৩০ মার্চ খুলছে স্কুল-কলেজ

৩০ মার্চ খুলছে স্কুল-কলেজ

প্রায় এক বছর বন্ধ থাকার পর খুলে দেওয়া হচ্ছে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তবে ঢালাওভাবে নয়, পর্যায়ক্রমে ৩০ মার্চ থেকে স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হবে। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি শনিবার রাতে মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এই সিদ্ধান্তের কথা জানান।

শনিবার সন্ধ্যায় সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে বৈঠকে কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বৈঠকে অংশ নেন।

বৈঠক শেষে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আসন্ন রোজার পুরো সময় ছুটি থাকবে না। এমনিতেই অনেক সময় চলে গেছে। আমরাও ছোটবেলায় দেখেছি, শুধু ঈদের সময় ছুটি থাকত। এবারও আমরা তেমনটা করতে চাই।

বৈঠক শেষে শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের বৈঠেেকর সিদ্ধান্ত ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কীভাবে খোলা হবে, এর বিস্তারিত পরিকল্পনা তুলে ধরে বলেন, বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে- আগে পঞ্চম, দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হবে। সপ্তাহে ছয় দিন এই ক্লাস চলবে। অন্যান্য শ্রেণিতে সপ্তাহে একদিন করে ক্লাস হবে। এসএসসি ও এইচএসসির সংক্ষিপ্ত সিলেবাস দেওয়া হয়েছে। এসএসসির ৬০ দিনের ক্লাস শেষে এবং এইচএসসির ৮০ দিনের ক্লাস শেষে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এই সময়ের মধ্যে শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের করোনার টিকাদান সম্পন্ন হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানান, স্কুল-কলেজ খোলার আগে থেকেই প্রতিষ্ঠান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। প্রয়োজনীয় সংস্কারও সম্পন্ন করতে হবে।

বৈঠকে এ ছাড়া মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আব্দুল মান্নান, কারিগরি ও মাদ্রাসা

শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মো. কামাল হোসেন, পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলমসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

করোনাভাইরাসের কারণে টানা ১১ মাস ১০ দিন দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ রয়েছে। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, ছুটি আজ শেষ হয়েছে। এ অবস্থায় এখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বিশেষ করে স্কুল-কলেজ খোলা হবে কিনা এবং সেই পরিবেশ-পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে কিনা, তা পর্যালোচনা করার জন্য সাপ্তাহিক ছুটির দিন শনিবার আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে গত সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরিবেশ পর্যালোচনা করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

করোনার কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি চলছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ থাকায় প্রায় চার কোটি শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বিঘ্নিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে গত বছরের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা এবং জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। গত বছরের উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষাও হয়নি। গত বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়নের ফল এ বছর ঘোষণা করা হয়েছে। এ ছাড়া বিদ্যালয়ে বার্ষিক পরীক্ষা ছাড়াই শিক্ষার্থীরা ওপরের শ্রেণিতে উঠেছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে