সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯
walton1
রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ

পূর্ব ইউক্রেনে তুমুল লড়াই

ম দনবাসের বেশ কয়েকটি এলাকা দখল করেছে রাশিয়া ম যুদ্ধে এক লাখ ইউক্রেনীয় সেনা নিহত : উরসুলা ভন লিয়েন
ম যাযাদি ডেস্ক
  ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০
ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রুশ বাহিনী নতুন করে অগ্রসর হচ্ছে এবং দক্ষিণাঞ্চলে খেরসন শহর লক্ষ্য করে ট্যাংক, মর্টার ও কামান থেকে গোলা ছুড়ছে বলে জানিয়েছে কিয়েভের সামরিক বাহিনী। ফলে ওই অঞ্চলে দুই পক্ষের মধ্যে তুমুল লড়াই শুরু হয়েছে। রাশিয়ার সেনারা এরই মধ্যে দনবাস প্রজাতন্ত্রের বেশ কয়েকটি এলাকা নতুন করে দখল করেছে এবং সেসব অঞ্চল থেকে ইউক্রেনের সেনাদের পিছু হটতে বাধ্য করেছে। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে বাখমুত শহরের আশপাশের কয়েকটি এলাকায় ব্যাপক সংঘর্ষের পর সেগুলো মুক্ত করা সম্ভব হয়। সংবাদসূত্র : রয়টার্স, আল-জাজিরা, পার্স টুডে, ইয়াহু নিউজ মস্কো দাবি করেছে, দনবাসের অন্তত দুটি এলাকা সম্পূর্ণভাবে মুক্ত করা হয়েছে। সংঘর্ষে সেখানে ইউক্রেনের অন্তত ৫০ জন সেনা নিহত, চারটি কাম্ব্যাট আর্মড ভেহিকেল, তিনটি সেল্ফ প্রপেল্ড ইউনিট এবং ছয়টি সাধারণ গাড়ি ধ্বংস হয়। বুধবার বিকালে আরও একটি গ্রাম মুক্ত করার কথা জানিয়েছে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। এই গ্রামটি গুরুত্বপূর্ণ সরবরাহ রুটে অবস্থিত এবং ইউক্রেনের সেনাদের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় গ্যারিসন হিসেবে কাজ করছিল। এদিকে, বুধবার রাতে এক বিবৃতিতে ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর জেনারেল স্টাফ জানিয়েছেন, পূর্বাঞ্চলীয় দনেৎস্কে রুশ বাহিনী আরও অগ্রসর হওয়ার চেষ্টা করছে এবং বাখমুত ও নিকটবর্তী সোলেদার, ওপুয়েৎনেতসহ বেশ কয়েকটি শহর লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণ করছে। দক্ষিণাঞ্চলে রাশিয়ার বাহিনী প্রতিরক্ষামূলক অবস্থান গ্রহণ করেছে এবং ইউক্রেনীয় বাহিনীর অবস্থান ও আঞ্চলিক রাজধানী খেরসন লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণ করছে। নভেম্বরের প্রথমদিকে রুশ বাহিনী খেরসন ছেড়ে যাওয়ার পর ইউক্রেনীয় বাহিনী নগরীটির নিয়ন্ত্রণ নেয়। ইউক্রেনের উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলেও হামলা চালানো হচ্ছে বলে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বুধবার রাতে দেওয়া তার ভিডিও ভাষণে বলেছেন, 'আমরা দখলদারদের উদ্দেশ্য বিশ্লেষণ করে পাল্টা পদক্ষেপ নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি, এখনকার তুলনায় আরও কঠোর পাল্টা ব্যবস্থা নেওয়া হবে।' যুদ্ধে এক লাখ ইউক্রেনীয় সেনা নিহত : উরসুলা ভন লিয়েন এদিকে, এক বক্তব্যে ইউক্রেনে এক লাখ সেনা নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান উরসুলা ভন ডার লিয়েন। বুধবার তিনি টুইটারে তার ওই বক্তব্যটির ভিডিও প্রকাশ করেন। এতে তিনি বলেন, রুশ বাহিনী ইউক্রেনে ২০ হাজার বেসামরিক নাগরিক এবং এক লাখের বেশি ইউক্রেনীয় সেনাকে হত্যা করেছে। ওই ভিডিওটি ইউরোপীয় কমিশনের ওয়েবসাইটেও আপলোড করা হয়েছে। খবরে বলা হয়, ভিডিও আপলোডের কয়েক ঘণ্টা পর তিনি তা 'ডিলিট' (মুছে) করে দেন। তবে ততক্ষণে ভিডিওটি ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে গেছে। ইউক্রেন খুব শক্তভাবে নিজেদের সেনা হতাহতের সংখ্যা গোপন করে আসছে। পশ্চিমা গণমাধ্যমেও শুধু রাশিয়ার সেনা নিহতের সংবাদই প্রচার করা হয়। ফলে ভন ডার লিয়েনের মুখে এক লাখ ইউক্রেনীয় সেনা নিহতের খবরে ভড়কে গেছেন নেটিজেনরা। ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান বলেন, ইউক্রেনে মৃতু্য, ধ্বংস এবং যন্ত্রণা বয়ে এনেছে রাশিয়ার অভিযান। ভিডিওতে ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান লিয়েন বলেন, 'আমরা সবাই বুচার ভয়াবহতার কথা মনে রেখেছি। এখন পর্যন্ত ২০ হাজার বেসামরিক এবং এক লাখ ইউক্রেনীয় সেনাকে হত্যা করেছে রাশিয়া। এই অপরাধের জন্য রাশিয়াকে অবশ্যই দায় নিতে হবে।' রাশিয়াও ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর বড় একটি অংশকে ধ্বংস করে দেওয়ার দাবি করে আসছে। লিয়েনের ওই বক্তব্য রাশিয়ার এই দাবিকে সমর্থন করে। যদিও কয়েক ঘণ্টা পরই ভিডিওটি সরিয়ে ফেলেন তিনি। এর পরিবর্তে তিনি এই দুই লাইন বাদ দিয়ে ওই ভিডিওটি আবারও আপলোড করেন। তবে এরই মধ্যে তার এই বক্তব্য ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে গেছে। ইউক্রেনপন্থি টেলিগ্রাম গ্রম্নপগুলোতেও বিষয়টি নিয়ে অস্বস্তি দেখা গেছে। অনেককেই বিস্ময় প্রকাশ করতে দেখা গেছে। অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন, নিহত যদি এক লাখ হয়, তাহলে আহতের সংখ্যা কত বেশি হতে পারে!
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে