মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০
walton
পাকিস্তানের রাজনীতি

ইমরানের পাশ থেকে সরে যাচ্ছেন পিটিআইয়ের শীর্ষ নেতারা

'সেনাবাহিনীর ধরপাকড় ও চাপে পড়ে শীর্ষ নেতারা তার পাশ থেকে সরে যাচ্ছেন'
যাযাদি ডেস্ক
  ২৬ মে ২০২৩, ০০:০০
ইমরান খান

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের রাজনৈতিক দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) শীর্ষ নেতারা হঠাৎ করেই দল ছাড়া শুরু করেছেন। এরই মধ্যে ইমরানের সরকারে মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা নেতাও সরে গেছেন। অনেকে বলছেন, তারা আর রাজনীতি করবেন না। ইমরান খান দাবি করেছেন, সেনাবাহিনীর ধরপাকড় ও চাপে পড়ে শীর্ষ নেতারা তার পাশ থেকে সরে যাচ্ছেন। সংবাদসূত্র : ডন, এক্সপ্রেস ট্রিবিউন, এএফপি

গত কয়েকদিনে দলের প্রধান মুখপাত্র ফাওয়াদ চৌধুরি, সাবেক মানবাধিকার বিষয়ক মন্ত্রী শিরিন মাজারিসহ কমপক্ষে দুই ডজন সাবেক মন্ত্রী, এমপি ইমরান খানের দল ছেড়েছেন। এবার দলের সেক্রেটারি জেনারেল আসাদ উমর-ও এই পদ ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন। বুধবার ইসলামাবাদে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, তিনি আর পাকিস্তান তেহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির কোনো অংশ নন। তবে দল থেকে পদত্যাগ করছেন না। তার ভাষায়, '৯ মের পর বর্তমান পরিস্থিতিতে দলের নেতৃত্বের যে দায়িত্ব আমার ওপর তা চালিয়ে নেওয়া আমার পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না।'

অন্যদিকে, বৃহস্পতিবার নতুন এক সতর্কতা দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি উমর আতা বান্দিয়াল। তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন, নির্বাচন বিলম্বিত করলে দেশে অপশক্তির উত্থান ঘটবে। তারা দেশজুড়ে অরাজকতা শুরু করবে। এর আগে সুপ্রিম কোর্ট পাঞ্জাব প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচন ১৪ মে করার রায় দিয়েছিল। তা নিয়ে রিভিউ পিটিশন দাখিল করে পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশন। এর শুনানি হয় বৃহস্পতিবার। এদিন নিরাপত্তা এবং পর্যাপ্ত তহবিলের অভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানে অক্ষমতার কথা জানায় নির্বাচন কমিশন। একই সঙ্গে তারা জানায়, নির্বাচনের তারিখ ঠিক করা সুপ্রিম কোর্টের দায়িত্ব নয়।

অন্যদিকে, জোর গুজব আছে- সেনাবাহিনীর চাপে ইমরান খানের দলের নেতারা একে একে পদত্যাগ করছেন। এমন অবস্থায় বুধবার যখন সাবেক তথ্যমন্ত্রী ও পিটিআইয়ের প্রধান মুখপাত্র ফাওয়াদ চৌধুরি পদত্যাগের ঘোষণা দেন, তখন ইমরান খান দেশের যে কারও সঙ্গে আলোচনায় বসার কথা বলেন। তবে তাতে কোনো পক্ষ সায় দিয়েছে কিনা তা জানা যায়নি। এরপরই গভীর রাতে দলের সেক্রেটারি জেনারেল পদ ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দেন আসাদ উমর। তিনি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, 'যে জন্য আমি (পদ) ছাড়ছি, তার একটি কারণ হলো, আমি খুব কথা বলি। যদি পদ ধরে রাখি, তাহলে ব্যক্তিগত বক্তব্য দিতে পারব না।' এর কয়েক ঘণ্টা আগে ইসলামাবাদ হাইকোর্টের নির্দেশে রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা জেল থেকে মুক্তি পান তিনি। তারপরই ওই সংবাদ সম্মেলন করেন। মুক্তি দেওয়ার ক্ষেত্রে আদালত তাকে নির্দেশনা দিয়েছে, মুক্তি পাওয়ার পর তিনি সহিংস প্রতিবাদ বিক্ষোভের অংশ হবেন না।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে