রোববার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১

কলকাতায় তাণ্ডব চালাতে পারে রেমাল

বিশেষ প্রতিনিধি
  ২৪ মে ২০২৪, ০৯:২২
ছবি-সংগৃহিত

দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট হওয়া লঘুচাপ নিম্নচাপে পরিণত হয়ে ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়টি ঘণ্টায় ১১০ কিলোমিটার থেকে ১২০ কিলোমিটার বেগে তাণ্ডব চালাতে পারে। তবে ঘূর্ণিঝড়টির গতিপথ কোন দিকে তা এখন স্পষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। এরইমধ্যে ঘূর্ণিঝড় রেমাল একাধিকবার গতিপথ পরিবর্তন করেছে। বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় রেমাল ক্রমশ শক্তিবৃদ্ধি করছে। ঘূর্ণিঝড়টি ভয়ংকর রূপ ধারণ করতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ও ভারতের আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। এর প্রভাবে উপকূলের ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধ ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। রেমালের ব্যাপ্তি এবং স্থায়িত্ব অন্যান্য ঘূর্ণিঝড় থেকে প্রবল হতে পারে।

আবহাওয়া অফিস বলছে, ঘূর্ণিঝড়টি রোববার সন্ধ্যার পর পশ্চিমবঙ্গের উপকূলীয় অঞ্চল ও রাজধানী কলকাতায় আঘাত হানতে পারে। ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার গতিতে কলকাতায় আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় রেমাল। গতিপথ অপরিবর্তিত থাকলে কলকাতা শহরে ঝড়টি ব্যাপক তাণ্ডব চালাতে পারে।

ভারতের আবহাওয়া বিজ্ঞানী ড. এম শর্মা জানিয়েছেন, শনিবার ঘূর্ণিঝড় রেমালে পরিণত হতে পারে। লঘুচাপটির সর্বোচ্চ শক্তি সঞ্চয় করার সম্ভাবনা রয়েছে। কোনো কোনো মডেল বলছে, এটির গতিপথ হতে পারে বাংলাদেশ-মিয়ানমার উপকূলের দিকে। আবার কোনো কোনো মডেল বলছে, পশ্চিমবঙ্গে এটি আছড়ে পড়তে পারে।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, ঘূর্ণিঝড় রেমাল শক্তি অর্জন করে ২৪ মে রাতে বা ২৫ মে সকালের দিকে ঘূর্ণিঝড়েও রূপ নিতে পারে। তবে যেহেতু প্রতি মুহূর্তেই এর গতিপথ পরিবর্তিত হচ্ছে তাই কোথায় এটি আঘাত হানতে পারে সেটি এখনো বলা যাচ্ছে না। শুক্রবারের পর ঘূর্ণিঝড় তার গতিপথ চূড়ান্ত করতে পারে। তবে লঘুচাপটি এখনো বাংলাদেশের উপকূল থেকে অনেক দূরে এবং তামিলনাড়ু ও অন্ধ্র উপকূলের কাছাকাছি আছে।

এদিকে ভারতের দক্ষিণ অন্ধ্রপ্রদেশ ও উত্তর তামিলনাড়ুর উপকূলের দিকে এগুচ্ছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঘূণিঝড়ের গতিপথ রয়েছে উত্তর-পূর্ব দিকে। এ কারণে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পক্ষ থেকে গভীর সমুদ্রে মাছ ধরতে যাওয়া জেলে ও ট্রলারকে দ্রুত উপকূলে ফিরে আসার নির্দেশনা দিয়েছে। রোববার পর্যন্ত এ নির্দেশনা মেনে চলারও কথা বলা হয়েছে। ভারতের আবহাওয়াবিদরা বলছেন, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের মতো সোজা কলকাতা শহরের ওপর দিয়ে যেতে চলেছে ঘূর্ণিঝড় রেমালও। গতিপথ অপরিবর্তিত থাকলে কলকাতা শহরে ঝড়ের ব্যাপক প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে উত্তাল হচ্ছে বঙ্গোপসাগর। খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের উপকূলীয় জেলাগুলোতেও পড়বে। আঘাত হানার সময় এসব অঞ্চলে বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে তাদের গভীর সাগরে বিচরণ না করতে আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে। শনি বা রোববার শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। ঘূর্ণিঝড়টি যদি জোয়ারের সময় উপকূলে আঘাত হানা শুরু করে, তবে বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের উপকূলীয় এলাকাগুলো স্বাভাবিকের চেয়ে ৫ থেকে ১০ ফুট বেশি উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা রয়েছে। ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে বৃহস্পতিবার দুপুরের পর থেকে বাংলাদেশের অধিকাংশ অঞ্চলে থেমে থেমে ঝড়বৃষ্টি হচ্ছে।

এদিকে ঢাকাসহ সারাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- ঢাকা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ঢাকা ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা কিছুুটা কমতে পারে। রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। এছাড়া বর্ধিত পাঁচ দিনে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক যায়যায়দিনকে বলেন, যখন এটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে এর নাম হবে রেমাল। এটি ওমানের দেওয়া নাম। আরবি এই শব্দটির অর্থ বালু। তবে, এই নামে আফগানিস্তানে একটি শহর আছে। সেই শহরের নামানুসারে এটির নামকরণ করা হয়েছে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে