইউরো বা ১১০০ টাকা।?মিলি বলেন, 'এখানে গ্রিকদের সঙ্গে আমার ব্যবসা রয়েছে আমি গয়না বিক্রি করি। গ্রিসের মূল পার্লামেন্টের সামনে দোকান আছে?অ্যাকসেসরিজের, মোবাইল কভার ব্যাগ ইত্যাদিও রাখি গয়নার পাশাপাশি। করোনা একটু থিতু হওয়ার পর ফেব্রম্নয়ারি থেকে পর্যটক বেড়েছে বিক্রিও ভালে হয়েছে।' তার কথায়, 'গ্রিসের মূল সমাজ আগে অভিবাসীদের ভালোভাবেই দেখত; এখন অতিরিক্ত শরণার্থী বেড়ে যাওয়ায় প্রভাব পড়ছে। অভিবাসন সমস্যায় আচমকা সবকিছুর দাম বেড়ে গিয়েছে। গ্রিকরা ভারতীয়, বাংলাদেশিদের খুব ভালোবাসে।?অর্থনীতির কারণে আসলে তারা বিরক্ত, তবে আমাদের পারস্পরিক সম্পর্ক ভালোই।'

১৭ বছর ধরে গ্রিসে রয়েছেন স্বর্ণা আখতার এই নারী মিনি মার্কেটের ব্যবসা করেন বাঙালি শাকসবজি থেকে গ্রিসদের প্রিয় খাবার, ফল সবকিছুই পাওয়া যায় তার দোকানে।?মিলি, শিউলি, স্বর্ণা কিংবা নীতু, প্রত্যেকেই স্ব স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত অভিবাসী বাঙালি নারীরা এভাবে কোথাও যেন নারীর ক্ষমতায়নের দিকটাও ইউরোপের কাছে তুলে ধরছেন।?

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে