বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯
walton1

ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে কমেছে খ্রিস্টান, বেড়েছে মুসলিমদের সংখ্যা

যাযাদি ডেস্ক
  ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:২৫
ছবি সংগ্রহ

ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে প্রথমবারের মতো মোট জনসংখ্যার শতকরা ৫০ ভাগেরও কম অর্থাৎ অর্ধেকের নিচে নেমে এসেছে খ্রিস্টানদের সংখ্যা। অন্যদিকে বৃদ্ধি পেয়েছে মুসলিম ও হিন্দুদের সংখ্যা। সেনসাস ২০২১-এ এই তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে মঙ্গলবার। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ইস্টার্ন আই। ওই পরিসংখ্যানের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, ২০২১ সালে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের শতকরা ৪৬.২ ভাগ মানুষ অর্থাৎ ২ কোটি ৭৫ লাখ মানুষ নিজেদেরকে খ্রিস্টান হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। ২০১১ সালে এই হার ছিল শতকরা ৫৯.৩ ভাগ বা ৩ কোটি ৩৩ লাখ। অর্থাৎ এ সময়ে খ্রিস্টানদের সংখ্যা কমেছে শতকরা ১৩.১ ভাগ। দ্বিতীয় গ্রুপটি তাদের কোনো ধর্ম নেই বলে বর্ণনা করেছে। তাদের সংখ্যা এক দশক আগে ছিল ২৫.২ ভাগ।

২০২১ সালে এ সংখ্যা শতকরা ১২ ভাগ বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে শতকরা ৩৭.২ ভাগ। এক দশক আগে এমন মানুষের মোট সংখ্যা ছিল ১ কোটি ৪১ লাখ।

তা ২০২১ সাল নাগাদ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ২২ লাখ। নিজেদেরকে যারা মুসলিম দাবি করেন ২০১১ সালে তাদের সংখ্যা ছিল শতকরা ৪.৯ ভাগ। ১০ বছর সময়ে তা বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ৬.৫ ভাগ। ২০১১ সালে মুসলিমদের মোট সংখ্যা ছিল ২৭ লাখ। ১০ বছরে বৃদ্ধি পেয়ে তা হয়েছে ৩৯ লাখ। অন্যদিকে হিন্দুদের আনুপাতিক হার ১.৫ ভাগ থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে শতকরা ১.৭ ভাগ। শিখ জনগোষ্ঠী ২০১১ সালের শতকরা ০.৮ ভাগ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে শতকরা ০.৯ ভাগে।

বৌদ্ধদের সংখ্যা শতকরা ০.৪ ভাগ থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ০.৫ ভাগে। অফিস ফর ন্যাশনাল স্ট্যাটিসটিকদের তথ্য এসব। প্রায় ২৫ হাজার মানুষ ২০২১ সালে বলেছে, তারা জৈন। ১০ বছর আগে তাদের সংখ্যা কত ছিল সে তথ্য পাওয়া যায় না।

যাযাদি/ সোহেল

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে