শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

সুমন হত্যা মামলায় যুবকের ৮ বছরের জেল ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা

গাংনী (মেহেরপুর) প্রতিনিধি
  ০২ মে ২০২৩, ১৪:২৬
সুমন হত্যা মামলায় যুবকের ৮ বছরের জেল ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা

মেহেরপুরের গাংনীর কাজিপুর গ্রামের ব্যবসায়ি সুমন হত্যা মামলায় একজনের ৮ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

মঙ্গলবার (২ মে) দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচার রিপতি কুমার বিশ্বাস এ আদেশ দেন।

দণ্ডিত ওই ব্যক্তির নাম আব্দুল আওয়াল। সে গাংনীর কাজিপুর রিফিউজি পাড়ার জাহার কাশেম ওরফে খুশি মণ্ডলের ছেলে। তাকে মেহেরপুর কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার বিবরনে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১৪ জুন গাংনী উপজেলার কাজিপুর ব্রীজ বাজার থেকে ব্যবসায়িক কাজ শেষে বাই সাইকেল যোগে ফেরার পথে আব্দুল আওয়ালসহ কয়েকজন লোহার রড ও হাতুড়ি দিয়ে ব্যবসায়ি সুমনের মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে রাখে। স্থানীয়রা সুমনকে উদ্ধার করে স্থানে একটি ক্লিনিকে ভর্তি করে। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে ঢাকাতে প্রেরণ করা হয়।

এ ঘটনায় সুমনের বাবা শমসের আলী বাদী হয়ে গাংনী থানায় দু'জন নামীয় ও কয়েকজনকে অজ্ঞাত করে একটি মাললা দায়ের করেন।

যার মামলা নং- জেআর ১৮৪/১৫ তারিখ- ১৫-০৬-১৫। কয়েকদিন পর চিকিৎসাধিন অবস্থায় সুমনের মৃত্যু হলে মামলাটি হত্যা মামলায় রুপান্তরীত হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মুক্তার হোসেন মামলার তদন্ত শেষে আব্দুল আওয়ালকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

মামলায় চারজন স্বাক্ষির স্বাক্ষ্য গ্রহণ বাদী বিবাদীর আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শেষে আসামী আওয়ালের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত ৮ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ প্রদান করেন।

মামলায় সরকারি পক্ষের আইনজীবি ছিলেন অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাড. কাজী শহিদুল হক ও আসামী পক্ষের আইনজীবি ছিলেন অ্যাড. এ.কে.এম শফিকুল আলম।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে