শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১

গিলের সেঞ্চুরিতে বেঙ্গালুরুর বিদায়, প্লে অফে মুম্বাই

যাযাদি ডেস্ক
  ২২ মে ২০২৩, ১২:৩৯
গিলের সেঞ্চুরিতে বেঙ্গালুরুর বিদায়, প্লে অফে মুম্বাই

দারুণ সেঞ্চুরিতে দুইশোর কাছে পুঁজি নিয়ে নিজের কাজটা করে দিয়েছিলেন বিরাট কোহলি। তবে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বোলাররা শুভমান গিলের কাছে পেরে উঠলেন না। অপরাজিত বিস্ফোরক সেঞ্চুরিতে সব আলো নিজের দিকে নিয়ে গেলেন গিল। তার ঝলকে এক হাজার কিলোমিটার দূরের শহরে বসে উল্লাসে মাতল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। আরও একবার আইপিএল থেকে হতাশা নিয়ে থামল বেঙ্গালুরু।

রোববার রাতে বেঙ্গালুরুতে রোমাঞ্চে ভরপুর ম্যাচে স্বাগতিকদের ৬ উইকেটে হারিয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন গুজরাট টাইটান্স।

আগে ব্যাট করে কোহলির ১০১ রানে ১৯৭ রানের পুঁজি পেয়েছিল বেঙ্গালুরুর। ৫ বল আগে ছক্কা মেরে ম্যাচ শেষ করে দিয়ে আনন্দে উদ্বেল হয়েছেন গিল। দলকে জেতাতে ৫২ বলে ১০৪ রানের ইনিংস খেলেছেন তিনি।

এই ম্যাচ হারলেও শীর্ষেই থাকত গুজরাট। তাদের জয়ে সবচেয়ে লাভ হয়েছে মুম্বাইর। বেঙ্গালুরু হেরে যাওয়ায় প্লে অফ নিশ্চিত হয়েছে রোহিত শর্মাদের।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে বাঁচা মরার লড়াইয়ে সেঞ্চুরি করে দলকে জিতিয়েছিলেন কোহলি। টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি কাজে লাগল না তার। টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি পেয়েছেন গিলও। এর আগের ম্যাচে সানরাজার্সের বিপক্ষে সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন তিনিও।

৭০ ম্যাচ শেষে প্লে অফের লাইনআপও চূড়ান্ত হয়ে গেল। মঙ্গলবার প্রথম কোয়ালিফায়ারে লড়বে গুজরাট-চেন্নাই সুপার কিংস। বুধবার এলিমিনেটরে মুখোমুখি হবে লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্ট ও মুম্বাই। শুক্রবার এই ম্যাচের জয়ী দল প্রথম কোয়ালিফায়ারে হেরে যাওয়া দলের বিপক্ষে খেলবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচ।

১৯৮ রানের লক্ষ্যে নেমে শুরুটা তেমন ভালো হয়নি গুজরাটের। দলের ২৫ রানে ফেরেন ঋদ্ধিমান সাহা। কিন্তু এরপরই ম্যাচের গতিপথ বদলে দেয়া জুটি চলে আসে।

বিজয় শঙ্করকে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে ৭১ বলে ১২৩ রান যোগ করে ফেলেন গিল। টুর্নামেন্ট জুড় দারুণ ছন্দ বজায় রাখা শঙ্কর ৩৫ বলে খেলেন ৫৩ রানের ইনিংস।

তার বিদায়ের পর দাসুন শানাকা, ডেভিড মিলারকে দ্রুত তুলে নিতে পেরেছিল বেঙ্গালুরু। তবে এক প্রান্তে টিকে থেকে গিল তছনছ করে দেন বেঙ্গালুরুর আশা।

শেষ ৩ ওভারে দরকার ছিল ৩৪ রান। মোহাম্মদ সিরাজের ওভারে উইকেট পেলেও আসে ১৫ রান। হার্শাল প্যাটেল ১৯তম ওভারে দেন ১১ রান।

শেষ ওভারে ৮ রান ডিফেন্ড করতে এসে তালগোল পাকান ওয়েইন পারনেল। ওয়াইড, নো বলে হারান তাল। বৈধ এক ডেলিভারিতেই ছক্কা মেরে ম্যাচ শেষ করে দেন গিল।

এর আগে বৃষ্টিতে দেরিতে শুরু হওয়া ম্যাচে আগে ব্যাটিং পেয়ে ভালো শুরু পেয়েছিল বেঙ্গালুরু। ফাফ দু প্লেসিকে নিয়ে ৬৭ রানের ওপেনিং জুটি পেয়েছিলেন কোহলি।

কিন্তু কেউই তার সঙ্গে তাল মিলাতে পারেননি। ওপেনিং জুটিতে ৬৭ রান আসার পর ২৮ করে ফেরেন দু প্লেসি। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল নেমে ঝড়ের আভাস দিয়েই থেমে যান। মাহিপাল লামরোরও করেন হতাশ। মিচেল ব্রেসওয়েলকে নিয়ে পরে জুটি পান কোহলি।

২৯ বলে ৪৭ রানের জুটির পর ব্রেসওয়েলও (১৬ বলে ২৬) করে বিদায় নিলে এক প্রান্তে চালিয়ে যান। শেষ দিকে অনুজ রাওয়াতকে নিয়ে ৩৪ বলে ৬৪ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে দলকে দুইশোর কাছে নিয়ে যান তিনি।

ইনিংস বিরতিতে এই পুঁজি যথেষ্ট মনে হয়েছিল কোহলির। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বোলাররা কাজটা শেষ করতে পারলেন না। আরও একবার দারুণ দল নিয়েই আইপিএল ট্রফি স্পর্শ করতে পারল না বেঙ্গালুরু।

যাযাদি/ এসএম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে