সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
walton

ফকিরহাটে সড়ক দাপিয়ে বেড়াচ্ছে নসিমন-করিমন

অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা
ফকিরহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধি
  ১৯ মার্চ ২০২৩, ০০:০০

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার সড়ক ও মহাসড়কে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অবৈধ নসিমন, করিমন, ভটভটি, আলম সাধু নামক থ্রি-হুইলার (তিন চাকার যান)। দুর্বল ব্রেক আর স্টিয়ারিং সত্ত্বেও বেপরোয়া গতির কারণে এসব যানবাহনে অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা। নেই কোনো প্রশাসনিক পদক্ষেপ।

ফকিরহাটের বিভিন্ন স্থানে সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, গ্রামীণ কাঠ মিস্ত্রীর তৈরি কাঠামোর সঙ্গে স্যালো ইঞ্জিন লাগিয়ে এসব নসিমন করিমন রাস্তায় নামানো হয়। এসব গাড়ির চালকদের নেই কোনো বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স। ট্রাফিক আইন সম্পর্কে নেই বিন্দুমাত্র ধারণা। রয়েছে দুর্বল ব্রেক আর স্টিয়ারিং। নেই হর্ন, সংকেত বাতি। নেই কোনো বৈধ রেজিস্ট্রেশন। হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা, মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা থাকা সত্ত্বেও ফকিরহাট সদর, গুরুত্বপূর্ণ ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক, বাগেরহাট-খুলনা আন্তঃজেলা সড়কসহ গ্রামীণ সড়কগুলোতে অবাধে চলাচল করছে নসিমন, করিমন, ভটভটি আলম সাধু নামক তিন চাকার যানবাহন। মাত্রাতিরিক্ত মালামাল বহন ও বেপরোয়া গতির কারণে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে এসব যানবাহনে। পথচারী, অন্যান্য হালকা যানবাহন ও স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের কাছে এসব যানবাহন সাক্ষাৎ যমদূত হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।

জানা যায়, অনেকেই বিকল্প জীবিকা খুঁজে পেলেও আনাড়ি চালকরা দ্রম্নতগতিতে এ যান সড়ক-মহাসড়কে চালাতে গিয়ে প্রায়শই ছোট বড় দুর্ঘটনা ঘটাচ্ছেন। ফলে পঙ্গুত্বসহ নিহতের তালিকার সংখ্যা বাড়ছে দিন দিন। বিদু্যতের খাম্বা, ইট, রড, সিমেন্ট, গাছেরগুড়িসহ ভারী মালামাল বহন করতে দেখা যায় এসব যানবাহনে। পাশাপাশি যাত্রীও বহন হচ্ছে অহরহ। এসব যান ধারণ ক্ষমতার চেয়ে অনেক বেশি যাত্রী ও মালামাল বহন করার ফলে মাঝে মধ্যেই রাস্তার ওপর বিকল হয়ে পড়ে। এতে রাস্তায় যানজটের সৃষ্টি হয়।

নসিমন চালক রুবেল সেখ জানান, তিনি ৯৬ হাজার টাকায় শ্যালো মেশিনের নছিমন বানিয়েছেন। মহাসড়কে ঝুঁকি থাকলেও আয় বেশি হওয়ায় তিনি নসিমন চালান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক চালক জানান, রাস্তায় এসব যান চলাচলের জন্য তাদের প্রতিদিন টাকা দিতে হয়। তবে কাকে টাকা দিচ্ছেন তা প্রকাশ করতে অস্বীকৃতি জানান তাঁরা।

সোমবার সকালে ফকিরহাট হাউজ বিল্ডিং এলাকায় কথা হয় নসিমন বাহনের যাত্রী আলেয়া বেগমের সঙ্গে। তিনি জানান, বড় গাড়ির অপেক্ষা না করে তাড়াতাড়ি গন্তব্যে ফিরতে নসিমনের যাত্রী হয়েছেন।

পরিবেশ নিয়ে কাজ করা বেসরকারি সংস্থা বেলার জেলা আহ্বায়ক খান মাহমুদ আরিফুল হক বলেন, এ যান চলাচলে মানুষের জীবনের কোনো নিশ্চয়তা থাকে না। এর কালো ধোঁয়া ও বিকট শব্দ পরিবেশকে দূষিত করছে। অবৈধ এ বাহনগুলো প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকায় ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটাচ্ছে।

কাটাখালী হাইওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, 'আমরা থ্রি-হুইলারের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে থাকি। এসব যানবাহনে জরিমানাও করছি। কিন্তু চালকরা জরিমানা দিয়ে পরে তারা আবার রাস্তায় চলাচল শুরু করে।'

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে