শেষ আটে মারিয়া-জোকোভিচ

শেষ আটে মারিয়া-জোকোভিচ

উইম্বলডনে একের পর এক দুর্ঘটনার মধ্য দিয়েও ফাইনালের উদ্দেশ্যে লড়ে যাচ্ছে বিজেতারা। ইতোমধ্যে শেষ সেমি কোয়ার্টার ফাইনাল পর্ব ইতি টেনেছে। দুই দিনে চারটি করে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে এই ধাপে। এর মধ্যে পুরুষ একক থেকে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছেন জান্নিক সিনার, ক্যামরন নরি, ডেভিড গফিন ও নোভাক জোকোভিচ। অন্যদিকে নারী একক থেকে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছেন উন্স জাবেউর, জুলে নিয়েমিয়ার, তাতজানা মারিয়া ও মারি বোজকোভা।

পুরুষ এককে ডাচ তারকা টিম ভ্যান রিজথোভেনকে হারিয়ে শেষ আটে নাম লিখিয়েছেন নোভাক জোকোভিচ। ২১তম গ্র্যান্ড স্লাম জয়ের স্বপ্নে এগিয়ে যাওয়া এই সার্বিয়ান টেনিসার তারকা প্রথম রাউন্ড থেকেই দুর্দান্ত জয় উপহার দিয়ে যাচ্ছেন। শেষ ষোলোর ম্যাচে সেন্টার কোর্টে চার সেটে লড়াই করতে হয়েছে জোকোভিচকে। প্রথম সেটে টিম ভ্যান রিজথিভোনের বিপক্ষে ৬-২ পয়েন্ট ব্যবধানেই জয় নিশ্চিত করে এগিয়ে যায় জোকোভিচ। কিন্তু পরের সেটেই ঘুরে দাঁড়ায় রিজথোভেন। জোকোভিচকে ৪ পয়েন্টে রেখেই কাক্সিক্ষত ৬ পয়েন্ট নিয়ে সমতায় ফিরেন রিজথোভেন। কিন্তু পরের সেটে জোকোভিচ দাপুটে জয় তুলে নেন। রিজথোভেনকে মাত্র ১ পয়েন্ট জয় করার পর আর কোনো পয়েন্টই নিতে দেননি। মাঝে দিয়ে ডাচ তারকা একটি সেট জয় করায় ম্যাচ নির্ধারণ হয় চতুর্থ সেটে। ম্যাচ নির্ধারণী সেটেও ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছেন জোকোভিচ। ৬-২ পয়েন্ট ব্যবধানে জয় নিশ্চিত করে কোয়ার্টার ফাইনালে পদার্পণ করেন তিনি। কোয়ার্টার ফাইনালে জোকোভিচের মুখোমুখি হবেন জান্নিক সিনার। জান্নিক সিনার সেমি কোয়ার্টার ফাইনালে তরুণ টেনিস তারকা কার্লোস আলকারাজ গারফিয়াকে হারিয়ে শেষ আটে পদার্পণ করেছেন। গারফিয়ার বিপক্ষে ৩-১ সেট ব্যবধানে জয় পেয়েছেন তিনি।

প্রথম সেটেই গারফিয়াকে বড় ব্যবধানে পরাস্ত করে মানসিক শক্তিতে আঘাত হানেনা সিনার। এরপর পরের সেটে কিছুটা ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করলেও শেষ পর্যন্ত ৬-৪ ব্যবধানে হেরেছে গারফিয়া। কিন্তু তৃতীয় সেটে কঠিন লড়াইয়ের মাধ্যমে এক সেট জিতে নেন গারফিয়া। এই সেটে সিনার তার ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলে চতুর্থ সেটের প্রয়োজন হতো না। কিন্তু হেরেছেন ৬-৭(৮-১০) পয়েন্ট ব্যবধানে। এরপর ম্যাচ নির্ধারণী চতুর্থ সেটে ৬-৩ ব্যবধানে কাক্সিক্ষত জয় নিয়ে শেষ আটে পা রাখেন সিনার। সেমিফাইনালের উদ্দেশ্যে আরেক ম্যাচে মুখোমুখি হবেন ডেভিড গফিন ও ক্যামরন নরি। মার্কিন টেনিসার টমি পলকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার সুযোগ পেয়েছেন নরি। পলকে সরাসরি তিন সেটেই পরাস্ত করেছেন তিনি। প্রথম সেটে ৬-৪, দ্বিতীয় সেটে ৭-৫ ও তৃতীয় সেটে আবারো ৬-৪ পয়েন্ট ব্যবধানে হারিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে, তার প্রতিপক্ষ আরেক মার্কিন টেনিসার ফ্রান্সিস টিয়াফোর বিপক্ষে ৫ সেটের ম্যাচে ৩-২ সেট ব্যবধানে জয় নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যত অর্জন করেছেন। প্রথম সেট থেকেই এই দুই টেনিসারের বেশ হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে। শেষ পর্যন্ত ৭-৬(৭-৩) পয়েন্ট ব্যবধানে প্রথম সেটে জয় নিয়ে এগিয়ে যান ডেভিড গফিন। এরপর দ্বিতীয় সেটে ৭-৫ পয়েন্ট ব্যবধানের জয়ের সাহায্যে সমতা অর্জন করে তৃতীয় সেটেই সমান ব্যবধানে জয় নিয়ে লিড পায় টিয়াফো। কিন্তু চতুর্থ সেটে ৬-৪ পয়েন্ট ব্যবধানে জয় নিশ্চিত করে ২-২ সেট সমতায় ফিরেন গফিন। ম্যাচ নির্ধারণী পঞ্চম সেটেও এই ধারাবাহিকতা ধরে রেখে ৭-৫ পয়েন্টের জয় নিয়ে শেষ হাসি হেসেছেন গফিন।

অন্যদিকে, নারী এককে উন্স জাবেউরের বিপক্ষে বেলজিয়ান টেনিসার এলিস মার্টেনস প্রথম সেটেই বেশ লড়াই করেছেন। তবে দুর্ভাগ্যবশত ৭-৬(১১-৯) ব্যবধানে হেরে গিয়েছেন। এরপর দ্বিতীয় সেটে হেরে গেছেন ৬-৪ ব্যবধানে। আরেক ম্যাচে হিদার ওয়াটসনকে সরাসরি দুই সেটে ৬-২ ও ৬-৪ পয়েন্টে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছেন জুলে নিয়েমিয়ার। তৃতীয় ম্যাচে জেলেনা ওস্তাপেনকোকে ২-১ সেট ব্যবধানে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছেন তাতজানা মারিয়া।

উইম্বলডনের মিশ্র দ্বৈতের দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নিয়েছেন জেমি মারে ও ভেনাস উইলিয়ামস। ৩-১ সেটে তারা হেরেছে ব্রিটেনের জুটি জনি ও’মারা ও অ্যালিসিয়া বার্নেটের কাছে। শেষ হাসি হাসার আগে ম্যাচের প্রথম সেট হেরেছিল বসেছিল ব্রিটিশ এই জুটি। শুরুতে একবার ব্রেক করার হুমকি জাগিয়েও পারেননি তারা। উল্টো অষ্টম গেমে ব্রেক করে ৫-৩ গেমে এগিয়ে যান ভেনাস-জেমি। নিজেদের সার্ভ ধরে রেখে প্রথম সেট জেতেন তারা। ৬-৩ সেটে হেরে ম্যাচ শুরু করলেও পরের সেটে ঘুরে দাঁড়ায় তারা। দ্বিতীয় সেটে ৪-২ গেমে পিছিয়ে পড়েও শেষে দুর্দান্তভাবে প্রত্যাবর্তন করে ও’মারা-বার্নেট জুটি। টানা চারটি গেম জিতে ৬-৪ ব্যবধানে দ্বিতীয় সেট জিতে সমতায় ফিরেন দুজন। তৃতীয় সেটের শুরুতে জেমি-ভেনাস ব্রেক করলেও ও’মারার উইনারে ৪-৪ গেমে সমতা ফিরেন এই জুটি। ১০ পয়েন্টের টাইব্রেকারের শুরুতে ৫-১ পয়েন্টে এগিয়ে যায় স্কটিশ ও’মারা ও ইংল্যান্ডের বার্নেট। কিন্তু জেমি ও ভেনাস হাল ছাড়েননি। টানা পাঁচটি পয়েন্ট জিতেছেন এই পর্যায়ে এসে। এরপর এক জুটি ম্যাচ পয়েন্ট পেয়েছে, আবার অন্য জুটি সেখান থেকে সমতায় ফিরে নিজেরা ম্যাচ পয়েন্ট পেয়েছে। ১৭-১৬ অবস্থায় মারের একটি রিটার্ন নেটে আটকা পড়ে। এভাবেই ৭-৬ (১৮/১৬) হারিয়ে কোর্য়াটার ফাইনালে ওঠে ও’মারা ও বার্নেট।

যাযাদি/ এসএই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে